সাগর আই লাভ ইউ (পর্ব ৩১)

253
ছবি - দেবব্রত ঘোষ

কথায় আছে ‘‌জামাই আদর’‌। সেই আদর হল, শাশুড়ির গরম লুচির আদর, সেই আদর হল শ্বশুরমশাইয়ের ‘‌বাবা–‌বাছা’‌র আদর, সেই আদর হল শ্যালিকার ‘‌আর দুটো দিন থেকে যান না জামাইবাবু’‌র আদর। আর আমার আদর হল ‘‌সাগর আদর’‌। এই আদরে ভালবাসা থাকতে পারে, আবার গালমন্দও থাকতে পারে।  কোনওটাতেই বিচলিত হওয়া চলবে না। থাকতে হবে নির্লিপ্ত। কারণ এই আদর কখন আসবে বা কখন যাবে কেউ বলতে পারে না। তাই সাগর আদর নিয়ে মাথা ঘামানোর কিছু নেই।  

এবার কিন্তু বিচলিত হয়েছি। পুলিশ থানায় গিয়ে পেলাম ‘‌সাগর আদর’‌। সাধারণ আদর নয়, মার্‌মার্‌ কাটকাট আদর।থানার অফিসার অজুর্ন সেন আমাকে চিনতে পারলেন। চিনতে পেরে এমন খাতির  শুরু করলেন যে আমি একেবারে ভেবড়ে গেলাম। সেদিন দেখেছিলাম অফিসার বাইরে চেয়ার নিয়ে বসে আছেন, এখন দেখি আলাদা ঘর হয়েছে। ঘরে পর্দা হয়েছে। পর্দার বাইরে একজন হাবিলদারের ব্যবস্থা হয়েছে। সে বসে আছে টুল পেতে। বোঝাই যাচ্ছে, অফিসারের প্রোমোশন হয়েছে। 
আমাকে তো প্রথমে হাবিলদার আটকে দিল।  
‘‌ঘরে যাবার অর্ডার নেই।’‌
‘‌আমার অর্ডার লাগে না ভাই। গিয়ে বলুন সাগর এসেছে।’‌
‘সাগর, নদী, ঝরণা সবার অর্ডার লাগবে।’‌
আমি বললাম,‘‌ভাই, আমি সাগর নদী কিছুই নই। আমি একটা পচা ডোবা।’
হাবিলদার ধমকের গলায় বলল,‌‘‌‌পচা ডোবা হও আর নালা নর্দমা হও, স্যারের ঘরে অ্যালাও নেই।’‌
আমি মাথা চুলকে বললাম,‘‌আচ্ছা, চোর ডাকাত কি পুলিশের ঘরে ঢুকতে পারে?‌ যদি পারে তাহলে আমি চোর ডাকাত।’‌
হাবিলদার ভুরু কুঁচকে বলল,‌‘‌এই কথার মানে?‌’
আমি মুচকি হেসে বললাম,‘‌এই কথা‌র মানে জটিল এক্ষুনি বুঝবে না।’‌
এর মাঝখানে পর্দার ফাঁক দিয়ে অর্জুন সেন আমাকে দেখতে পেলেন। চেয়ার ছেড়ে তড়াক্‌ করে লাফ দিয়ে উঠে এগিয়ে এলেন।  
‘‌আরে সাগরবাবু না! আসুন আসুন ভিতরে আসুন। আপনাকে তো মশাই হন্যে হয়ে খুঁজছি। কোথায় ভ্যানিশ হয়েছিলেন?‌ আছেন কেমন ?‌’‌
আমি বললাম,‘‌ভাল আছি স্যার। আপনার খবর কী ?‌’‌
আফিসার একগাল হেসে বললেন,‘‌আমার খবর খুবই ভাল। ঘরে আসুন।’‌
একরকম হাত ধরে টেনে আমাকে ঘরে নিয়ে গিয়ে বসালেন। তারপর একগাল হেসে বললেন,‘‌সেদিন আপনার মন্ত্রী মহোদয় এসে আমার কাজ দেখে তো বেজায় খুশি। বড়সাহেবকে রিপোর্টে করলেন। তিনি আমার প্রোমোশন করে দিয়েছেন। দেখেই তো সব বুঝতে পারছেন। ‌আগে ঘর ছিল না, এখন ঘর হয়েছে। সবই আপনার জন্য সাগরবাবু। সেদিন রাতে আপনি থানায় না এলে এসব কিছুই হত না।’‌
আমি বললাম,‘‌ছিছি, কী যে বলেন স্যার।’‌‌
অফিসার আমার কথায় পাত্তা না দিয়ে বললেন, ‌‘‌তারপরই আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করব ভেবেছিলাম। কিন্তু পারব কী করে ‌?‌ ফোন নম্বর তো দিয়ে যাননি। ঠিকানাও বলেননি।’
আমি হেসে বললাম,‘‌আমার তো ফোন নেই। ঠিকানাও পাকাপাকি কিছু নেই।’‌
আফিসার গদগদ গলায় বললেন, ‘‌আপনার মতো মানুষের জন্য গাড়ি, ফোন, ঠিকানা বাহুল্যমাত্র। আমার সাধারণ মানুষ এসব বাহুল্য দিয়ে ক্ষমতা বাড়াই। আপনি এমনিই বিরাট ক্ষমতাবান। আপনার ওসব তুচ্ছ জিনিস কী করতে লাগবে সাগরবাবু?‌’‌‌‌
আমি লজ্জা পেয়ে বললাম,‘‌কী যে বলেন স্যার। আমার হাতে কী ক্ষমতা?‌ মন্ত্রী আপনার কাজে সন্তুষ্ট হয়েছেন বলেই যা হবার হয়েছে।’‌
