সভ্যতার ঊষালগ্নে জন্মানো এই সপ্ত ভাষার কিছু আজও বহমান‚ কিছু স্তিমিত

700

একটা সময় ছিল যখন মানুষের মধ্যে ভাবের আদান প্রদানের জন্যে কোনও ভাষা ছিল না। আদিমযুগের মানুষ কোনও কিছুকে বোঝাতে তার অনুরূপ ব্যবহার করত। এর পর ছবি উন্নততর হল চিহ্নে, কখনও বা ইঙ্গিতে। আরও সহজে মানুষ আওয়াজ করতে শিখল এবং এই থেকে শব্দ ও শব্দের সংমিশ্রণ ঘটল। ভাষার জন্ম হল। ভাষাই হল মানব সভ্যতার সমাজ গড়ে তোলার প্রধান হাতিয়ার। সামাজিক জীবনে প্রবেশ করার মূল চাবিকাঠি। আমরা এখন যে ভাষা ব্যবহার করি সেই সবের উৎপত্তি প্রায় ১০ হাজার বছর আগে।

ভাষা মানুষের মধ্যে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম। ভাষাবিজ্ঞানীদের মতে, মানুষ মাত্রেই ভাষা অর্জনের মানসিক ক্ষমতা নিয়ে জন্মায়। একবার ভাষার মূল সূত্রগুলি আয়ত্ত করে ফেলার পর মানুষ তার ভাষায় অসংখ্য নতুন নতুন বাক্য সৃষ্টি করতে পারে। এরকম অসীম প্রকাশ ক্ষমতা মানুষ ছাড়া আর কোনও প্রাণীর নেই।

ভাষাবিজ্ঞানীরা বিভিন্ন বিষয় গবেষণার মাধ্যমে কোন ভাষা কতদিন আগে উৎপত্তি তার একটি হিসাব করতে সক্ষম হয়েছেন। বিশ্বের প্রাচীন ভাষাগুলোর মধ্যে যে সাতটি ভাষা জায়গা করে নিয়েছে, চলুন জেনে নিই সেই ভাষাগুলির সম্বন্ধে।

লাতিন

ভাষাটি ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষা পরিবারের ইতালিক উপ-পরিবারের সদস্য। ইতালিতে লাতিন ছিল মূলত রোম ও তার আশেপাশের অঞ্চলের একটি উপভাষা। ইতালিক ভাষাসমূহের মধ্যে লাতিন, ফালিস্কান ও অন্যান্য কিছু ভাষা মিলে লাতিনীয় দল গঠন করেছে। খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতকে লাতিনীয় ভাষাতে লেখা শিলালিপি পাওয়া গেছে। সুস্পষ্ট রোমান লাতিনে লেখা বিভিন্ন প্রাচীনতম রচনা বেশির ভাগই খ্রিস্টপূর্ব ৩য় শতকের। উত্তর ইতালিতে প্রচলিত সেল্টিক উপভাষাগুলি, মধ্য ইউরোপে প্রচলিত অ-ইন্দো-ইউরোপীয় এত্রুস্কান ভাষা, এবং দক্ষিণ ইতালিতে প্রচলিত গ্রিক ভাষা (খ্রিস্টপূর্ব ৮ম শতক থেকেই প্রচলিত) লাতিন ভাষাকে প্রভাবিত করেছিল। খ্রিস্টপূর্ব ৩য় শতকের দ্বিতীয়ার্ধে গ্রিক সাহিত্যগুলি লাতিনে অনুবাদ করা হয়। গ্রিক ভাষা ও সাহিত্যের প্রভাবে লাতিন একটি গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্যিক ভাষায় পরিণত হয়। ৭৫ খ্রিস্টপূর্বাব্দে এই ভাষার উৎপত্তি হয় বলে অনুমান।

