‘ইন্ডাস্ট্রিতে থাকতে গেলে সবসময় ঘাড় বেঁকিয়ে ইয়েস ম্যাম বলতে হবে’-সানি লিওন

বলিউডে আপাতত আইটেম কুইন হিসেবে বিখ্যাত সানি লিওন।  পর্নগ্রাফির দুনিয়া কাটিয়ে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতেও জাঁকিয়ে বসেছেন তিনি। একজন পর্নস্টারের এই ইন্ডাস্ট্রির সফর ঠিক কী রকম ছিল?

সম্প্রতি একটি  সাক্ষাৎকারে সানি লিওন তাঁর বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশ করার পর থেকে আজ অবধি হওয়া অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন সর্বসমক্ষে। তিনি জানান,’আমাকে গাইড করার বেশি লোক ছিল না। আমি যেটা দেখেছি ইন্ডাস্ট্রিতে বহু জায়গায় ইয়েস ম্যাম, বলে যেতে হয়। প্রথমে সবাই বলে দারুণ সুযোগ পেয়েছ। তারপর কাজটা না হলে বলে, আগেই তো বলেছিলাম এটা করো না।’

এছাড়াও কিছুটা পরোক্ষভাবে নেপোটিজম নিয়েও কথা বলেন অভিনেত্রী। কিছুটা ইঙ্গিত দিয়েই স্বীকার করেন এই ইন্ডাস্ট্রিতে নেপোটিজমের রাজ চলে। অভিনেত্রীর কথায়,’আমি যতটা এখানে থেকে শিখেছি,কোন তারকার হাত পিছনে না থাকলে বা কোন নামী পদবি না থাকলে এই ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকা খুব মুশকিল। আমি যখন প্রথম পা রাখি বলিউডে,সেই থেকে আজ অবধি অনেক কিছু শিখেছি। এবং আমি আজ অবধি কেরিয়ারে যা করতে পেরেছি তাতে খুব সুখে আছি। আমি খুব খুশি আমার জীবনে। ভগবানকে অনেক ধন্যবাদ যে আমি সারাবছর ব্যস্ত থাকতে পারি কাজে। আগের বছরের মত এবছরও বছরের প্রথমেই গোটা বছরের বুকিং শেষ।’

প্রসঙ্গত,পর্নগ্রাফির কেরিয়ার থেকে বেরিয়ে প্রথম হিন্দি টেলিভিশন দিয়েই কেরিয়ার শুরু করেছিলেন সানি। প্রথম টেলিভিশনের অন্যতম জনপ্রিয় শো ‘বিগ-বস’-এ প্রতিযোগী হয়ে এসেছিলেন তিনি। এরপর বলিউডে ডেব্যু করেন জিসম-২ ছবির মাধ্যমে। তারপর থেকে আজ অবধি পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি অভিনেত্রীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here