লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট : পরেশ রাওয়ল ও স্বরূপ সম্পতের লাভ স্টোরি

কয়েকজন মাত্র ভাগ্যবানের কপালেই ‘লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’ হয় | প্রথম দেখাতেই যার প্রেমে পড়লেন সেই যদি আপনার জীবনসঙ্গী হয় এর থেকে ভাল আর কিছুই হতে পারে না | আজকে এমনই দু’জনের গল্প বলব যাঁদের ক্ষেত্রে এমনটা ঘটেছে | আমরা বলছি বহুমুখী প্রতিভাযুক্ত অভিনেতা পরেশ রাওয়ল ও স্বরূপ সম্পতের কথা | আজকে রইল ওঁদের লাভ স্টোরি |

পরেশ রাওয়াল ও প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া স্বরূপ সম্পত বরাবর থিয়েটারের সঙ্গে যুক্ত আছেন | থিয়েটার ওঁদের কাছাকাছি আনতে সাহায্য করেছে | পরেশ প্রথমবার স্বরূপকে দেখেন যখন উনি কলেজে পড়তেন | প্রথম দেখাতেই উনি ঠিক করে নেন উনি স্বরূপকেই বিয়ে করবেন | এই কথা উনি গিয়ে স্বরূপকেও বলেন | কিন্তু স্বরূপ সেই সময় পাত্তা দেনেনি পরেশকে |

স্বরূপ এই ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে বলেন ‘আমি একটা গোলাপি শাড়ি পড়ে লিফলেট বিলি করছিলাম | পরেশ এবং ওর এক বন্ধু আমার কাছে এসে জানায় ও আমাকে বিয়ে করতে চায় |  কিন্তু এরপর এক বছর পরেশ আমার সঙ্গে আর কোনো কথা বলেনি |’

পরেশকে প্রথমটায় পাত্তা না দিলেও একদিন পরেশ অভিনীত একটা নাটক দেখে মুগ্ধ হয়ে যান স্বরূপ | স্বরূপের কথায়, ‘ইন্টারকলেজিয়েট নাটকে অংশগ্রহণ করেছিল পরেশ | আমি অন্য কলেজে পড়তাম | স্টেজে পরেশের অভিনয় দেখে আমি অবাক হয়ে যাই | নাটকটায় ভায়োলেন্স আর নোংরা কথায় ভর্তি ছিল | নাটকটা শেষ হয়ে যাওয়ার পর দর্শক প্রায় দশ মিনিট কিছু না বলে চুপ করে বসে ছিল | ‘

স্বরূপ ব্যাকস্টেজে পরেশকে অভিনন্দন জানাতে যান | সেই শুরু | এরপর আর কোনদিন পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি এই জুটিকে | স্বরূপের বাবার ইচ্ছাতে স্বরূপ মিস ইন্ডিয়া বিউটি কনটেস্টে অংশগ্রহণ করেন | এই সময় পরেশ ওঁর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন | স্বরূপের কথায়, ‘আমার একেবারেই ইচ্ছা ছিল না | আমি আমার ভাই আর পরেশকে এই ব্যাপারে বললাম | ওরাই আমার মত পরিবর্তন করে | পরেশ না থাকলে হয়তো আমি অংশগ্রহণ করতাম না |’

শুধুমাত্র অংশগ্রহণ করাই নয়‚ স্বরূপ ‘মিস ইন্ডিয়া’ হন | কিন্তু এরপর পরেশের ব্যবহার পাল্টে যায় | ওঁর মনে হয়েছিল স্বরূপ ‘মিস ইন্ডিয়া’ হওয়ায় ওঁকে আর সময় দিতে পারবেন না | কিন্তু পরে সব ঠিক হয়ে যায় এবং পরেশ ও স্বরূপ বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন |

পরেশ ও স্বরূপের ১৯৭০ সালে প্রথম সাক্ষাৎ হয়েছিল | এরপর দীর্ঘদিন প্রেম করেন ওঁরা | দু’জনেই প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন | ১৯৮৭ সালে বিয়ে হয় ওঁদের | বিয়ের কথা বলতে গিয়ে স্বরূপ বলেন ‘আমি আমার বিয়ে খুব এনজয় করেছি | মুম্বইয়ের লক্ষ্মী নারয়ণ মন্দিরের কম্পাউন্ডে আমাদের বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল | ন’জন পন্ডিত মিলে আমাদের বিয়ে দিয়েছিল | আমার বিয়ের খাবারও দারুণ লেগেছিল | আমার পরিবারে ১২৯ বছর পর আবার মেয়ের বিয়ে হচ্ছিল তাই সবাই বেশ ইমোশনল হয়ে গিয়েছিল |’

পরেশ ও স্বরূপের দুই ছেলে আছে, অনিরুদ্ধ ও আদিত্য | বাবা মায়ের মতই সৃজনশীল ওঁরা | অনিরুদ্ধ ‘সুলতান’ ছবির একজন সহ পরিচালক ছিলেন‚ এছাড়াও উনি নাসীরুদ্দিন শাহকেও অ্যাসিস্ট করেন | অন্যদিকে আদিত্য নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটিতে স্ক্রিনপ্লে নিয়ে পড়াশোনা করছেন |

স্বরূপ ও পরেশ চল্লিশ বছরের ওপর একসঙ্গে আছেন | জীবনের নানা ওঠাপড়ার সাক্ষী থেকেছেন ওঁরা | কিন্তু কোনদিনই একে অপরকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ভাবেননি | যে কোনো আদর্শ দম্পতির মতই সব ব্যাপারেই একে অপরকে সাপোর্ট করেন ওঁরা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here