ক্ষতিপূরণের টাকা পরিবারেই রাখার লক্ষ্যে শহিদের স্ত্রীকে চাপ দেওরকে বিয়ের জন্য

2145

পুলওয়ামায় সিআরপিএফ-এর বাসে আত্মঘাতী হামলায় শহিদ জওয়ান কর্নাটকের এইচ. গুরুর পরিবারে ক্ষতিপূরণের টাকা নিয়ে শুরু হয়েছে সমস্যা। পুলওয়ামা জঙ্গিহানায় শহিদ হওয়ার পর সরকারি এবং বেসরকারি তরফে বেশকিছু অর্থসাহায্য পায় তাঁর পরিবার। আর এই অর্থ নিয়েই জটিলতা শুরু হয়েছে পরিবারের মধ্যে।

সূত্রের খবর শহিদ জওয়ানের স্ত্রী কলাবতীকে তাঁর শ্বশুরবাড়ির তরফ থেকে তাঁদের ছোট ছেলেকে বিয়ে করার জন্য চাপ দেওয়া হয়। তাঁদের আশঙ্কা বৌমা যদি এখন অন্য কাউকে বিয়ে করে চলে যায় তাহলে এই ক্ষতিপূরণের টাকাও হাতছাড়া হয়ে যাবে। কর্নাটকের মান্ড্য অঞ্চলের এই ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে। সদ্য বিধবা কলাবতী বয়স মাত্র পঁচিশ। তাই তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা সমবয়স্ক দেওরকে তাঁকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিচ্ছে বলে অভিযোগ।

আর এই অভিযোগেই কলাবতী মান্ড্য থানায় অভিযোগ জানিয়েছে। তবে লিখিত কোনও অভিযোগ দায়ের না হওয়ায় পুলিশ তাঁকে পরামর্শ দিয়েছেন, পরিবারের সমস্যা নিজেদের মধ্যে কথা বলেই মিটিয়ে নেওয়া দরকার। পুলিশের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, এটি একটি অত্যন্ত সংবেদনশীল বিষয়, যার সমাধান কেবল আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই সম্ভব। যেহেতু এখনও পর্যন্ত কোনও আইনি প্রক্রিয়ায় যাননি কলাবতী সেহেতু পুলিশও কোনও আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.