অনাদর অবহেলার ছন্দোপতন ঘটিয়ে যত্নের ছাপ পড়বে শচীন কর্তা-পঞ্চমের বাড়িতে ?

522

৩৬/১ এস সাউথ এন্ড পার্ক | এই ঠিকানার বাড়িতে জীবনের ১৫ টি বসন্ত কাটিয়েছিলেন রাহুল দেব বর্মন | অবশেষে সেই বসতবাড়ি এ বার মেরামতির মুখ দেখতে চলেছে | বারো বছর আগেই বাড়িটি ঘোষিত হয়েছে হেরিটেজ ভবন হিসেবে | কিন্তু তাতে হাল ফেরেনি | পড়ে আছে অবহেলিত অবস্থায় | 

বুধবারই পঞ্চমের ৭৯ তম জন্মবার্ষিকী | তার আগে তাঁর কাকা আবেদনপত্র পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছেন রাজ্যের হেরিটেজ কমিশনের কাছে | কমিশনের পক্ষ থেকে বর্ষীয়ান শিল্পী শুভাপ্রসন্ন জানিয়েছেন আবেদন পেলে তাঁরা প্রচেষ্টা করবেন | 

হিন্দুস্তান পার্কে একটি ভাড়াবাড়িতে থাকতেন শচীন দেব বর্মন এবং মীরা বর্মন | সেখানেই জন্ম রাহুলের | পরে তাঁরা তিনজনে উঠে আসেন এই বাসায় | এখান থেকেই বালিগঞ্জ গভর্নমেন্ট স্কুলে যেতেন রাহুলদেব | পরে তীর্থপতি ইনস্টিটিউশনে | 

উস্তাদ আলাউদ্দিন খান‚ গুরু দত্ত‚ সলিল চৌধুরী‚ হেমন্ত মুখোপাধ্যায়-সহ আরও কত দিকপালের পায়ের ধুলো পড়েছে এই বাড়িতে | অথচ আজ সবই চাপা পড়েছে বিস্মৃতির ধুলোয় | এমনকী বাড়ির সামনে মার্বেল ফলকেও লেখা আছে ভুল তথ্য | সেখানে বলা হয়েছে ১৯৪৪ সালে কলকাতা ছেড়ে বম্বে চলে গিয়েছিলেন পঞ্চম | কিন্তু ঠিক তথ্য হল‚ তিনি বম্বে পাড়ি দিয়েছিলেন ১৯৫২ সালে | 

ইতিহাসের স্মারক এই বাড়িটি যেন অযত্নে নষ্ট না হয়ে যায় | অনাদর অবহেলার ছন্দোপতন ঘটিয়ে ফিরে আসুক পরিচর্যার ছাপ | তৈরি হোক সংগ্রহশালা | আর্জি পঞ্চমের পরিবারের | সেইসঙ্গে তাঁর অগণিত ভক্তের |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.