‘ জয়পুরের হোটেলে ওঁর নাগপাশ থেকে নিজেকে মুক্ত করতে পারিনি…হয়েছিলাম ধর্ষিতা !’ প্রাক্তন সহকর্মীর মি-টু শরে বিদ্ধ এম.জে আকবর

1191

 জয়পুরের হোটেলে উনি আমায় ধর্ষণ করেছিলেন |  
 কোনও ধর্ষণ বা নির্যাতন নয় | ওটা ছিল দুপক্ষের সম্মতিতে‚ অ্যাফেয়ার 

প্রথম কথাটা বলেছেন পল্লবী গগৈ | তাঁর অভিযোগের তির প্রখ্যাত সাংবাদিক তথা দেশের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী এম.জে আকবরের বিরুদ্ধে |  

দ্বিতীয় দাবি মল্লিকা আকবরের | তিনি পল্লবীর দাবি সম্পূর্ণ নস্যাৎ করেছেন | তাঁর বক্তব্য‚ স্বামীর সঙ্গে পল্লবীর ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা তিনি জানতেন | তাঁর সামনেও পল্লবী চেষ্টা করেছেন এম জে আকবরের ঘনিষ্ঠ হওয়ার | দাবি মল্লিকার | উল্লেখ করেছেন তুষিতা প্যাটেলের কথাও | তুষিতাও আকবরের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন যৌন হেনস্থার | মল্লিকার দাবি‚ পল্লবী ও তুষিতা দুজনেই তাঁদের বাড়িতে এসে নৈশভোজ ও মদ্যপান করেছেন | তখন কোনও নির্যাতনের কথাও ওঠেনি | তবে এখন মিথ্যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে কেন ?

পল্লবী যে সময়ের কথা বলেছেন‚ সেটা ১৯৯৪ | তখন তিনি কর্মরত ছিলেন এশিয়ান এজ সংবাদপত্রে | এম জে আকবরের পেশাগত দক্ষতায় তিনি মুগ্ধ ছিলেন | জানিয়েছেন পল্লবী | তাই কাজ শেখার জন্য মুখ বুজেও সহ্য করতেন অশ্রাব্য গালিগালাজ | 

নতুন দিল্লিতে সংবাদপত্রের অফিসে আকবরের হাতে তিনি শ্লীলতাহানিরও শিকার হয়েছে | অভিযোগ পল্লবীর | তাঁর দাবি‚ নিজের কেবিনে কাজের প্রশংসা করার অছিলায় তিনি পল্লবীকে জোর করে চুম্বন করেছিলেন | ঘটনার আকস্মিকতায় বিমূঢ় পল্লবী অফিস ছেড়ে চলে যান বিধ্বস্ত অবস্থায় | 

এর কয়েক মাস পরে একটি অনার কিলিং-এর খবর কভার করতে প্রত্যন্ত গ্রামে গিয়েছিলেন পল্লবী | অভিযোগ‚ তাঁর অ্যাসাইনমেন্টের গতিপ্রকৃতি নিয়ে আলোচনার জন্য জয়পুরে হোটেলে তাঁকে ডেকেছিলেন আকবর | অভিযোগ সেখানেই ধর্ষিতা হন পল্লবী | তখন তিনি ২৩ বছর বয়সী তরুণী |

এখন তিনি আমেরিকায় | কর্মরত আমেরিকার ‘ন্যাশনাল পাবলিক রেডিও’(এনপিআর)-তে | ওয়াশিংটন পোস্ট-এর ব্লগে লিখেছেন মি-টু অভিজ্ঞতা | 

এম জে আকবর ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন | জানিয়েছেন‚ যৌথ সম্মতিতে তা ছিল অ্যাফেয়ার | বেশ কয়েক মাস টিকেছিল সেই সম্পর্ক | কিন্তু বাড়িতে অশান্তি শুরু হওয়ায় সেই সম্পর্ক ভেঙে যায় | এবং পল্লবীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তৎকালীন অনেক সহকর্মীই জানতেন বলে দাবি আকবরের |

বিদেশ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন এম জে আকবর | সম্প্রতি তাঁর বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন একাধিক মহিলা | ফলে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন তিনি | 

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.