“হোমওয়ার্ক করতে পারব না”! খোলা চিঠি খুদে পড়ুয়ার

“হোমওয়ার্ক করতে পারব না”! খোলা চিঠি খুদে পড়ুয়ার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

সারা সপ্তাহ জুড়ে স্কুল আর তার সঙ্গে সঙ্গে চলতে থাকে হোমওয়ার্কের চাপও। তাই সপ্তাহের শেষে হোমওয়ার্কের চাপ আর নিতে নারাজ এক খুদে। তাই রীতিমতো লম্বা একটি চিঠি লিখে স্কুল কর্তৃপক্ষকে সাফ জানিয়ে দিয়েছে সে। আর তার লেখা সেই প্রতিবাদী চিঠি রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিয়েছে স্কুল সহ সোশ্যাল মিডিয়াতে।

ঘটনাটি ঘটেছে আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার একটি স্কুলে। ‘সপ্তাহের শেষে ছুটি কাটানোর জন্য দেওয়া হয়, তাই হোমওয়ার্ক করতে পারব না’। এডওয়ার্ড ইমানুয়েল কর্টেজ-এর লেখা চিঠিতে এই সাফ কথা। ছোট্ট এডওয়ার্ড-এর ডাকনাম এডি।

হোমওয়ার্ক এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদে ছোট্ট এডি তার এক পাতার চিঠিতে স্পষ্ট লিখে স্কুলে জানিয়েছে, সারা সপ্তাহ জুড়ে স্কুল এবং হোমওয়ার্কের চাপ তাকে সইতে হয়। তাই উইকএন্ডে হোমওয়ার্কের চাপ সে কিছুতেই নিতে পারবে না। কারণ, অতিরিক্ত হোমওয়ার্কের চাপে তার পাগলের মতো লাগে। ছুটিটা ঠিক মতো উপভোগ করতে পারে না সে, শুধুমাত্র এই হোমওয়ার্কের কারণে। চিঠিতে সে আরও লিখেছে যে, হোমওয়ার্ক কোনও কাজের নয়। শুধু শিক্ষকরা দেন, ভবিষ্যতে কাজের ক্ষেত্রে এর কোনও প্রয়োজন হয় না।

স্কুলের বাচ্চাদের উপর হোমওয়ার্কের চাপ কতটা থাকা প্রয়োজন সেই নিয়ে তর্ক বহু রয়েছে। বিভিন্ন মহল থেকে বাচ্চাদের উপর থেকে হোমওয়ার্কের চাপ কমানোর দাবিও করা হয়েছিল। কিন্তু ছোট্ট এডওয়ার্ড-এর মতো এর আগে কাউকে, এভাবে প্রতিবাদ করতে দেখা যায়নি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।