খাওয়ারের ব্যাপারে বাঙালীরা বরাবরই রসিক ৷ আর যে কোনও পদ খাওয়ার ব্যাপারে ভাতকেই চিরকাল বেছে নিয়েছেন তাঁরা ৷ তবে বর্তমানে অনেকেই এমন আছেন যারা ভাতের থেকে রুটিটাই বেশি পছন্দ করেন! কারণ আমরা সকলেই জানি ভাত খেলে মোটা হওয়ার সম্ভাবনা বেশি৷ বিশেষত ডিনারে ভাত খাওয়াটা একেবারেই উচিৎ নয় বলে মত অধিকাংশেরই ৷ কিন্তু জানেন কি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাতে ভাত বা রুটি কোনওটাই নয়। খেলেও খুব কম। কারণ দুটোই কার্বোহাইড্রেট।

ভাত এবং রুটি দু’টিতেই আছে এমন উপাদান, যা নতুন কোষ গঠনে সাহায্য করে ৷ শিশুর জন্মগত ত্রুটি ঠেকাতে আবার ভাত অনেক বেশি কার্যকর ৷ রুটি ও ভাতে আয়রনের পরিমাণ সমান হলেও ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাসিয়ামের পরিমাণ রুটির তুলনায় ভাতে কম।

বিশেষজ্ঞদের মতে, সন্ধের পর কার্বোহাইড্রেট এড়িয়ে চলাই উচিত। বিশেষ করে হাই সুগার, ডায়াবেটিস, ওবেসিটির সমস্যা থাকলে তো নয়ই। ঘুমনোর আগে কার্বোহাইড্রেট শরীরে গেলে গ্রোথ হরমোন এবং টেস্টোস্টেরন নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। রাতে খুব বেশি ভাত খেলে ডায়াবেটিস, ওবেসিটির মতো রোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। ভাতে ফাইবারও কম। ফলে, হজমক্ষমতাও কম।

রাতে বেশি রুটিও নয় কারণ, আটা বা ময়দা যে কোনও ধরনের রুটিতেই কার্বোহাইড্রেট থাকে। এক টুকরো রটিতে ১৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট থাকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দৈনিক পুষ্টির মাত্র ৪৫ থেকে ৬৫ শতাংশ কার্বোহাইড্রেট থেকে নেওয়া উচিত।

Banglalive-8
আরও পড়ুন:  মগজ কে সক্রিয় রাখতে ওঠানামার জন্য ব্যবহার করুন সিঁড়ি

NO COMMENTS