ঘিরে ফেলেছে ব্রিটিশ পুলিশ…ক্লান্ত অবসন্ন রক্তাক্ত হাতে মুখে দিলেন পটাশিয়াম সায়ানাইড…দেশের প্রথম মহিলা শহিদ

যে বছর কলকাতা থেকে রাজধানী সরিয়ে দিল্লিতে নিয়ে গেল ব্রিটিশরা‚ সে বছরই অবিভক্ত বাংলার চট্টগ্রামে জন্ম হয়েছিল তাঁর | যেটুকু প্রীতি‚ ছিল তাঁর নামেই | কণ্টকময় জীবন নিজেই বেছে নিয়েছিলেন এই মেধাবী অগ্নিস্ফুলিঙ্গ | তিনি দেশের মহিলা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের মধ্যে প্রথম শহিদ‚ প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার |

# জন্ম ৫ মে‚ ১৯১১ সালে | অবিভক্ত বাংলাদেশের ঢলঘাট গ্রামে | বাবা জগবন্ধু ছিলেন করণিক চট্টগ্রাম পুরসভার | মা প্রতিভাময়ী দেবী ব্যস্ত ঘরকন্নায় | মধ্যবিত্ত সংসারে বড় ছেলে মধুসূদনের পরে পরপর চার বোন | নাম রাখা হল প্রীতিলতা‚ কনকলতা‚ শান্তিলতা এবং আশালতা | তারপর আরও এক ছেলে‚ নামকরণ হল সন্তোষ |

# পারিবারিক পদবী ছিল দাশগুপ্ত | কিন্তু কোনও এক পুর্বসূরী নবাবি বা সুলতানি আমলে উপাধি পেয়েছিলেন ওয়াদ্দেদার | সেই থেকে ওটাই হয়ে ওঠে মুখ্য পারিবারিক পরিচয় |  

# ছোট থেকেই অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন প্রীতিলতা | চার কন্যার পড়াশোনায় কোনও খামতি রাখেননি জগবন্ধু | চট্টগ্রামের সরকারি স্কুল থেকে পাশ করে প্রীতিলতা ভর্তি হলেন ঢাকার ইডেন কলেজে | ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষায় ঢাকা বোর্ডের মধ্যে প্রথম হলেন |

# তাঁর সহপাঠিনীদের মধ্যে বেশিরভাগ তখন ব্যস্ত ঘরসংসারে | ওসবের ছায়াও না মাড়িয়ে‚ বড় মেয়ের বিয়ে দেওয়ার জন্য বাবা মায়ের ইচ্ছেয় জল ঢেলে তিনি চলে এলেন কলকাতা | ভর্তি হলেন বেথুন কলেজে | দর্শনশাস্ত্র নিয়ে পড়বেন বলে |

# ডিস্টিংশন নিয়ে উত্তীর্ণ হলেন | কিন্তু তাঁর ডিগ্রি আটকে দিল ব্রিটিশ কলকাতার ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি | কারণ তখন প্রীতির নাম উঠে গেছে পুলিশের কালো তালিকায় | অনুশীলন সমিতির সদস্য প্রীতিও স্থির করে ফেলেছেন ভবিষ্যতের পথ | শান্ত সুখের গৃহকোণ নয় | তাঁর জীবন হবে রানি লক্ষ্মীবাঈয়ের মতো | ঠিক যেমন এই বীরাঙ্গনার গল্প বলতেন স্কুলের ঊষা দিদিমণি | 

# ভাবলে আশ্চর্য লাগে‚ ২০১২ সালে প্রীতিলতা ও আর এক বিপ্লবী বীণা দাসের ডিগ্রি-সহ শংসাপত্র মুক্ত করেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় | মরণোত্তর ডিগ্রি দুই বীরাঙ্গনাকে ! হাস্যকর |

# চট্টগ্রামে ফিরে স্থানীয় স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা হয়ে যোগ দিলেন প্রীতিলতা | আরও একটি জায়গায় যুক্ত হলেন | মাস্টার দা সূর্য সেনের বিপ্লবী দলে | 

# মাস্টার দা ও তাঁর সহযোগীরা স্থির করলেন হত্যা করা হবে চট্টগ্রামের ইন্সপেক্টর জেনারেল ক্রেগকে | দায়িত্ব দেওয়া হল বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাস ও কালিপদ চক্রবর্তীকে | কিন্তু ভুল করে তাঁরা হত্যা করলেন আর এক পুলিশ অফিসার তারিণী মুখার্জিকে |

