৫১ বছর বয়সী ইরফান খান নিউরোএন্ডোক্রাইন টিউমারে আক্রান্ত, কয়েক মাস আগে এই খবর জানা যায়। টিউমারটি ঘিরে শারীরিক অস্বস্তিযন্ত্রণার কথা নিজের সোশ্যাল মিডিয়া সাইটে তুলে ধরেন ইরফান। ইরফানের অসুস্থতার খবরে হতবাক বলিউড। শোকে স্তব্ধ ভক্তরা| গতকাল টুইটারে সেই টিউমার বা ক্যানসারের যন্ত্রণা কাটিয়ে ওঠার কথা লিখলেন ইরফান খান।

Banglalive

আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই ক্রমাগত বিদেশের এক হাসপাতালে নিউরোএন্ডোক্রাইন টিউমারের সঙ্গে লড়াই করছেন অভিনেতা ইরফান খান। দুরারোগ্য রোগের সঙ্গে এই লড়াই নিঃসন্দেহে কঠিন। কিন্তু মনের জোরে অসম এই যুদ্ধ প্রায় একাই চালিয়ে যাচ্ছেন বলিউড তারকা ইরফান খান। একদিকে শারীরিক সমস্যা অন্যদিকে শ্যুটিং এর চাপ, এর মধ্যে থেকেই সময় বের করে এই হৃদয়স্পর্শী টুইট করেন।

ইরফান লিখেছেন, আমি হাসপাতালের যে ঘরটিতে ভর্তি রয়েছি, সেখানে একটা ব্যালকনি রয়েছে৷ যেটি দিয়ে আমি  রোজ বাইরের পৃথিবীটা দেখি৷ রাস্তার এক পাশে আমার হাসপাতাল৷ আমার ঘরের ঠিক পাশেই কোমা ওয়ার্ড৷ অন্যদিকে লর্ডস স্টেডিয়ামসেখানে রয়েছে ভিভিয়ান রিচার্ডসের হাসিতে ভরা পোস্টার৷প্রথমবার বুঝতে পারছি স্বাধীনতার অর্থ কী৷ আমি অসুস্থ জানার পর অনেকেই আমার জন্য প্রার্থনা করছেন৷ তাঁদের মধ্যে অনেকে আমাকে চেনেনও না৷ কিন্তু সকলের প্রার্থনা জীবনদায়ী শক্তি হয়ে আমার স্পাইনাল কর্ডের মাধ্যমে ভিতরে প্রবেশ করে মস্তিষ্কে পৌঁছে যাচ্ছে৷ জীবনকে খুব কাছের থেকে অনুভব করতে পারছি৷

নিজের আবেগঘন লেখায় অভিনেতা উল্লেখ করেছেন বেশ কয়েকটি বিষয়ের। যন্ত্রণা, ভয়, আতঙ্ক নিয়ে বার বার হাসপাতালে যাতায়াতের মধ্যেও হার মানতে চাননি ইরফান। বার বার নিজের ছেলেকে ইরফান বলে গিয়েছেন, এই সংকট তিনি কাটিয়ে উঠবেনইএবং এই লড়াইয়ে বারবার নিজেকে আরও বেশি করে উৎসাহ যুগিয়ে চলেছেন প্রতি মুহূর্তে। ইরফান নিজের টুইটারে জানিয়েছেন, এই লড়াইয়ের আরও কাহিনি তিনি পরবর্তী পর্যায়ে পোস্ট করবেন। 

প্রসঙ্গত, ইরফান খানকে নিয়ে যখন তাঁর ঘনিষ্ঠমহল থেকে ভক্তরা সকলেই চিন্তিত, ঠিক তখনই পরিচালক সুজিত সরকার যেন আলোর পথ দেখালেন। পরিচালক জানিয়েছেন, চিকিৎসায় ইরফান সাড়া দিচ্ছেন। সেই সঙ্গে খুশির ডবল ডোজ, চলতি মাসের প্রথমেই ঘোষণা করেছেন তাঁর আগামী ছবির বিষয়। তাঁর আগামী ছবিতে থাকছেন ইরফান খান।

ব্রিটিশের সঙ্গে স্বাধীনতার যুদ্ধে অংশগ্রহণ করা উধম সিং এর জীবন নিয়ে সুজিতের আগামী ছবি। যে ছবির জন্য ফিটনেস এবং বিষয়ের গভীরতা দুটোই খুব দরকার। সুজিত মনে করেন ইরফানের মধ্যে দুটিই রয়েছে। তাছাড়া পাঞ্জাবের ইতিহাস সম্পর্কেও ইরফানের জ্ঞান প্রচুর। তাই ইরফান ছাড়া কারও কাথা ভাবতে পারছেন না তিনি। তাই পরের মাসেই নায়কের সঙ্গে দেখা করতে উড়ে যাচ্ছেন নিউ ইয়র্ক। তাই ইরফানকে ফের একবার রুপোলি পর্দায় দেখতে পাওয়ার আশাতেই বুক বাঁধছেন সবাই৷

আরও পড়ুন:  প্রিয়াঙ্কা-য় ‘না’ নেই নিকের...পছন্দ দীপিকাকেও!?

NO COMMENTS