সুপ্তি চক্রবর্তী
রন্ধনশিল্পী, সংগীতজ্ঞ ও চিত্রগ্রাহক সুপ্তি চক্রবর্তী এক অতি আকাঙ্ক্ষিত ও জনপ্রিয় ব‍্যক্তিত্ব। বিভিন্ন টিভি চ‍্যানেলে ও রেডিওতে নিয়মিত ভাবে গান ও রান্নার অনুষ্ঠান করে থাকেন।বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় বেরোয় নানা রেসিপি। ইতিমধ্যে আনন্দ পাবলিশার্স থেকে চারটি রান্নার বই প্রকাশিত হয়েছে। " ডায়াবেটিসের রান্না", "চটজলদি স্বাস্থ্যকর রান্না" ও " দধি ব‍্যঞ্জন" ও "পরোটা পিৎজা ব্রেড"। একটি রান্নার বই ইংরেজীতে ছাপা হচ্ছে। নানা অগ্রণী পত্র পত্রিকায় তার তোলা ছবি দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে ছাপা হয়ে আসছে। উস্তাদ রশিদ খানের ছাত্রী এই শিল্পীর আছে ৫ টি সিডি, একটি ভজনের ও ৪ টি রবীন্দ্রসঙ্গীতের। অন্যান্য শখ বনসাই ও clay modelling
উপকরণ:
 
বড় কাতলা মাছের মাথা – ৭৫০ গ্রাম
চন্দ্রমুখী আলু ( মাঝারি) -২ টো
গোবিন্দভোগ চাল – ১০০ গ্রাম
নুন -১ টেবিল চামচ
হলুদ- ১/২ চা চামচ
ধনে – জিরে গুঁড়ো – ১১/২ টেবিল চামচ
আদা বাটা – ১ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ কুচি – ১/২ কাপ
সর্ষের তেল – ৩ টেবিল চামচ
শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো – ১/২ চা চামচ
গরম মশলার গু্ঁড়ো-  ১/২ চা চামচ
ঘি – ১ টেবিল চামচ
তেজপাতা -২-৩ টে
গোটা জিরা- ১/২ চা চামচ
 
প্রণালী :
 
কাতলার মাথা খুব ভালো করে ধুয়ে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন। নন স্টিক প্যানে সর্ষের তেল সবটুকু দিয়ে গরম হলে তাতে মাছের মাথা দিয়ে লালচে করে ভেজে তুলে রাখুন। ওই তেলেই জিরে- তেজপাতা ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজকুচি ছাড়ুন। পেঁয়াজ সোনালি রঙের হলে আলুকুচি ছাড়ুন, নুন হলুদ দিন। মিনিট তিনেক ভাজা হলে ভাজা মাথা দিন। ধনে – জিরে গুঁড়ো, আদা বাটা, লঙ্কার গুঁড়ো দিয়ে  নাড়ুন। ৩-৪ মিনিট নেড়ে ধোয়া চাল দিন। আঁচ সিম-এ করে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর ২৫০ মিলি জল দিয়ে ফুটে উঠলে গরম মশলা ও ঘি দিন। আঁচ কমিয়ে সিমে রাখুন। ঢাকা দিয়ে ১০ মিনিট সেদ্ধ হয়ে দিন। মাঝে একবার নেড়ে দেবেন। এরপর সুন্দর প্লেটে সাজিয়ে পরিবেশন করুন আপনার হাতে তৈরি মুড়িঘন্ট।
Banglalive
আরও পড়ুন:  সোনার পাহাড় : এ কেমন ভয়ংকর ছবি আপনি বানালেন পরমব্রত!?

NO COMMENTS