এভাবে মারধর করেই বশে রাখতে হয় স্ত্রীকে‚ বর্বরোচিত ভিডিও বানিয়ে রোষানলে এক ব্যক্তি

949

নারীকে বশে রাখার জন্য তাঁর গায়ে কীভাবে হাত তোলা উচিত, এককথায় নিজের স্ত্রীর ওপর কীভাবে একজন পুরুষ নিজের কর্তৃত্ব ফলাতে পারে, ভিডিও করে তারই প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এক ব্যক্তি। রাতারাতি সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই রোষের মুখে পড়েছেন ওই ব্যক্তি।

জানা গিয়েছে, কাতারে বসবাসকারী আবদ- আল- আজিজ আল-খজরাজ নামে ওই ব্যক্তি পেশায় একজন সমাজতত্ত্ববিদ। নিজের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য তিনি একটি ভিডিও তৈরি করেছেন। ভিডিওটিতে তাঁর সঙ্গে রয়েছে অল্পবয়সী একটি ছেলে। প্রায় আড়াই মিনিটের ওই ভিডিওটিতে তিনি দেখিয়েছেন স্ত্রীকে নিজের অধীনে রাখতে কীভাবে তাঁকে মারধর করতে হবে, অন্যায় করলে তাঁকে শাস্তি দিতে হবে ইত্যাদি। ভিডিওটিতে তিনি এসবকিছুই ব্যাখ্যা করেছেন একটি টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে। ভিডিওতে তাঁর নির্দেশ মতো অভিনয় করে চলেছে সেই অল্পবয়সী ছেলেটি। ভিডিওটিতে ছেলেটি তাঁর স্ত্রীর ভুমিকায় অভিনয় করছে। এরপর কীভাবে স্ত্রীকে ধমকাতে হবে এবং কীভাবে মারধর শুরু করতে হবে তারই নমুনা একে একে প্রদর্শন করছেন তিনি। তাঁর দাবি, অনেকেই নিজের স্ত্রীর মুখে চড় বা ঘুষি মারেন, যা কখনওই কাম্য নয়। তবে এ সবই তিনি ব্যাখ্যা করছেন
নাকি ইসলামিক নিয়মানুসারে।

ওই ব্যক্তির কথায়, প্রফেট মহম্মদ কখনওই স্ত্রীর মুখে, মাথায় বা নাকে মারার অনুমতি দেননি। মারধর করা উচিত, তবে তা অবশ্যই একটা নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে। মারধর করা হলেও তাতে যেন স্ত্রীর কোনও ক্ষতি না হয়, সেই বিষয়টিই তিনি তুলে ধরেছেন তাঁর ভিডিওর মাধ্যমে। ইউটিউব-এ এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন নেটিজেনরা। পুরুষত্ব জাহির করতে স্ত্রীর গায়ে হাত তোলার বিষয়টি নিয়েই আপত্তি তুলেছেন তাঁরা।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.