স্মার্টফোনের কিবোর্ডে এ বার ঋতুস্রাবের রক্তবিন্দু

ঋতুস্রাব যে শরীরের খুব স্বাভাবিক একটি প্রক্রিয়া তা নিয়ে ছুঁতমার্গ আজও পুরোপুরি অবলুপ্ত নয় | এই অবস্থায় ঋতুস্রাব নিয়ে সাধারণ মানুষ যাতে আরও সহজে খোলামেলা ভাবে কথা বলতে উদ্বুদ্ধ হন সেই উদ্যোগে নিয়ে আসা হচ্ছে ঋতুস্রাবের চিহ্নবহনকারী নতুন ইমোজি | এখন যাবতীয় চ্যাটে ইমোজির ব্যবহার খুবই প্রচলিত | ইমোজিগুলি ছোট ছোট কিছু ছবি যা কোনওকিছুকে চিহ্নিত করতে ব্যবহৃত হয় | ইউকের এক মানবাধিকার সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে ২০১৯ সালের মার্চ মাসের মধ্যেই স্মার্টফোনের কিবোর্ডে এসে যাবে এই রক্তবিন্দুর আকারের ইমোজিটি |

ইউনিকোড কনসোরটিয়াম গত বৃহস্পতিবার অন্যান্য আরও ২২৯ টি ইমোজির সঙ্গে সঙ্গে এই রক্তিবিন্দুর ইমোজিটিকেও স্মার্টফোনের কিবোর্ডে অন্তর্ভুক্ত করার অনুমতি দেয় | মনে করা হচ্ছে এই ইমোজিটি মানুষের মধ্যে ঋতুস্রাব নিয়ে থাকা ভ্রান্ত ধারণাগুলিকে খানিকটা হলেও তাড়াতে সাহায্য করবে | কিন্তু অনেকেই মনে করছেন রক্তবিন্দুর এই ইমোজিটি রক্তদানকেও চিহ্নিত করতে পারে | সেক্ষেত্রে এই ইমোজির মানে বোঝার ক্ষেত্রে ভুল হতে পারে |

প্ল্যান ইন্টারন্যশনালের প্রথম ইমোজিটি ছিল পিরিয়ড প্যান্টের চিহ্নের যা উইনিকোড কনসোরটিয়ামের পক্ষ থেকে অনুমোদন পায়নি | এই দ্বিতীয় ইমোজিটি অনুমোদন পাওয়ায় খুশি হয়ে নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বহু সাধারণ মানুষ | প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের নারী অধিকার বিভাগের মুখ্য আধিকারিক লুসি রাসেল জানান স্মার্টফোনে এই ইমোজিটি অন্তর্ভুক্ত হলে তা হবে একটি বড় পদক্ষেপ | মহিলারা প্রত্যেক মাসে যে স্বাভাবিক ঋতুস্রাবের প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যান তার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি মিলবে এই ইমোজিটির মাধ্যমে |

একদিনেই প্রচলিত সংস্কার বা ছুঁতমার্গের অবসান ঘটানো সম্ভব না হলেও এই ইমোজিটি ব্যবহার করে বহু মানুষ ঋতুস্রাব নিয়ে খোলাখুলি কথা বলার সুযোগ পাবেন | এবং আলোচনার মাধ্যমেই যুগ যুগ ধরে চলে আসা মনোভাবের সামান্য হলেও পরিবর্তন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.