ব্রণ কমানোর ঘরোয়া উপায়

6042

ব্রণ একটি অতিপরিচিত ত্বকের সমস্যা। মুখে ব্রণ হলে দেখতে খারাপ লাগে।  ত্বকের তৈলগ্রন্থি ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হলে তার ভিতরে পুঁজ জমে ব্রণ হয়। ব্রণ হলে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। বাজারের কেমিক্যাল প্রডাক্টের নানা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। কিন্তু ঘরোয়া উপায়ে ব্রণ কমানো গেলে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয় না।

১| আমাদের মধ্যে অনেকেরই নখ দিয়ে ব্রণ খোঁটার বাজে অভ্যাস আছে। এটি কোনও সমাধান নয়। বরং এতে ব্রণর অবস্থা আরও খারাপ হবে। ব্রণ লাল হয়ে যাবে, ফেটে গিয়ে মুখে দাগ সৃষ্টি করবে। তাই নখ দিয়ে ব্রণ খোঁটা বা ফাটানোর চেষ্টা করা থেকে বিরত থাকুন।

২| মেক আপের ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। দিনে অন্তত ২ থেকে ৩ বার কোনও জেল বেসড ফেশওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

৩| ব্রণর সমস্যা নিরাময়ে নিমপাতার জুড়ি মেলা ভার। ব্রণ নিরাময় করতে নিমপাতা বাটা খান অথবা যেই জায়গায় ব্রণ হয়েছে সেই জায়গায় লাগিয়ে নিন। নিমপাতা জলে সেদ্ধ করে নিয়ে বোতলে ভরে রেখে টোনার হিসেবে ব্যবহার করলেও উপকার পাবেন।

৪| গোলাপজলের নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণ কমে। দারচিনি গুঁড়োর সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ব্রণর উপর লাগিয়ে ২০ মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণর চুলকানি এবং ব্যথা অনেকটাই কমবে।

৫| গুঁড়ো চন্দন ও গোলাপ জল মিশিয়ে পেষ্ট মিশ্রণ বানিয়ে নিন। এতে ২ থেকে ৩ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে নিন। গোলাপ জলের পরিবর্তে মধুও ব্যবহার করতে পারেন। এই মিশ্রণটি ব্রণ নিরাময় করতে সাহায্য করবে। সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ দিন ব্যবহার করতে পারলে ভাল ফল পাবেন।

৬| ব্রন কমাতে টি ট্রি অয়েলও কার্যকর। কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল ব্রণর উপরে লাগিয়ে নিন। ক্লিনজার বা ময়েশ্চারাইজারের সঙ্গে টি ট্রি অয়েল মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন।

৭| ত্বকে অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাবের ফলে ব্রণর সমস্যা দেখা দেয়। মুখে মুলতানি মাটির সঙ্গে জল মিশিয়ে একটি গাঢ় মিশ্রণ বানিয়ে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। মুলতানি মাটি ত্বকের অতিরিক্ত তেল নিঃসরণ বন্ধ করতে সাহায্য করে।

৮| ব্রণ কমানোর জন্য তুলসী পাতার রস খুব উপকারী। তুলসী পাতায় রয়েছে ভেষজ গুণ। তুলসী পাতার রস যেসব জায়গায় ব্রণ হয়েছে সেই জায়গায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

৯| ব্রণ হওয়ার একটি অন্যতম কারণ অপরিষ্কার ত্বক। তাই ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে। নিয়মিত স্ক্রাবিং ত্বক পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। ১ কাপ পাকা পেঁপে চটকে নিন। এর সঙ্গে ১ চামচ পাতিলেবুর রস এবং প্রয়োজনমত চালের গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। যেসব জায়গায় ব্রণ হয়েছে সেই জায়গায় লাগিয়ে নিন মিশ্রণটি। ২০ থেকে ২৫ মিনিট মাসাজ করে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। পেঁপের পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারেন ঘৃতকুমারীর(অ্যালোভেরা) রস।

১০| কাঁচা হলুদ এবং চন্দন ব্রণ কমানোর জন্য খুবই কার্যকর উপাদান। সমপরিমাণ কাঁচা হলুদ বাটা এবং গুঁড়ো চন্দন নিয়ে অল্প জল মিশিয়ে একটি মিশ্রণ বানিয়ে নিন। মিশ্রণটি যেসব জায়গায় ব্রণ হয়েছে সেই জায়গায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে মুখ জল দিয়ে ধুয়ে নিন। এই মিশ্রণটি শুধু যে ব্রণ দূর করে তা নয়, ব্রণর দাগ দূর করতেও সাহায্য করে।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.