অফিসার বললেন,‘‌এসব আপনার বিনয়ের কথা। আপনি একজন বিনয়ী, ভদ্রলোক। নইলে সেদিন আমি আপনার সঙ্গে যে ব্যবহার করেছিলাম তাতে আমার এতক্ষনে সুন্দরবনে পোস্টিং হওয়ার কথা। অ্যাং ব্যাংরা কথায় কথায় বদলি করে দিচ্ছে। আপনার কাছে তো তুরুশ্চু।’‌
আমি বললাম,‘‌আপনি ভুল ভাবছেন স্যার। কোন ক্ষমতাই আমার নেই। আমি অ্যাং ব্যাং কিছুই নই। আমি হলাম ফ্যাং। ফ্যাং কী জানেন?‌ ফ্যাং হল ফালতু। আমি একজন অতি বড় ফ্যাং।’‌
অফিসার ‘‌হো হো’ আওয়াজে খুব খানিকটা হাসলেন। তারপর বললেন,‘আপনি মশাই মজার মানুষ। ফ্যাং একটা শব্দ হল?‌ হা হা। আমি তাহলে কী?‌ ঘ্যাং?‌ ঘু্ষ খাই? হা হা।’‌
আমি বললাম, ‘‌নানা। তা কেন হবেন?‌ সব পুলিশ ঘুষ খায় না। যেমন সব বেকার খারাপ নয়।’‌ 
অফিসার বললেন,‘‌আপনার মতো সৎ, বিনয়ী, ভদ্র মানুষ আমি আমার পুলিশ জীবনে দেখিনি। এই যে আপনি আমাকে স্যার স্যার বলে ডাকছেন সে তো আপনার ভদ্রতার জন্যই। যাক, ছাড়ুন ওসব, একটা ভাল খবর আছে।’‌
আমি ‌উৎসাহ নিয়ে বললাম,‘‌তাই নাকি?‌ কী খবর?‌’
অফিসার বললেন,‌ ‘‌আপনার ওই বনলতা মেয়েটির সঙ্গে ওর স্বামীর ভাব হয়ে গেছে। ওই লোক একদম পালটে গেছে। না দেখলে বিশ্বাস করা যাবে না। ব্যবসা করছে। গ্রিলের ব্যবসা। আমি দু–একটা পার্টিকে বলে দিয়েছি ওর কাছ থেকে মালপত্র নিতে। বদমাইশি স্টপ করে ও কাজে মন দিয়েছে, সেই সঙ্গে সংসারও করছে। স্বামী স্ত্রী দুজনেই মাঝেমধ্যে এখানে আসে। আমার সঙ্গে দেখা করে যায়। বনলতার অনুরোধে লোকটার ওপর থেকে মামলা তুলে নিয়েছি। বনলতা দুদিন বরকে নিয়ে মাঝরাতে লেকে গিয়েছিল যদি আপনার দেখা পাওয়া যায়। পায়নি।’‌
আমি বললাম, ‘‌সবই আপনার জন্য স্যার। অনেক ধন্যবাদ। কিন্তু আমি যে আবার একটা নতুন সমস্যা নিয়ে এসেছি।’‌
অফিসার বললেন,‘‌সমস্যার কথা পরে হবে। আগে চা খান।’
চা খেতে খেতে নতুন ‘‌সমস্যা’‌ বললাম। 
শসার কথা শুনে অফিসার বললেন, ‘‌কোনও চিন্তা নেই সাগরবাবু। ওই ছেলে আমাদের কাছেই সারেন্ডার করেছে। কেস বড় কিছু না। পকেটমারের কেস বড় হয় না। তাছাড়া নিজে মালপত্র নিয়ে এসে ধরা দিলে মারধোরের প্রশ্নই ওঠে না। শসাকে আজ কোর্টে তোলা হবে। কদিনের জন্য হাজতে যেতে হবে। তারপরই জামিন পেয়ে যাবে। সে ব্যবস্থাও করে দেব। তারওপর আপনি নিজে এসেছেন সাগরবাবু। আমরা যতটা সম্ভব লাইট করে কেস দেব।’‌
আমি বললাম,‘‌অসংখ্য ধন্যবাদ। ‌আমার আরও একটা উপকার করতে হবে।’‌
অফিসার বললেন,‌‘উপকার বলেবেন না, আদেশ বলুন।’‌
আমি জিভ কাটলাম। বললাম,‘‌শসা ছেলেটির একজন বান্ধবী আছে। চমৎকার মেয়ে। সাহসী। তার সঙ্গে শসার একবার দেখা করিয়ে দিন।’
অফিসার বললেন,‘‌কোনও ব্যাপার নয়। মেয়েটি কোথায়?‌’‌
‘‌থানার বাইরে অপেক্ষা করছে।’‌
অফিসার বেল বাজিয়ে হাবিলদারকে ডাকলেন।
‘‌শসা নামের যে পকেটমার ছেলেটি কাল সারেণ্ডার করেছে তাকে লকাপ থেকে বের করে ইন্টারোগেশন রুমে নিয়ে যাও। বাইরে একটি মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে তাকে ডেকে দশ মিনিট কথা বলিয়ে দাও। ’‌ হাবিলদার মাথা নেড়ে চলে যাচ্ছিল। অফিসার তাকে ফের ডাকলেন। বললেন,  ‘‌এই শোনও। দুজনকে জল চা–‌বিকুট দেবে। সাগরবাবুর গেস্ট।’‌
