হতে চেয়েছিলেন আর্মি অফিসার,হলেন অভিনেতা

ভর্তি হতে চেয়েছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীতে,হয়ে গিয়েছেন অভিনেতা, তাও টলিউডের অন্যতম এক অভিনেতা |অভিনয় থেকে রাজনীতি-র ময়দান সর্বত্রই নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন মাত্র ৩২ বছর বয়সেই | কিছুদিন আগেই ছেলে সাঁঝ চক্রবর্তীর অন্নপ্রাশন নিয়ে ব্যাস্ততা কাটিয়ে উঠেছেন |আপাতত ব্যস্ত নিজের আপকামিং ছবিতে অভিনয় নিয়ে | ব্যস্ততার ফাঁকে আমাদের প্রতিনিধির সঙ্গে একান্ত আড্ডায় হাজির হয়েছিলেন অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী | নিজের জীবনের নানা মুহূর্ত তুলে ধরলেন আড্ডায় | বিট্টু ওরফে সোহম নিজের ছবিতে নিজেই অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয় করতে ভালবাসেন |আড্ডায় জানালেন আগামী দিনে চ্যালেঞ্জিং রোলে অভিনয় করার সুযোগ পেলে রেডি সোহম | ছোটবেলায় প্রবাদপ্রতিম পরিচালক সত্যজিত রায়-এর ছবিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে আজকের টলিউডের অন্যতম নায়ক সোহম হয়ে ওঠার কাহিনীতে রয়েছে অনেক স্ট্রাগল,প্রচেষ্টা,নিয়মানুবর্তিতা-র ফল |ইমোশনাল ও বদরাগী | নিজেকে আজও সাধারনের চোখেই দেখতে পছন্দ করেন তিনি |আজও প্রতিদিনই স্ট্রাগল করছেন নিজের কাজে আরও ভাল হয়ে ওঠার জন্য | সঙ্গে রিয়াল লাইফ প্রেম অনেকটা বড় অংশ ঘিরে রয়েছে সোহমের জীবনে | 

রিপোর্টার : পরিচালক সত্যজিত রায়-এর সঙ্গে কাজ করেছেন,তারপর হরলিক্স বয় হিসেবে জনপ্রিয়তা,বর্তমানে টলিউডের অন্যতম এক হিরো |

সোহম : ধন্যবাদ |

রিপোর্টার : আপনি একটু বেশিই সৌজন্যবোধ দেখাচ্ছেন না?একদিকে রাজনীতি করছেন,অন্যদিকে অভিনয়…

সোহম : সত্যিই জানি না কিভাবে সামলাচ্ছি | ছোট থেকে একটা টার্গেট তো ছিলই,প্রত্যেকের জীবনেই একটা লক্ষ্য থাকে যে বড় হয়ে আমি কিছু হব | সত্যি বলতে আমারও তেমন ইচ্ছা ছিল,ইচ্ছা ছিল আর্মিতে যোগ দেওয়ার | কিন্তু পরবর্তীতে মনে হলো ব্যবসা করব,তারপর ভাবলাম চাকরি করব | যত ম্যাচিওরড হলাম, গ্র্যাজুয়েশন শেষ করলাম তখন সিদ্ধান্তে উপনীত হলাম যেটা ছোট থেকে করে এসেছি সেটাই আগামীদিনেও করব,অন্তত তার বাইরে আর কোনও ভাবনাচিন্তা আসেনি |সুতরাং ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে ফিরে যাওয়াই শ্রেয় | পড়াশুনো শেষ করে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে যোগ দিলাম,আবার এখানে টিকে থাকার স্ট্রাগল শুরু হলো | প্রত্যেকের ভালবাসা,আশীর্বাদ সব মিলিয়ে আজ এই জায়গায় দাড়িয়ে | চ্যালেঞ্জটা আরও বেড়ে গিয়েছে | চ্যালেঞ্জ নিতে ভালো লাগে | ভয় হতো এগোচ্ছি তো ঠিকই,কিন্তু পারব কিনা এটা যখন একটা প্রশ্নচিন্থ ছিল তখনও চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলাম | এখন তো চ্যালেঞ্জটা আরও বেড়ে গিয়েছে,দায়িত্ব বেড়ে গিয়েছে | তখন একরকম স্ট্রাগল,এখন একরকম স্ট্রাগল | তবে এটা বুঝতে শিখেছি স্ট্রাগল সারাজীবন চলতে থাকবে,প্রত্যেকের জীবনেই আশা করি চলে | তাতে ভালো লাগাও আছে, প্রাপ্তির আনন্দ রয়েছে, তার পাশাপাশি আরও এগোনোর সিদ্ধান্ত,এগিয়ে চলার চেষ্টা রয়েছে | 

রিপোর্টার : ইতিমধ্যে প্রেম-বিয়ে জীবনের অনেকটা ঘিরে রয়েছে তো..