আরবি 

ইসলামের আবির্ভাবের ঠিক আগের যুগে আরব উপদ্বীপে আরবি ভাষার উৎপত্তি ঘটে। প্রাক-ইসলামী আরব কবিরা যে আরবি ভাষা ব্যবহার করতেন, তা ছিল অতি উৎকৃষ্ট মানের। তাঁদের লেখা কবিতা মূলত মুখে মুখেই প্রচারিত ও সংরক্ষিত হত। আরবি ভাষাতে সহজেই বিজ্ঞান ও শিল্পের প্রয়োজনে নতুন নতুন শব্দ ও পরিভাষা তৈরি করা হত এবং আজও তা করা যায়। এসময় ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী এক বিশাল এলাকা জুড়ে আরবি প্রধান প্রশাসনিক ভাষা হিসেবে ব্যবহার করা হত। ভাষাটি বাইজেন্টীয় গ্রিক ভাষা ও ফার্সি ভাষা থেকে ধার নিয়ে এবং নিজস্ব শব্দভাণ্ডার ও ব্যাকরণ পরিবর্তন করে আরও সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে। এই ভাষার প্রথম নিদর্শন পাওয়া যায় ৫১২ খ্রিস্টাব্দে। মধ্য প্রাচ্যের বহু দেশ যেমন সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, সৌদি আরব, লেবানন, সিরিয়া, ইরাক, ইরান, ইজরায়েল, ইজিপ্ট, জর্ডন, কুয়েত এবং ওমানের সরকারি ভাষা হল আরবি।

তামিল 

বিশ্বের প্রাচীনতম যে ভাষাগুলি এখনও বহমান তার মধ্যে অন্যতম তামিল | একে বলা হয় প্রাচীনতম ধ্রুপদী ভাষা বা ‘Oldest Classical Language’ | এই ভাষায় রচিত প্রাচীনতম রচনাটি খ্রিস্টপূর্ব ২য় শতকে লেখা। ভারতের ছয় কোটির বেশি মানুষ এই তামিল ভাষায় কথা বলে। ভাষাটি ভারতের তামিলনাড়ু অঙ্গরাজ্যের সরকারি ভাষা এবং উত্তর ও উত্তর-পূর্ব শ্রীলঙ্কার প্রধান ভাষা। এছাড়া সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, মরিশাস ও দক্ষিণ আফ্রিকায় বেশ বড় আকারের তামিলভাষী সম্প্রদায় রয়েছে। সমগ্র বিশ্বে প্রায় সাড়ে সাত কোটি লোক তামিল ভাষায় কথা বলে। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ৭ কোটি ৮০ লাখ মানুষ তামিল ভাষায় কথা বলেন।

হিব্রু 

হিব্রু ভাষা হল ইসরায়েলের  ভাষা। ২০০ খ্রিস্টাব্দের দিকে মৌখিক ভাষা হিসেবে এটি বিলুপ্ত হয়ে যায়। কিন্তু লিখিত ভাষা হিসেবে এটি আরও বহু শতক টিকে থাকে। ১৯ শতকের শেষে ও বিংশ শতাব্দীর শুরুতে কথ্য ভাষা হিসেবে এটির পুনর্জন্ম হয়। বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রধানত রাশিয়া থেকে বর্তমান ইসরায়েলে ইহুদিরা তাদের নিজস্ব বিভিন্ন মাতৃভাষা যেমন আরবি, ইডিশ, রুশ, ইত্যাদির পরিবর্তে আধুনিক হিব্রু ভাষায় কথা বলা শুরু করেন। ১৯২২ সালে হিব্রু ব্রিটিশ প্যালেস্টাইনের সরকারি ভাষার মর্যাদা পায়।

ইসরায়েলে প্রায় ৯০ লক্ষের বেশি লোক হিব্রু ভাষায় কথা বলেন। এছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন ইহুদি সম্প্রদায়ের প্রায় কয়েক লক্ষ লোক হিব্রুতে কথা বলেন। বর্তমানে আরবির পাশাপাশি হিব্রু ইসরায়েলের সরকারি ভাষা। আরব সেক্টরগুলি বাদে ইসরায়েলের সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি কাজে হিব্রু ব্যবহার করা হয়। সরকারি স্কুলগুলিতে হয় হিব্রু বা আরবি ভাষায় শিক্ষাদান করা হয়, তবে আরবি স্কুলগুলিতে হিব্রু দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়া বাধ্যতামূলক। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়েও হিব্রু ভাষাই শিক্ষাদানের মাধ্যম। ইসরায়েলের সংবাদপত্র, বই, রেডিও ও টেলিভিশনের প্রধান ভাষা হিব্রু।

