সুন্দর ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক পেতে সাহায্য করে দুধের সর। জেনে নিন এর উপকারিতা…

চিকিৎসকরা বলেন দুধ খাওয়া শরীরের পক্ষে বিশেষ উপকারী। তবে জানেন কি ত্বকের যত্নে দুধের থেকেও অনেক বেশি উপকারী হল দুধের সর। মুখের কথা নয়, বিভিন্ন গবেষণায় উঠে এসেছে দুধের সর ত্বকের জন্য কতখানি উপকারী। জেনে নিন সেগুলি কি কি…

* ময়েশ্চারাইজার হিসেবে- দুধ হল প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার। খানিকটা দুধের সর নিয়ে ত্বকের ওপর খানিকক্ষণ মালিশ করলে তা ত্বককে ময়েশ্চারাইজড করে এবং ত্বকের গভীরে জমে থাকা ময়লা দূর করতে সাহায্য করে।

* ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে- শুধু ভাল ময়েশ্চারাইজার হিসেবেই নয়, ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতেও সাহায্য করে দুধের সর। ভাল ফল পেতে পারেন যদি দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিতে পারেন।

* ত্বকের কালচে দাগ দূর করে- ত্বকে কোথাও কালচে ছোপ বা ট্যান দেখা দিলে সেখানে লাগান খানিকটা দুধের সর। প্রয়োজনে তাতে মিশিয়ে নিতে পারেন খানিকটা লেবুর রস। মিশ্রণটি মুখের লাগিয়ে শুকিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কালচে দাগ নিমেষেই উধাও হবে।

* অ্যান্টি-এজিং হিসেবে- আগেকার দিনে মহিলারা ফেসপ্যাক এবং স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করতেন দুধের সর। বলা হয়, দুধের সর মাখলে নাকি চেহারায় বয়সের ছাপ পড়ে না। কারণ দুধের সরে রয়েছে প্রোটিন ও ভিটামিন যা বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।

* ত্বক ফর্সা হতে সাহায্য করে- বাজার চলতি কেমিক্যাল-যুক্ত প্রোডাক্টের ব্যবহার কমিয়ে, বেছে নিন দুধের সর। এর জন্য দু’চামচ দুধের সরের সঙ্গে এক চামচ মধু এবং এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর জল দ্দিয়ে ধুয়ে নিন। এক সপ্তাহেই তফাত চোখে পড়বে।

* মৃত কোষ নষ্ট করে- ত্বকের উপরে জমতে থাকা মৃত কোষ ত্বকের জেল্লা কমিয়ে দিতে পারে। দুধের সর ত্বকের এই মৃত কোষ নষ্ট করতে সাহায্য করে। মৃত কোষ চলে গেলেই ত্বক তার হারানো ঔজ্জ্বল্য ফিরে পাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here