# গ্রেফতার করা হল দুই বিপ্লবীকে | বিচারে রামকৃষ্ণ বিশ্বাসের ফাঁসি নির্ধারিত হল | তারিণীর জন্য দ্বীপান্তর | 

# এই দুই বিপ্লবী তখন কলকাতার আলিপুর জেলে বন্দি | এদিকে চট্টগ্রাম থেকে কলকাতা আসার অর্থ জোগাড় হচ্ছে না পরিবার পরিজনদের | প্রীতিলতা তখন কলকাতায় | মাস্টার দার নির্দেশে তিনি আলিপুর জেলে গিয়ে দেখা করলেন দুই বিপ্লবীর সঙ্গে |

# তাঁর জীবন ও কাজ নিয়ে গবেষণা করছেন এমন অনেকেই মনে করেন রামকৃষ্ণ বিশ্বাসের প্রতি শ্রদ্ধা মিশ্রিত মুগ্ধতায় অবনত ছিলেন প্রীতিলতা | মৃত্যুর পর তাঁর কাছ থেকে পাওয়া গিয়েছিল বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাসের একটি ছবি |

# চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুণ্ঠনের পরে কেটে গেছে দু বছর | ছত্রভঙ্গ সংগঠনকে আবার জাগানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন আত্মগোপন করে থাকা মাস্টার দা | নতুন অভিযান ঠিক হল | এ বার লক্ষ্য চট্টগ্রামের পাহাড়তলি ইউরোপিয়ান ক্লাব | যার প্রবেশপথে লেখা থাকত ” Dogs and Indians not allowed” | 

# স্থির হল অভিযানের নেতৃত্ব দেবেন মহিলা বিপ্লবী | মাত্র সাত দিন আগেই ধরা পড়েছেন কল্পনা দত্ত | মাস্টার দার নির্দেশে প্রীতিলতা পেলেন অগ্রণীর দায়িত্ব | সাজলেন পঞ্জাবি পুরুষ | তাঁর সহযোগী কালিশঙ্কর দে‚ বীরেশ্বর রায়্‚ প্রফুল্ল দাস‚ শান্তি চক্রবর্তী পরলেন ধুতি-জামা | মহেন্দ্র চৌধুরী‚ সুশীল দে‚ পান্না সেনের পরনে লুঙ্গি ফতুয়া | প্রত্যেকের সঙ্গে ছিল পটাশিয়াম সায়ানাইড |

# ২৩ সেপ্টেম্বর ১৯৩২ | রাত পৌনে এগারোটা নাগাদ তিন দলে ভাগ হয়ে ক্লাব ঘিরে ফেললেন বিপ্লবীরা | ভিতরে তখন জনা চল্লিশ ইউরোপিয়ান | সামান্য কিছু পুলিশ অফিসার | সংখ্যায় সামান্য হলেও তাঁদের পাল্টা আক্রমণের মুখে পারলেন না বিপ্লবীরা | দু পক্ষের লড়াইয়ে ক্লাবের ভিতরে যারা ছিল তাদের মধ্যে এক ইউরোপিয়ান মহিলা প্রাণ হারান | আহত হন আরও ক্লাবের চার পুরুষ ও সাত মহিলা |

# বুলেটবিদ্ধ হন প্রীতিলতা | ক্লান্ত অবসন্ন রক্তাক্ত অবস্থায় বুঝতে পারলেন তাঁকে ঘিরে ফেলেছে ব্রিটিশ বাহিনী | তাঁর মতো আগুনের পাখি কখনও ব্রিটিশদের হাতে রাজবন্দি হতে পারেন না | মুখে ঢেলে দিলেন পটাশিয়াম সায়ানাইডের ক্যাপসুল | ভারতের প্রথম মহিলা শহিদ‚ ২১ বছর বয়সী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার |

# পরের দিন সকালে পুলিশ খুঁজে পেয়েছিল পুরুষবেশী নিথর প্রীতিলতাকে | সঙ্গে ছিল লিফলেট‚ পাহাড়তলি ক্লাব অভিযানের নক্সা‚ বুলেট এবং বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাসের একটি ছবি | ময়নাতদন্ত বলেছিল‚ বুলেটের আঘাত নয়‚ বিপ্লবী প্রীতিলতার মৃত্যুর কারণ পটাশিয়াম সায়ানাইড |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here