রইল ভিন্ডালু-সহ অনেক কিছু‚ ভারতীয় সেনার দাপটে ৪৫০ বছর উপনিবেশ ছাড়ল ইউরোপিয়ানরা

ভারতবর্ষ যখন একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষিত হল তখনও পর্তুগিজদের গোয়া, দমন ও দিউ ছাড়ার নাম নেই । ততদিনে অবশ্য ফ্রান্স এবং ব্রিটিশরাও দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছে । যতবারই খাতায় কলমে সম্পূর্ণ ভাবে ভারত ছাড়ার প্রশ্ন ওঠে ততবারই এড়িয়ে যায় পর্তুগাল । বারবার সাবধান করা সত্ত্বেও কোনও কাজ না হওয়ায় অবশেষে সামরিক অভিযানে নামে ভারত । ১৯৬১ সালের ১৮ ডিসেম্বর ।

গোয়া,দমন ও দিউয়ে ঢুকে পড়ে ভারতীয় পদাতিক সেনারা । শুরু হয় ‘অপারেশন বিজয়’। আকাশপথে উড়ে আসতে থাকে গোলা-বারুদ । স্থলপথ-নৌপথ ও আকাশপথে চলতে থাকে যুদ্ধ । পাল্টা প্রতিরোধ গড়ার প্রাণপণ চেষ্টা করে পর্তুগীজ সেনাবাহিনী, কিন্তু তাতেও কোনও লাভ হয়নি । প্রায় ৪০ ঘণ্টা ব্যাপী যুদ্ধ চলার পর, ১৯ ডিসেম্বর নিঃশর্তে আত্মসমর্পণ করে পর্তুগিজ সেনারা । প্রায় সাড়ে চারশো বছর পরে পর্তুগিজদের কাছ থেকে গোয়া দখল করে নেয় ভারতীয় সৈন্যদল ।

ইংরেজদের দূরে রাখতে ও মুঘলদের বিরুদ্ধে শক্তি সঞ্চয় করতে মারাঠিরা পর্তুগিজদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করে ১৭৭৯ সালে একটি চুক্তি সাক্ষর করে । এই বন্ধুত্বচুক্তি অনুসারে, মারাঠা পেশোয়া ৭২টি গ্রাম নিয়ে গঠিত দাদরা ও নগর হাভেলি পরগনায় রাজস্ব সংগ্রহের অনুমতি দেয় পর্তুগিজদের । তারও আগে জওহর ও রামনগরের হিন্দু রাজাদের পরাজিত করে কোলি সর্দারেরা এই অঞ্চলের দখল নিয়েছিল । মারাঠারা তাদের থেকে এই অঞ্চলটি দখল করে তাদের রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত করে।

দাদরা ও নগর হাভেলির আয়তন ৪৯১ বর্গকিলোমিটার । ১৯৫৪ সালের ২ অক্টোবর এই অঞ্চলে পর্তুগিজ শাসনের অবসান ঘটে । গঠিত হয় স্বাধীন দাদরা ও নগর হাভেলি প্রশাসন । ১৯৬১ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে দাদরা ও নগর হাভেলি ভারতে যোগ দেয় ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পায় ।

ভারতবর্ষের একেবারে পশ্চিমপ্রান্তে অবস্থিত গোয়া একটি ছোট্ট রাজ্য হলেও, বানিজ্যিক দিক থেকে গোয়ার গুরুত্ব অনেক । মুম্বই শহরের পাশাপাশি পশ্চিমী দুনিয়ার সংষ্কৃতির ঢেউ এসে লাগে গোয়াতেও। অবস্থানগত কারণেই মূলত মৌর্য বংশ, সাতবাহন রাজবংশের শাসনে বার বার ফিরে এসেছে গোয়ার কথা ।  গোয়া উদ্ধার করা ভারতীয়দের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল । গোয়া অবশ্য স্বাধীন রাজ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে ১৯৮৭ সালের ৩০ মে । দমন দিউয়ের মতো গোয়াও প্রথমে ছিল কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল | পরে ১৯৮৭-র ৩০ মে এটি পৃথক অঙ্গরাজ্য হিসেবে পরিগণিত হয় |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here