শর্টস পরে হিমালয়ে‚ স্যুইমস্যুটে মেরু প্রদেশে‚ খালি গায়ে বরফে বসে থাকেন রহস্যময় ‘তুষারমানব’

শর্টস পরে হিমালয়ে‚ স্যুইমস্যুটে মেরু প্রদেশে‚ খালি গায়ে বরফে বসে থাকেন রহস্যময় ‘তুষারমানব’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

ভারতে থাকলে তাঁর নাম নির্ঘাৎ হত তুষারবাবা | পাশ্চাত্যে হয়েছে আইসম্যান | তিনি হল্যান্ডের বাসিন্দা উইম হফ | গত ২০ বছর ধরে ঠান্ডাকে কার্যত বৃদ্ধাঙ্গুষ্ঠ দেখাচ্ছেন তিনি | কখনও শুধু সাঁতারের পোশাক পরে ভেসে থাকছেন উত্তর মেরুতে‚ বরফের চাদরের নীচে | কখনও আবার শর্টস পরে ট্রেক করছেন হিমালয়ে |

বছর সাতাশ আগে নিজের আজব ক্ষমতা আবিষ্কার করেন উইম | বাড়ির কাছে পার্কে দাঁড়িয়েছিলেন‚ তুষারপাতে | কোনও গরম পোশাক ছাড়াই | ধীরে ধীরে বুঝতে পারলেন তাঁর আরাম লাগছে | এমনকী জামা খুলে ফেলার পরেও কিছুমাত্র অসুবিধে হল না |

এরপর ক্রমাগত নিজের রেকর্ড নিজেই ভেঙে চলেছেন ৫৫ বছর বয়সী এই যোগী | শর্টস পরে হিমালয়ে হাঁটাহাঁটির পাশাপাশি খালি পায়ে ঘুরে বেরিয়েছেন মেরু প্রদেশে | তাঁর শারীরিক ক্ষমতার রহস্য ভেদ করতে পারনেনি চিকিৎসকরা | উইম নিজে বলছেন‚ তাঁর তুষারজয়ের চাবিকাঠি যোগশাস্ত্র | প্রাচীন হিমালয়ের ধ্যান বলে পরিচিত ‘টুম্মো‘ তাঁকে শক্তি দেয় শীতলতাকে প্রতিহত করার | তিনি মনের ইচ্ছাশক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাড়িয়ে ফেলেন দৈহিক তাপমাত্রা | ফলে বরফের স্তূপের উপর ঠায় খালি গায়ে বসে থাকলেও তাঁর ঠান্ডা লাগে না |

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

pandit ravishankar

বিশ্বজন মোহিছে

রবিশঙ্কর আজীবন ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের প্রতি থেকেছেন শ্রদ্ধাশীল। আর বারে বারে পাশ্চাত্যের উপযোগী করে তাকে পরিবেশন করেছেন। আবার জাপানি সঙ্গীতের সঙ্গে তাকে মিলিয়েও, দুই দেশের বাদ্যযন্ত্রের সম্মিলিত ব্যবহার করে নিরীক্ষা করেছেন। সারাক্ষণ, সব শুচিবায়ু ভেঙে, তিনি মেলানোর, মেশানোর, চেষ্টার, কৌতূহলের রাজ্যের বাসিন্দা হতে চেয়েছেন। এই প্রাণশক্তি আর প্রতিভার মিশ্রণেই, তিনি বিদেশের কাছে ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের মুখ। আর ভারতের কাছে, পাশ্চাত্যের জৌলুসযুক্ত তারকা।