অসহ্য কানের ব্যথা কমাতে মেনে চলুন এই ঘরোয়া প্রতিকার!

1495

এই আবহাওয়া বদলের সময়েই অল্প ঠাণ্ডা লেগে অনেকেই কানে ব্যথা বা ইনফেকশনে ভোগেন। ঠাণ্ডা লাগা ছাড়াও ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ, অ্যালার্জি, ছত্রাক, কানের ভেতরে ফোড়া নানা কারণেই কানে তীব্র ব্যথা হয় অনেকেরই। এই সময় ভুল করেও কানে আঙুল বা কটন বাড ঢুকিয়ে পরিষ্কার করার চেষ্টা করবেন না। তাই কানের অসহ্য এই ব্যথা দূর করতে জেনে রাখুন কিছু ঘরোয়া সমাধান।

গরম ভাপ

গরম জলের ভাপ এই ব্যথা কমানোর জন্য দারুণ উপকারে আসতে পারে। একটি সুতির পাতলা কাপড় গরম জলে ভিজিয়ে জল নিংরে নিয়ে, কানের কাছে চেপে ধরুন। গরম ভাপ কানের ভেতরে গেলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে এবং কানের ব্যথা উপশম হবে। চাইলে এক্ষেত্রে হেয়ার ড্রায়ারও ব্যবহার করতে পারেন।

অলিভ অয়েল

কানে ব্যথা সারাতে অলিভ অয়েল-এর ব্যবহার করতে পারেন। ব্যথার সময় তিন থেকে চার ফোঁটা অলিভ অয়েল কানে ঢেলে দিন। অথবা অলিভ অয়েলে কটন বাডস-এ ভিজিয়ে কানের ফুটোয় চেপে রাখুন। ধীরে ধীরে ব্যাথা কমে আসবে।

রসুন

রসুন অ্যান্টিবায়টিক হিসেবে ব্যথা ও ইনফেকশন সারিয়ে তুলতে খুব উপকারী। এক টুকরো রসুনের কোয়া কুচি কুচি করে কেটে তিলের তেলে দিয়ে গরম করে নিন। এরপর ঠাণ্ডা করে তেল থেকে রসুনকুঁচি গুলো ফেলে দিন। তারপর কানে দুই থেকে তিন ফোঁটা তেল দিয়ে দিন অথবা বাডস-এর সাহায্যেও দিত পারেন।

লবণ

একটি প্যানে লবণ বাদামী বর্ণ না হওয়া অবধি গরম করে নিন। এরপর শুকনো সুতির কাপড়ে নিয়ে ব্যাথা হওয়া কানে ভাপ দিন। এতে কানের ব্যথা তাৎক্ষণিকভাবে উপশম পাবেন। তবে নজর রাখতে হবে লবন যেন কোনওভাবে কানের ভেতর প্রবেশ না করে।

পেঁয়াজ

পেঁয়াজের রয়েছে কার্যকরী অ্যান্টিসেপ্টিক। পেঁয়াজ কুঁচি করে নিয়ে তা থেকে রস বের করে, দিনে অন্তত দুই থেকে তিন বার তিন-চার ফোঁটা করে ব্যাথা হওয়া কানের ভেতর দিতে হবে। এতে কানের ব্যথা ধীরে ধীরে কমে আসবে।

এতেও যদি কোনওভাবে কানের অসহ্য ব্যাথা থেকে যায়, তবে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.