শাহরুখ খান অভিনীত এই বিখ্যাত ছবিগুলো আগে অফার করা হয়েছিল সলমন খানকে !

৯-এর দশক থেকে শুরু করে আজ অবধি বলিউড মাতিয়ে আসছেন তিন খান। শাহরুখ সলমন এবং আমির খান। এখনও অবধি বি-টাউনে তাঁরাই রয়েছেন এক নম্বরে। কেউ ভাই হয়ে,কেউ বাদশা হয়ে রাজ করে চলেছেন বলিউড। বক্স অফিসে এখনও শীর্ষে থাকে তাঁদের ছবি। বছরে একটা কিংবা দুটো ছবিতেই বুঝিয়ে দেন তাঁরা ছিলেন,আছেন এবং থাকবেন। এঁদের নাম দিয়েই যেমন চেনা যায় তাঁদের ছবিগুলি। অন্যদিকে কিছু ছবিই তাঁদের পৌঁছে দিয়েছে জনপ্রিয়তার শীর্ষে। বসিয়েছেন শ্রেষ্ঠত্বের গদিতে। তবে জানেন কি কিং খানের কিছু ব্লকবাস্টার ছবি একসময় করার কথা ছিল সলমন খানের। তবে শেষ মুহূর্তে সেই ছবিগুলি থেকে নিজেকে সরিয়ে ফেলেন ভাইজান।

১। বাজিগর

‘বাজিগর’ ছবিটি শাহরুখ খানের জীবনে মাইলস্টোন বলা যেতেই পারে। আর এমনই একটি ব্লকবাস্টার ছবিকে নাকি প্রথমে না করে দিয়েছিলেন সলমন খান। আব্বাস মস্তানের এই ছবিতে মূল নায়ককে দেখা গিয়েছে নেগেটিভ চরিত্রে। আর অনস্ক্রিন কোনভাবেই ভিলেনের চরিত্র করতে রাজি ছিলেন না ভাইজান। তাই শেষ মুহূর্তে ছবিটি করতে রাজি হয়ে যান কিং খান। আর সেই কারণেই হয়তো বলিউডের বাজিগর সলমন নয় শাহরুখ খান।

২। দিলওয়ালে দুলহনিয়া লে জায়েঙ্গে

মুম্বই-এর মারাঠা মন্দিরে আজও হাউসফুল ‘ডিডিএলজে’। ৯’এর দশকের সেই ছবিটি এখনও প্রতীক হয়ে রয়েছে বলিউডের। তবে জানেন কি হিন্দি সিনেমার এই অনবদ্য প্রেমকাহিনিকেও না করে দিয়েছিলেন ভাইজান। এমনকি যশরাজ ফিল্মসের তরফ থেকে যখন এই ছবিটি করার কথা ঠিক হয় তখন কোনভাবেই শাহরুখকে প্রথম পছন্দের তালিকায় রাখা হয়নি। তাই সলমন খানের না করে দেওয়ার পর ছবিটি নিয়ে যাওয়া হয় আমির খানের কাছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শাহরুখ রাজি হন ছবিটি করার জন্য। আর তারপর থেকেই বলিউডের রোম্যান্টিক হিরোর আখ্যা পেয়ে যান বাদশা।

৩। যোশ

ব্লকবাস্টার না হলেও যোশ ছবিতে দেবদাস পারোর জুটিকে ভাইবোন হিসেবে বেশ পছন্দ করেছিলেন দর্শক। তবে যখন এই ছবিটি সলমন খানের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়,তখন নিজের প্রেমিকার সঙ্গে ভাই হয়ে বড়পর্দায় আসতে না করে দেন তিনি। কার্যত ছবিটি নিয়ে যাওয়া হয় শাহরুখ খানের কাছে।

৪। কাল হো না হো

শাহরুখ খানের ছবি মানেই যে সিনেমাগুলির নাম মাথায় আসে সবার আগে তার মধ্যে অন্যতম হল ‘কাল হো না হো’। কিন্তু প্রথমে সেই ছবিতেও কাজ করার কথা ছিল ভাইজানের। তবে মূল চরিত্রে নয়। ছবির পরিচালক করণ জোহর প্রথম সৈফ আলি খানের চরিত্রের জন্য পছন্দ করেছিলেন সলমনকে। এমনকি প্রথমে রাজি থাকলেও পরে স্ক্রিন টাইমিং এবং চরিত্রটির গুরুত্ব মোটেই পছন্দ হয়নি ভাইজানের। কার্যত ছবিটি থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি। পরবর্তীকালে সেই খামতি পূরণ করতে সৈফ আলি খানকে বেঁছে নেন পরিচালক।

৫। চক দে ইন্ডিয়া

না কোন রোম্যান্টিক ছবি নয়,শাহরুখের কেরিয়ারে রোম্যান্টিক ছবির পাশাপাশি যদি অন্য কোন শেষ্ঠ ছবি থেকে থাকে সেটি হল ‘চক দে ইন্ডিয়া’। তবে জানেন কি এই ছবিটিও প্রথম অফার করা হয় সলমনকে। তবে সেই সময় অন্য প্রোজেক্টে ব্যস্ত হয়ে পরায় সময়ের অভাবে ছবিটিকে হ্যাঁ বলতে পারেন না ভাইজান। পরে শাহরুখ খানকে অফার করা হয় কবির খানের সেই বিখ্যাত চরিত্রটি। আর সেই ছবিই এরপর হিন্দি সিনেমার ইতিহাসে দাগ রেখে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here