চিনা 

কথ্য চিনা ভাষার বিভিন্ন রূপ আছে । ভাষাবিজ্ঞানীদের মতে চিনা ভাষাগোষ্ঠীতে সাত কিংবা দশটি ভাষা বা উপভাষা গোষ্ঠী আছে । বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের শেখা প্রথম ভাষাই হল চিনা ভাষা। পৃথিবীর প্রায় ১২০ কোটি মানুষ চিনা ভাষাকেই তাঁদের প্রধান ভাষা হিসেবে বিবেচনা করেন। শাং সাম্রাজ্যের শেষের দিকে প্রায় ১২৫০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে এই ভাষার উৎপত্তি বলে মনে করা হয়।

গ্রিক 

গ্রিক ভাষা বিশ্বের অন্যতম প্রধান সভ্যতা ও সাহিত্যের ধারক ভাষা। গ্রিক একটি ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষা, কিন্তু এটির কোনও উপভাষা নেই। সমস্ত জীবিত ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষার মধ্যে কেবল আর্মেনীয় ভাষার সঙ্গে গ্রিক ভাষার মিল আছে। গ্রিক ভাষা দক্ষিণ বলকান অঞ্চলে খ্রিস্টপূর্ব দ্বিতীয় সহস্রাব্দের শুরু থেকে কথিত হয়ে আসছে। ৩,৫০০ বছর আগে এই ভাষার লিখিত নিদর্শন পাওয়া গেছে, যা ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষাগুলির মধ্যে প্রাচীনতম।

আধুনিক গ্রিক ভাষা প্রোটো-গ্রিক (Proto-Greek) ভাষার উত্তরসূরী। খ্রিস্টপূর্ব ৪র্থ শতকে গ্রিসের বিভিন্ন স্থানে প্রচলিত বিভিন্ন প্রাচীন গ্রিক উপভাষা ধীরে ধীরে আথেন্স অঞ্চলের আত্তিক উপভাষার উপর ভিত্তি করে উদ্ভূত “কোইনি” (Koine) বা সাধারণ গ্রিক ভাষায় রূপ নেয়। কোইনি থেকে প্রোটো-গ্রিক ও সেখান থেকে আধুনিক গ্রিক ভাষার উৎপত্তি।

সংস্কৃত

সংস্কৃত হল একটি ঐতিহাসিক ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষা এবং হিন্দু ও বৌদ্ধধর্মের পবিত্র দেবভাষা। বর্তমানে সংস্কৃত ভারতের ২২টি সরকারি ভাষার অন্যতম এবং উত্তরাখণ্ড রাজ্যের অন্যতম সরকারি ভাষা। খ্রিষ্টপূর্ব চতুর্থ শতাব্দীতে রচিত পাণিনির ব্যাকরণে এই প্রামাণ্যরূপটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ইউরোপে লাতিন বা প্রাচীন গ্রিক ভাষার যে স্থান, বৃহত্তর ভারতের সংস্কৃতিতে সংস্কৃত ভাষার সেই স্থান। ভারতীয় উপমহাদেশ, বিশেষত ভারত ও নেপালের অধিকাংশ আধুনিক ভাষাই এই ভাষার দ্বারা প্রভাবিত।

সংস্কৃতের প্রাক-ধ্রুপদী রূপটি বৈদিক সংস্কৃত নামে পরিচিত। এই ভাষা ঋগ্বেদের ভাষা এবং সংস্কৃতের প্রাচীনতম রূপ। এর সর্বাপেক্ষা প্রাচীন নিদর্শনটি খ্রিষ্টপূর্ব ১৫০০ অব্দ নাগাদ রচিত। এই কারণে ঋগ্বৈদিক সংস্কৃত হল প্রাচীনতম ইন্দো-ইরানীয় ভাষাগুলির অন্যতম এবং ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষা আদিতম অংশ এবং অন্যতম ভাষা।

ভারতের এই প্রাচীনতম ভাষাতেই নাকি ঈশ্বররা কথা বলতেন। সংখ্যায় কম হলেও এখনও বেশ কিছু মানুষ এই ভাষায় কথা বলেন। সংস্কৃতের প্রভাব পশ্চিমী বহু ভাষার উপরেও রয়েছে।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.