ছারপোকার লার্ভার মল থেকে তৈরি হয় এই চা

সাধারণত চায়ের স্বাদকে আলাদা মাত্রা দিতে আদা চা, লেবু চা, গ্রীন টি, তুলসি চা ইত্যাদির সঙ্গে তো সকলেই পরিচিত। কিন্তু এই পৃথিবীতে এমন কিছু চা রয়েছে যার কথা হয়তো অনেকেই জানেন না।

১) পান্ডা ডাং টি বা পান্ডার মলের চা- ভাবছেন এটা কি পান্ডার মল থেকে তৈরি চা? কিন্তু তা একেবারেই নয়। আসলে চিনের সিচুয়ানের ইয়াং প্রদেশে ধরনের চা চাষ করা হয়, যাতে সার হিসাবে ব্যবহার করা হয় পান্ডার মল। বলা হয়, এটিই বিশ্বের সবথেকে দামী চাগুলির মধ্যে একটি।

২) টমেটো মিন্ট চা- টমেটো মিন্ট মূলত ব্যবহার করা হয় সুস্বাদু স্যুপে। আর এই টমেটো মিন্ট চা-এর স্বাদও অনেকখানি স্যুপের মতো। নামের মতোই এই চায়ে টমেটো, পুদিনা এবং চা পাতার এক অদ্ভুত সংমিশ্রণ এই টমেটো মিন্ট চা। ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে পাওয়া যায় এই চা।

৩) রসুন চা- গলা ব্যথা হলে আদা চা তো অনেকেই খেয়েছেন, কিন্তু রসুন চা কি কখনও খেয়েছেন ? এই চায়ে কিন্তু কোনওরকম চা পাতা ব্যবহার করা হয় না। সম্পূর্ণ রসুনের নির্যাস থেকেই এই চায়ের সৃষ্টি।

৪) বাগ পুপ টি বা ছারপোকার মলের চা – এই চা কিন্তু সত্যি করেই ছারপোকার মল থেকে তৈরি হয়। চা পাতার বাগানে একধরণের বিশেষ ছারপোকার লার্ভার মল থেকে তৈরি হয় এই চা। এই এই পোকাকে কেবলই জৈব চা-পাতা খাওয়ানো হয়ে থাকে।

৫) সিলোসিবিন মাশরুম চা- সিলোসিবিন মাশরুম চা খুবই স্ট্রং রকমের সাইকেডেলিক্স এবং এই চা ভারতে পুররোপুরিভাবে নিষিদ্ধ।

৬) স্পার্কলিং চা – স্পার্কলিং চা মূলত শতাব্দী প্রাচীন এক বিশেষ ধরণের পানীয়ে সামান্য রদবদল। বোতলবন্দি চায়ের সঙ্গে কার্বনেশন যোগ করে এই চা তৈরি করা হয়। এই চা ঠান্ডাই পান করা হয়ে থাকে।

৭) পু-এর চা- এটি একধরণের বিশেষ সবুজ চা, যা একটি বিশেষ ছত্রাককে পচিয়ে প্রস্তুত করা হয়। সারা বিশ্বে এই চায়ের জনপ্রিয়তা রয়েছে। এই চা চিনে তৈরি হয়ে থাকে।

৮) কম্বুচা চা- এই চায়ের স্বাদ টক। এই চা ব্যাকটেরিয়ে এবং ইস্ট সহযোগে তৈরি করা হয়ে থাকে। সম্প্রতি বিশ্ববাজারে এই চায়ের জনপ্রিয়তা বেড়েছে।

৯) স্যালভিয়া চা- এই চা মূলত মেক্সিকোর বিভিন্ন আধ্যাত্মিক অনুষ্ঠানে পান করা হয়ে থাকে। তবে এই চাও বিশ্বের বহু জায়গায় নিষিদ্ধ।

১০) ফার্মেন্টেড ইয়াক মাখন চা- এই চা তৈরি করতে সাধারণ চায়ের সঙ্গে মেশানো হয় চমরী গাইয়ের দুধ থেকে তৈরি মাখন এবং সামান্য নুন। এই চা তৈরি করতে বেশ খানিকটা সময় লাগে। এই চা বিশেষত নেপাল, ভুটান, ভারত এবং তিব্বতের হিমালয়ের অঞ্চলের একটি জনপ্রিয় পানীয়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

কফি হাউসের আড্ডায় গানের চর্চা discussing music over coffee at coffee house

যদি বলো গান

ডোভার লেন মিউজিক কনফারেন্স-এ সারা রাত ক্লাসিক্যাল বাজনা বা গান শোনা ছিল শিক্ষিত ও রুচিমানের অভিজ্ঞান। বাড়িতে আনকোরা কেউ এলে দু-চার জন ওস্তাদজির নাম করে ফেলতে পারলে, অন্য পক্ষের চোখে অপার সম্ভ্রম। শিক্ষিত হওয়ার একটা লক্ষণ ছিল ক্লাসিক্যাল সংগীতের সঙ্গে একটা বন্ধুতা পাতানো।