এক মুঠো মুড়িতে রয়েছে অফুরন্ত পুষ্টিগুণ

এক মুঠো মুড়িতে রয়েছে অফুরন্ত পুষ্টিগুণ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

প্রত্যেকদিন সন্ধ্যে হলেই মুড়ির বাটি হাতে টেলিভিশনের সামনে বসে পড়া মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। মুড়ির সেই অর্থে কোনও স্বাদ না থাকলেও তাকে মুখরোচক গড়ে তোলার উপায় আমাদের সকলেরই জানা। কিন্তু জানেন কি কেবলমাত্র এক বাটি মুড়িতে রয়েছে অফুরন্ত গুণ?

* অ্যাসিডিটির সমস্যায় নিমেষে কাজ করে মুড়ি। এছাড়াও শরীরের ওজন কমাতেও বিশেষভাবে সাহায্য করে।

* মুড়িতে সোডিয়ামের পরিমাণ কম। তাই এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। সেইসঙ্গে পেট ভরা থাকে দীর্ঘক্ষণ।

* পেটের সমস্যায় শুকনো মুড়ি কিংবা জলে ভেজানো মুড়ি খেলে তৎক্ষনাত উপকার পাওয়া যায়। মুড়িতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি ও মিনারেল থাকায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। পাশাপাশি হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

* মুড়িতে রয়েছে উচ্চ পরিমাণে শর্করা। যা আমাদের দেহে শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। দৈনন্দিন কাজে সক্রিয় থাকতে জ্বালানি হিসেবে কাজ করে মুড়ি।

* মুড়িতে রয়েছে একধরণের বিশেষ ফাইবার, যা, আমাদের হজমে সাহায্য করে। এছাড়াও মুড়ি আমাদের শরীরের মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে

*মুড়িতে রয়েছে ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ফাইবার। তাই মুড়ি খেলে হাড় ও দাঁত শক্ত হয়। তাই ছোটদের বিকেলের জলখাবারে মুড়ি খাওয়ানোর অভ্যেস করুন।

* মুড়িতে রয়েছে নিউরোট্রান্সমিটার পুষ্টিগুণ। ফলে মুড়ি খেলে মস্তিষ্কের স্নায়ু উদ্দীপনাসহ বিভিন্ন উপকারিতা পাওয়া যায়। এটি মস্তিষ্কের উন্নতি এবং কগনেটিভ ফাংশনের উন্নিতে সাহায্য করে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

One Response

  1. Murite naki urea diye vaga hoy.eta ki thik.jodi hoy tahole eta sarir er ki ki khoti kore?
    Ki vabe chinbo j murjte urea nei?
    Puro bisoy alochona chai.

Leave a Reply

pandit ravishankar

বিশ্বজন মোহিছে

রবিশঙ্কর আজীবন ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের প্রতি থেকেছেন শ্রদ্ধাশীল। আর বারে বারে পাশ্চাত্যের উপযোগী করে তাকে পরিবেশন করেছেন। আবার জাপানি সঙ্গীতের সঙ্গে তাকে মিলিয়েও, দুই দেশের বাদ্যযন্ত্রের সম্মিলিত ব্যবহার করে নিরীক্ষা করেছেন। সারাক্ষণ, সব শুচিবায়ু ভেঙে, তিনি মেলানোর, মেশানোর, চেষ্টার, কৌতূহলের রাজ্যের বাসিন্দা হতে চেয়েছেন। এই প্রাণশক্তি আর প্রতিভার মিশ্রণেই, তিনি বিদেশের কাছে ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের মুখ। আর ভারতের কাছে, পাশ্চাত্যের জৌলুসযুক্ত তারকা।