সবাই ভাবত রাম কপূরের বিয়ে হয়েছে সাক্ষীর সঙ্গে‚ জানতেন স্ত্রী গৌতমী

সবাই ভাবত রাম কপূরের বিয়ে হয়েছে সাক্ষীর সঙ্গে‚ জানতেন স্ত্রী গৌতমী

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

ছোটপর্দার অভিনেতা রাম কপূর ‘বড়ে আচ্ছে লগতে হ্যায়’ এবং ‘কসম সে’ এই দুই ধারাবাহিকে অভিনয় করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে আসেন | বিশেষত ওঁর সহ অভিনেত্রীদের সঙ্গে ওঁর অন স্ক্রিন কেমিস্ট্রি মন জয় করে নিয়েছিল সবার | রিয়েল লাইফে উনি কিন্তু গৌতমীর সঙ্গে বিবাহিত |

নয়-এর দশকে গৌতমী ও রামের পরিচয় হয়েছিল ‘ঘর এক মন্দির’ ধারাবাহিকের সেটে | দুজনে দুই মেরুর  | রাম পার্টি করতে‚ খেতে খুব ভালোবাসতেন | অন্যদিকে গৌতমী বই পড়তে‚ একান্তে গান শুনতে পছন্দ করেন | কিন্তু তাও দু’জনের মধ্যে প্রেম হয় এবং ২০০৩ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়েন ওঁরা |

সম্প্রতি গৌতমী একটা সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন ওঁদের বিবাহিত জীবনে এমন সময়ও গেছে যখন সবাই মনে করত অভিনেত্রী সাক্ষী তনওয়ার রাম কপূরের স্ত্রী | গৌতমীর কথায় ‘ফ্যানেরা ভাবত রামের স্ত্রী সাক্ষী তনওয়ার | আসলে তখন ওরা ‘বড়ে আচ্ছে লগতে হ্যায়’-তে একসঙ্গে অভিনয় করত | আমার বেশ মজা লাগত | বিদেশে কোথাও রামের সঙ্গে বেড়াতে গেলে সবাই আমার দিকে অদ্ভুতভাবে তাকাত | তারা নিশ্চয়ই ভাবত ‘সাক্ষীর জায়গায় রামের সঙ্গে এই মহিলা কে?’ যাই হোক, এখন সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই ভুল ভেঙেছে | এখন সবাই জানে আমি রামের বিবাহিত স্ত্রী |’

সম্প্রতি ৩০ কেজি ওজন কমিয়ে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন রাম কপূর | এই নিয়ে কথা বলতে গিয়ে গৌতমী বলেন ‘ফিটনেস এমন একটা জিনিস যা কেউ জোর করে করাতে পারে না | রাম খেতে খুব ভালবাসে | কিন্তু ও ডায়েট কন্ট্রোল করেছে | ওজন কমিয়েছে এটা খুবই বড় ব্যাপার | রাম কোনো সাপ্লিমেন্টে খেয়ে বা অপারেশন করে রোগা হয়নি | ‘

কয়েক সপ্তাহ আগে অন্য একটা সাক্ষাৎকারে রাম কপূর এই বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে বলেন ‘আমার ১৩০ কেজি ওজন ছিল | আমি আরও ২৫-৩০ কেজি ওজন কমাতে চাই |’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

Handpulled_Rikshaw_of_Kolkata

আমি যে রিসকাওয়ালা

ব্যস্তসমস্ত রাস্তার মধ্যে দিয়ে কাটিয়ে কাটিয়ে হেলেদুলে যেতে আমার ভালই লাগে। ছাপড়া আর মুঙ্গের জেলার বহু ভূমিহীন কৃষকের রিকশায় আমার ছোটবেলা কেটেছে। যে ছোট বেলায় আনন্দ মিশে আছে, যে ছোট-বড় বেলায় ওদের কষ্ট মিশে আছে, যে বড় বেলায় ওদের অনুপস্থিতির যন্ত্রণা মিশে আছে। থাকবেও চির দিন।