প্রথম দেখা চিকাগো ল’ ফার্মে কাজের সময়।দুই জনেরই জীবনে পথচলা শুরু,তরুণ বয়সে।ক্রমে পরিচয় আলাপপর্ব কাটিয়ে দাম্পত্য সঙ্গী হওয়া।এভাবেই কাটিয়ে দিলেন ২৫টা বছর।বলছি যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও পত্নী মিশেল ওবামার কথা।১৯৯২ এর অক্টোবর,তখন সদ্য বিয়ে করেছেন তরুণ বারাক ।বিয়ের স্মৃতি হিসেবে আর পাঁচটা সাধারণ মানুষের মতোই অ্যালবামের পাতায় বন্দি ছিল রঙিন মুহূর্তের সাদা কালো ছবিগুলি।

Banglalive

এবছরেই অক্টোবরে বিবাহের ২৫ তম বর্ষ পূর্ণ হবে।দীর্ঘ সময় একসঙ্গে, না ছিল নাম,না যশ না যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির তকমা।আর না মুহূর্ত ভাগ করে নেওয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া।তবে এখন ডিজিটাল যুগ,বিশ্বের কাছেও যথেষ্ট পরিচিত নাম বারাক পত্নী মিশেল।ইদানিং ইনষ্টাগ্রামেও যথেষ্ট পরিচিত তিনি।এমন বিশেষ সময়ে বারবার ইচ্ছে করে স্মৃতির সরণি বেয়ে পুরোনো দিনগুলোয় ফিরে যেতে,স্মৃতিচারণ করতে।তাই আবার বেছে নিলেন নিজের ইনষ্টাগ্রাম পেজটিকে।আবার শুরুর রঙিন মুহূর্তগুলি ভাগ করে নিলেন নিজের ফ্যান ফলোয়ারদের সঙ্গে। যদিও এই প্রথমবার নয়,আগেও ২৫ তম বিবাহবর্ষের সূচনায়  যুগলে সহাস্য বদনের একটি বিয়ের ছবি পোস্ট করেছিলেন।তবে এই ছবিটি একটু বেশি স্পেশাল।

এবারের প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে বারাক ও মিশেল ওবামা নবদম্পতি রূপে গার্টার টস প্রথায় অংশ নিয়েছেন। দুজনেই হাস্যরত।ছবির তলায় ক্যাপশনে মুহূর্তের বিস্তারিত বর্ণনা ।জানান,দীর্ঘ ২৫ বছর পরেও আমরা একই ভাবে মজা করি।একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধা ও সমর্থন,বোঝাপড়াই আমাদের সম্পর্কের মূল চাবিকাঠি।জীবনের এই পথচলায় সঙ্গী হিসেবে বারাক ছাড়া আর কাউকে কল্পনাও করতে পারিনা।পাশাপাশি উল্লেখ করেন বিয়ের দিন রাতভর নাচের কথাও।

বর্তমানে তাঁর ইনষ্টাগ্রামে ফলোয়ার সংখ্যা ২০ মিলিয়নেরও বেশি। সাদা কালো অথচ রঙিন মুহূর্তের ছবিগুলি ইতিমধ্যেই ইনষ্টাগ্রামে ভাইরাল তকমা পেয়েছে।লাইক সংখ্যাও ছাড়িয়েছে প্রায় ৩.২ মিলিয়ন। 

পাশাপাশি ছবি শেয়ার করার জন্য প্রতিক্রিয়াও জানিয়েছেন অনেকে।কেউ ধন্যবাদ দেন মুহূর্ত ভাগ করে নেওয়ার জন্য,কেউ লেখেন আপনারা সত্যিই অসাধারণ। কেউবা রানি,রাজকীয় দম্পতি বলেও উল্লেখ করলেন এই দম্পতিকে।

আরও পড়ুন:  ওড়নার আড়ালে গালে লুকিয়ে ছিল এই ! বিবাহবিচ্ছেদের মামলা স্বামীর

তবে বিয়ের মুহূর্ত ভাগ করে নিতে পিছিয়ে নেই বারাক ওবামাও।পত্নীরও আগে ২০১৩ তে ২১ তম বিবাহবার্ষিকীতে প্রথমবার একটি বিয়ের ছবি পোস্ট করেন।পাশাপাশি ২০১৭ ভ্যালেন্টাইন্স ডে উপলক্ষ্যেও একে অন্যকে টুইটারে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান। একসঙ্গে প্রায় তিন দশক কাটতে চললেন।পাশাপাশি এবছরের নভেম্বরেই তাঁদের জীবনের স্মৃতি বিজড়িত বই “Becoming”ও মুক্তি পেতে চলেছে।

NO COMMENTS