সংসার চালাতে এখন স্টলে চাওমিন বেচেন পদকজয়ী শ্যুটার

সংসার চালাতে এখন স্টলে চাওমিন বেচেন পদকজয়ী শ্যুটার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

কয়েক বছর আগেও যে হাত ট্রিগারে থাকত‚ এখন সে হাত নুডলস বানায় | কয়েক বছর আগেও যে পদক শো কেসে শোভা পেত‚ এখন সেগুলো ঝোলানো থাকে নুডলস-স্টলের চারপাশে | কারণ এইভাবেই ক্রেতাকে আকৃষ্ট করেন জাতীয় স্তরের পদকজয়ী শ্যুটার পুষ্পা গুপ্তা | অভাবের তাড়নায় রাইফেল-শ্যুটিং ছেড়ে এখন নুডলস বিক্রি করেন ২১ বছর বয়সী এই তরুণী |

কলেজে পড়তে পড়তে রাইফেল শ্যুটিং-এর নেশা চেপে বসে তাঁর মাথায় | শুরুতে আর্থিক সমর্থন পেয়েওছিলেন NCC থেকে | কিন্তু বেশিদিন লালন-পালন করতে পারেননি নিজের প্যাশন | সংসারের চাপে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন শ্যুটিং-এর মতো মহার্ঘ্য স্পোর্টস | একসময় জাতীয় স্তরে গুজরাতের প্রতিনিধিত্ব করে পদক জয় করেছেন পুষ্পা | এখন সংসারের হাল ধরতে গিয়ে সেই সোনালি অতীত তাঁর কাছে অলীক রূপকথা |

পুষ্পার দাবি সরকারি তরফে যে সাহায্য এসেছিল‚ তা সামান্য | সেটা দিয়ে কেনা যায়নি দামী রাইফেল এবং অ্যামিউনিশন | এক বছরের বেশি হয়ে গেল‚ পুষ্পা হাত দেননি রাইফেলে | বরং ওই হাতেই ক্ষিপ্রতায় বানিয়ে চলেন চাওমিন |

অলিম্পিকের মতো মঞ্চে শ্যুটিং ভারতকে পদক এনে দিয়েছে | এই খেলায় আগের থেকে বিনিয়োগও বেড়েছে | কিন্তু তারপরেও খেলা ছেড়ে দোকান চালাতে হয় পদকজয়ী শ্যুটারদের |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।