সোহম : হ্যাঁ, অবশ্যই বিয়ের আগে প্রায় ৭ বছর আমাদের সম্পর্ক ছিল | বিয়ের পর এখন ৪ বছর হয়েও গেল | বাচ্চার অন্নপ্রাশনও হয়ে গেল | সময় সময়ের মতো এগিয়ে চলছে | চেষ্টা করছি তার তালে তাল মিলিয়ে চলতে | 

রিপোর্টার :  আর্মিতে যেতে পারেননি হয়তো,কিন্তু নিজেকে অ্যাকশন হিরো হিসেবে দেখতে চান, যেখানে নিজেই নিজের সমস্ত কঠিন অ্যাকশন করবেন |

সোহম : সেই অর্থে বলতে গেলে আমার ‘জানেমন’ ছবি বলো বা গত বছর রিলিজ করল ‘ব্ল্যা’ক, ‘প্রেম আমার’ ছবিতেও বেশ কিছু অ্যাকশন রয়েছে সবটাতেই আমি নিজে অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয় করেছি,কোনও বডি ডবল ব্যবহার করিনি | ‘প্রেম আমার’ ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে আমার লাইফ রিস্ক হয়ে গিয়েছিল | ‘ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে’ ছবিতে আমাকে প্রায় ২০০ ফুট পাহাড়ের মাথা থেকে ঝাঁপ দিতে হয়েছিল,সেটাও আমি নিজেই করেছি |এটার জন্য একটা অ্যাক্সিডেন্টও হয়েছিল | আমার কানে লেগেছিল | আ্যকশনটা নিজে করতে ভালোবাসি, ছোট থেকেই তাই সেটা নিজেই করি তা সে যত রিস্ক ফ্যাক্টরই থাকুক না কেন |যেখানে দেখি সত্যিই খুব সমস্যা হতে পারে সেখানে যারা ফাইট মাস্টার থাকেন তারাই বলেন একজন প্রফেশনাল-কে দিয়ে অ্যাকশন দৃশ্যটা অভিনয় করিয়ে নিতে | যেখানে দেখি আমার সাধ্যের মধ্যে রয়েছে সেটা করি নাহলে ছেড়ে দিই |  

রিপোর্টার : তাহলে তো অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয় করতে হলে প্রতিদিন অভ্যাস করেন?

সোহম : সত্যি বলতে সেই প্র্যাকটিসটা হয় না | কিন্তু যদি এমন হয় যে চরিত্রে অভিনয় করছি সেই চরিত্রটি মার্শাল আর্ট বা এধরনের চরিত্র, তবে তার আগে অন্তত ১ মাস অভ্যাস করি কীভাবে কী স্টেপস রয়েছে শিখে নিয়ে | নচেত আমরা মাস্টারজিরা যেভাবে শেখান সেভাবেই অভ্যাস করি | তার জন্য আগে থেকে যে খুব কিছু প্র্যাকটিস করি তা নয় | ভগবানের দয়ায়,মাস্টারজির শেখানো স্টান্টও নিজের প্রচেষ্টায় পারফর্ম করি |বেশিরভাগ সময় উতরে যাই,কোনও কোনও সময় ভুল পদক্ষেপের জন্য চোট লাগে |   

রিপোর্টার : তাহলে নিজের ফিটনস ধরে রাখতে আপনি কী কী করেন?

সোহম : ফিটনেস ধরে রাখতে সকলেই আজকাল অনেক কিছু করেন, শুধু আমরা হিরো বলেই ফিটনেস রেজিম ফলো করি তা নয় | প্রত্যেকেই যারা যে সেক্টরে কাজ করছেন তারা কিছু না কিছু করেন | আমিও জিম করি | ভাল খাওয়ার, শরীরচর্চা করলে সুস্থ্ থাকা যায় |

রিপোর্টার : ছকভাঙ্গা প্রফেশন ও পরিবার দুটো কীভাবে সামলান?

সোহম : এটা খুবই চাপের ব্যাপার | কোথাও না কোথাও তো স্যাক্রিফাইস করতেই হয় | সবসময় যে ব্যালান্স করা যায় তা নয় | কাজের দিকেই প্রাধান্যটা বেশি চলে আসে | তা সে ফিল্মের কাজ হোক বা রাজনীতি | তবে যে ক্ষেত্রে পরিবারের আমাকে পাশে পাওয়ার প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে পরিবারের পাশেই থাকি | তাছাড়া প্রাধান্য কাজকেই দেওয়া হয় |

রিপোর্টার : সোহমের অজানা কোনও অভ্যাস?

সোহম : আমার দর্শকরা তো আমায় অনস্ক্রিন দেখেন,তবে তাছাড়া যারা আমায় জানেন তারা বুঝে গিয়েছেন সোহম কী, ভালো ছেলে হয়ে থাকারই চেষ্টা করি | হ্যাঁ, তবে হয়তো একটু বেশি ইমোশনাল,আবার একটু বদরাগীও |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here