গল্পের গরু নয়, এই দেশে বাস্তবে গাছে চড়ে ছাগল!

616

ছাগল আবার কখনও গাছে চড়ে নাকি! হ্যাঁ, তবে শুধু গাছে চড়াই নয়, চার পায়ে দিব্যি গাছের মগডালে উঠে পড়ে। এই দৃশ্য অনেকখানি গল্পের মতো শোনালেও আফ্রিকার মরোক্কোতে এ চেনা দৃশ্য।

মূলত আরগান নামক এক বিশেষ গাছেই চড়ে এই ছাগলের দল। সারা বিশ্বের মানুষের কাছে এটি অত্যন্ত পরিচিত ট্যুরিস্ট স্পট। প্রতি বছর মরোক্কোর মার্‌রাকেচ এবং এসাউইরার মধ্যবর্তী দীর্ঘ রাস্তা জুড়ে দু’পাশে সারি সারি আরগান গাছে ছাগল চড়ার দৃশ্য তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করেন পর্যটকরা।

দক্ষিণ-পশ্চিম মরক্কোয় আরগান নামের এই বিশেষ রকমের গাছ দেখতে পাওয়া যায় । আর এই আরগাছের ফলই এখানকার ছাগলদের কাছে খুবই প্রিয় খাবার । প্রসঙ্গত, এই আরগান ফল থেকে তৈরি হয় আরগান তেল, যা এখানকার উপার্জনের অন্যতম উৎস। আটত্রিশ বছরের আরোন গেকোসকি নামে একজন চিত্রগ্রাহক সম্প্রতি মরোক্কোতে গিয়ে ছাগলের গাছে চড়ার কিছু ছবি তোলেন। কেন এবং কীভাবে এখানে ছাগলরা আরগন ফল খাওয়ার জন্য গাছে চড়ে, সেই বিষয়টি জানার কৌতূহল হয় তাঁর।

তাঁর অনুসন্ধানের মাধ্যমে বেড়িয়ে আসে এক অবাক করা তথ্য, জানা যায়, এখানকার স্থানীয় কৃষকরাই, তাঁদের গৃহপালিত ছাগলগুলিকে এই অঞ্চলে নিয়ে আসে। এবং একপ্রকার জোর করেই তাদের গাছে তুলে দেয়। গাছে ছাগল চড়ে আছে-এমন অদ্ভুত দৃশ্য দেখার জন্য স্বভাবতই ভিড় হয়ে যায় পর্যটকদের।

আরোন গেকোসকি জানিয়ছেন, এখানে আগত সমস্ত পর্যটক, যাঁরা গাছে ওপর দাঁড়িয়ে থাকা ছাগলের ছবি তুলতে আগ্রহী, তাঁদের থেকে টাকা নেন এইসব কৃষকরা। তবে তিনি আরও জানিয়েছেন যে, শুধু নিজের ছাগলই নয়, অন্যান্য এলাকা থেকেও ছাগল নিয়ে এসে তাদেরকে এই এইভাবে ব্যবসা করেন এখানকার স্থানীয় কৃষকরা। পর্যটকরাও এই দৃশ্য দেখতে ভিড় জমায়, এবং টাকা দিয়ে এই অবাক করা দৃশ্য ফ্রেমবন্দি করেন।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.