আমার বিস্ময় ক্রমশ বাড়ছিল। অজুর্ন সেনকে মনে হচ্ছিল, পুলিশ নয়, ভগবান। আমার নিজের মধ্যে একটা অপরাধ বোধ কাজ করতে লাগল। এই অফিসার নিশ্চয় ভেবে বসে আছে, সত্যিই আমাকে নেতা, মন্ত্রী, ক্ষমতাবানরা চেনে। তাদের আমার অনেক ক্ষমতা। আমি যে কেউ নই, কিছু নই এটা তো ওকে জানাতে হবে। কখন জানাব?‌ শসার কেসটা মিটে যাওয়ার পর জানাই?‌ অবশ্য তাড়াহুড়োরই বা কী আছে?‌ অফিসার যদি আমাকে ক্ষমতাবান ভেবে বসে থাকে, ক্ষতি কী?‌ এই মিথ্যে ভাবনা থেকে আমি তো নিজের কোনও সুবিধে আদায় করে নিচ্ছি না। এমন মানুষদের জন্য বলছি যারা ক্ষমতা থেকে অনেক দূরে থাকে। সত্যি ক্ষমতায় কত মানুষের কত  ক্ষতি হয়। মিথ্যে ক্ষমতায় না হয় দু–একজন লাভ হোক। 
শসার সঙ্গে দেখা করে নারুম আর আমি থানা থেকে বেরিয়ে এলাম। 

(‌‌আগামী সংখ্যায় শেষ)‌ 

গত পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-30/

২৯ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-29/

২৮ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-28/

২৭ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-27/

২৬ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-26/

২৫পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-25/

২৪ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-24/

২৩ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-23/

২২ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-22/

২১ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-21/

২০ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-20/

১৯ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-19/

১৮ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-18/

১৭ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-17/

১৬ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-16/

১৫ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-15/

১৪ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-14/

১৩পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-13/

১২ পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-12/

১১ পর্বের লিংক –  https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-11/

১০ পর্বের লিংক –  https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-10/

৯ম পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-9/

৮ম পর্বের লিংক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-8/

৭ম পর্বের লিঙ্ক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-7/

৬ পর্বের লিঙ্ক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-gupta-part-6/

৫ম পর্বের লিঙ্ক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-guptapart-5/
 
৪র্থ পর্বের লিঙ্ক – https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-guptapart-4/
৩য় পর্বের লিঙ্ক –https://banglalive.com/sagar-i-love-you-bengali-novel-by-prachet-guptapart-3/

২য় পর্বের লিঙ্ক – https://banglalive.com/novel-by-prachet-gupta-2/

প্রথম পর্বের লিংক – https://banglalive.com/novel-by-prachet-gupta/

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.