দু’মাস শুধু শুয়ে থাকার চাকরির জন্য লোক খুঁজছে নাসা!

দু’মাস শুধু শুয়ে থাকার চাকরির জন্য লোক খুঁজছে নাসা!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

শুয়ে বসে থেকে টিকে থাকা আমাদের অনেকেরই স্বপ্ন | কিন্তু বেঁচে থাকাতে গেলে কিছু না কিছু কাজ তো করতেই হয় | কিন্তু বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সুবাদে নাসা খুঁজছে এমন ২৪ জন ভলান্টিয়ারকে যাঁদেরকে দু’মাস শুধুমাত্র শুয়ে থেকে অংশগ্রহণ করতে হবে বিশেষ বৈজ্ঞানিক পরীক্ষায় |

নাসা এবং এসএ সংস্থার পক্ষ থেকে পরিকল্পিত এক বিশেষ বৈজ্ঞানিক পরীক্ষার জন্য জার্মান এয়ারোস্পেস সেন্টার (ডিএলআর) ২৪ জন ভলান্টিয়ারের সন্ধান করছে যাঁরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন | এই পরীক্ষার উদ্দেশ্য হল মানব শরীরে আর্টিফিসিয়াল গ্র্যাভিটির কী প্রভাব পড়ছে তা খতিয়ে দেখা | দীর্ঘকাল মহাশূন্যে অবস্থান করা মহাকাশচারীদের শরীরের অবস্থা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পেতেই করা হচ্ছে এই পরীক্ষা | ভলান্টিয়ারদেরকে এই সময় শুধুমাত্র শুয়ে থাকতে হবে | এমনকি শুয়েই তাঁরা বাথরুমের কাজও সারবেন | শুয়ে থাকার সময় তাঁরা টিভি দেখতে বা কোনওকিছু পড়তে পারেন | ৬০ দিনের এই কাজটির জন্য যেসব ভলান্টিয়ারদের নেওয়া হবে তাঁদেরকে অবশ্যই জার্মান ভাষা জানতে হবে | এবং এই কাজের জন্য তাঁরা মাইনে পাবেন $১৯০০০ (ভারতীয় মুদ্রায় যার মান প্রায় ১৩ লক্ষ টাকারও বেশি) |

২৪ থেকে ৫৫ বছরের মধ্যেকার যেকোন্ও শারীরিক ভাবে সুস্থ ব্যক্তিই এই কাজের জন্য আবেদন করতে পারেন | ২৪ জনের দলটিকে দুটি দলে ভাগ করে একটি দলকে নির্দিষ্ট সেন্ট্রিফ্যুগাল ফোর্সে ঘোরানো হবে | আরেকটি দলকে ঘোরানো হবে না | ভারহীনতা‚ কসমিক রেডিয়েশন‚ আইসোলেশন এবং স্পেশাল রেস্ট্রিকশনসের প্রভাবে এই দুই দলের শরীরে কী কী প্রভাব পড়ছে তা খতিয়ে দেখাই এই পরীক্ষার মুল উদ্দেশ্য | এর থেকে পাওয়া ফলাফল অনুযায়ী মহাকাশচারীরা যাতে মহাকাশে বিচরণকালীন আরও বেশি সুরক্ষিত থাকতে পারেন তার জন্য প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি তৈরি করা হবে |

ডিএলআর ইন্সটিটিউট অফ এয়ারোস্পেস অ্যান্ড মেডিসিনের মুখ্য বৈজ্ঞানিক ড. এডউইন মাল্ডার জানান আর্টিফিসিয়াল গ্র্যাভিটিতে মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে পরীক্ষা করতেই এই বিশেষ এক্সপেরিমেন্ট করে দেখা হচ্ছে | পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ভলান্টিয়ারদেরকে নির্বাচন করার জন্য তাঁদের তিন মাসের একটি টাইম ব্লক ক্লিয়ার করে দু’সপ্তাহের একটি পুনর্বাসন নিতে হবে | পাঁচদিনের ওরিয়েন্টেশন পিরিওডের পরে ৬০ দিন ব্যাপী এই পরীক্ষা শুরু করা হবে |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

pandit ravishankar

বিশ্বজন মোহিছে

রবিশঙ্কর আজীবন ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের প্রতি থেকেছেন শ্রদ্ধাশীল। আর বারে বারে পাশ্চাত্যের উপযোগী করে তাকে পরিবেশন করেছেন। আবার জাপানি সঙ্গীতের সঙ্গে তাকে মিলিয়েও, দুই দেশের বাদ্যযন্ত্রের সম্মিলিত ব্যবহার করে নিরীক্ষা করেছেন। সারাক্ষণ, সব শুচিবায়ু ভেঙে, তিনি মেলানোর, মেশানোর, চেষ্টার, কৌতূহলের রাজ্যের বাসিন্দা হতে চেয়েছেন। এই প্রাণশক্তি আর প্রতিভার মিশ্রণেই, তিনি বিদেশের কাছে ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের মুখ। আর ভারতের কাছে, পাশ্চাত্যের জৌলুসযুক্ত তারকা।