স্বেচ্ছায় বিবস্ত্র বাসিন্দারা ! গ্রামে বসবাসের মূল শর্তই নগ্নতা !

2051

আদিবাসী নন | দারিদ্র্যও কারণ নয় | তবু গ্রামবাসীরা নগ্ন | স্বেচ্ছায় বিবস্ত্র হয়ে থাকতেই ভালবাসেন তাঁরা | গ্রামের নাম স্পিয়েলপ্লাৎজ | ব্রিটিশ এই গ্রামে বসবাসের শর্তই হল নগ্নতা | নইলে এখানে থাকার অনুমতি পাওয়া যাবে না | বাসিন্দাদের পোশাক বা গ্রামের চতুর্দিক‚ সর্বত্র স্বচ্ছলতার স্পর্শ স্পষ্ট | এমন নয় গ্রামবাসীদের কাছে শৌখিন পোশাক নেই | আছে‚ তা তারা পরেও যান বাইরে কোথাও গেলে | কিন্তু গ্রামে তাঁরা সবসময় নগ্ন |

ইংল্যান্ডের হার্টফোর্ডশায়ারের এই গ্রামে বসতি শুরু হয় ১৯২৯ সালে | সে বছর লন্ডন ছেড়ে এই গ্রামে বসত শুরু করেন জনৈক চার্লস ম্যাকস্কি ও তাঁর স্ত্রী ডরোথি | ৫০০ পাউন্ডের বিনিময়ে কিনে নিয়েছিলেন ১২ একর জায়গা | নাম দিয়েছিলেন স্পিয়েলপ্লাৎজ | অর্থ হল‚ খোলা মাঠ | ধীরে ধীরে তাঁদের পরিচিতরাও এখানে থাকতে শুরু করেন | এখন এখানে মোট ৫৫ টি বাড়ি | তার মধ্যে ৩৪ টি বাংলোয় নিয়মিত বাসিন্দারা থাকেন | বাকিগুলো ভাড়া দেওয়া হয় | গ্রীষ্মে পর্যটকরা আসেন | 

ব্রিটেনের প্রাচীনতম ন্যুডিস্ট বা নেচারিস্ট গ্রাম এটা |  ন্যুডিস্ট না হলে এই গ্রামে জমি কেনা যাবে না | এছাড়া বাকি গ্রামের থেকে এর কোনও পার্থক্য নেই | খবরের কাগজওয়ালা‚ দুধওয়ালা সবাই আসেন জামাকাপড় পরেই | তাঁরা অভ্যস্ত | নগ্ন গ্রামাবাসীদের দেখে প্রস্তরীভূত হয়ে যান না | প্রকৃতির কোলে ভালই আছেন গ্রামবাসীরা | সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক আবরণে নিজেদের আবৃত করে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.