শান্তিদূত হয়ে নিজের বাহনে পাকিস্তান পাড়ি দিয়ে অসাধ্যসাধনের স্বপ্ন কলকাতার রিকশাচালকের

209

হঠাৎ কেন শিরোনামের চমক কাড়লেন গড়িয়ায় টালির ঘরে থাকা দিন আনা দিন খাওয়া একজন রিকশাচালক সত্যেন দাস ?

নাকতলার বাসিন্দা সত্যেন এর আগেও মানুষের নজরে এসেছিলেন কোলকাতা থেকে নিজের রিকশায় করে লাদাখ থেকে ঘুরে এসে | কলকাতার সিনেমা পরিচালক ইন্দ্রাণী চক্রবর্তীর সত্যনকে নিয়ে বানানো ‘ লাদাখ চলে রিকশাওয়ালা ‘ তথ্যচিত্র বিশেষ সম্মানে ভূষিত হয়েছিল | পেয়েছিল শ্রেষ্ঠ এক্সপ্লোরেশন বা অ্যাডভেঞ্চার সিনেমার খেতাব |

আর দশজন শান্তিপ্রিয় মানুষের মতই পাকিস্তান ও ভারতবর্ষের রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলার বলি হোক হাজার হাজার সাধারণ মানুষ-তা চান না সত্যেন | তাই ঠিক করে ফেলেছেন এবারে মৈত্রীর বার্তা পাকিস্তানে পৌঁছে দিতে রিকশা নিয়েই পাড়ি দেবেন পাকিস্তানে | আজকের দিনে যেখানে যেকোনও ভারতীয়ই পাকিস্তানে যাওয়ার কথা ভাবলেই বিপদের অশঙ্কাতেই পিছিয়ে আসবেন, সেই অবস্থাতেই দাঁড়িয়ে সত্যেন নিয়ে ফেলেছেন এই সাহসী সিদ্ধান্ত | রিকশা নিয়ে ওয়াঘা সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানের লাহোরে পৌঁছে যেতে চান তিনি | একজন ভারতীয় হয়ে, একজন রিকশাচালক হয়ে পাকিস্তানের মানুষকে বোঝাতে চান “তোরা যুদ্ধ করে করবি কী তা বল ?”

কিন্তু এ তো আর এপাড়া থেকে ওপাড়া যাওয়া নয়! সীমান্ত পেরিয়ে এক দেশ থেকে আরেক দেশে যাওয়া | তার জন্য প্রয়োজন ভিসার, প্রয়োজনীয় নথিপত্রের | কিন্তু সত্যেন কি আদৌ ভিসা পাবেন? মৈত্রীর বার্তা প্রেরণ করার জন্য কি সত্যেনকে যেতে দেওয়া হবে পাকিস্তানে, যেখানে হতে পারে তাঁর প্রাণসংশয়? সেসব নিয়ে একবারেই চিন্তিত নন তিনি | কারণ তিনি মনে করছেন শান্তির বাণী প্রচার করার জন্য যদি তাঁকে ভিসা না দেওয়া হয়, যদি তাঁকে প্রবেশপথ খুলে দেওয়া না হয়, তবে আর কার জন্যেই বা খোলা হতে পারে প্রবেশপথ! সরল বিশ্বাসে ভর করে প্রবল আত্মবিশ্বাসী সত্যেন ভাবছেন ভিসা তিনি হাতে পাবেনই পাবেন | তাঁর পরিকল্পনা অনুযায়ী সবকিছু ঠিকঠাক চললে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহেই শুরু হবে রিকশায় করে তাঁর পাকিস্তান যাত্রার অভিযান |

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন লাহোরে পৌঁছে সেখান থেকেই করাচি | দেখা করবেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে | জানাবেন যেন তিনি নিজে আরেকটু জোর দিয়ে প্রচেষ্টা করেন দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনার | বিশ্বাসে ভর করে যুদ্ধহীন এক শান্তিপূর্ণ পৃথিবীর স্বপ্ন বুনছেন সত্যেন | নিজের মৈত্রী বার্তার বাহক চিহ্ন হিসেবে নিজের বাহন রিকশাটিকেই পাকিস্তানেই রেখে দিয়ে আসবেন বলেও ঠিক করে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই |

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যাঁরা যথেষ্ট টাকার অভাবে নিজের ভ্রমণের স্বপ্নকে বাক্সবন্দি করে রেখে দেন | কিন্তু সত্যেন তাঁদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছেন ইচ্ছেটাই মানুষের স্বপ্নপূরণের সবথেকে বড় অনুপ্রেরণা হয়ে উঠতে পারে | যখন শিক্ষিত‚ বাস্তববুদ্ধি সম্পন্ন মানুষেরা সত্যেনের এই আকাশকুসুম ইচ্ছে নিয়ে বিদ্রুপ করছেন‚ তখনই অভিযানের যোগাড়যন্ত্র করতে লেগে পড়েছেন তিনি | নিজেকে সাধারণ মানুষের প্রতিনিধি ও মানবতার প্রতিনিধি হিসেবে জিতিয়ে দিতে মৈত্রীর বার্তা প্রচার করার জন্য পাকিস্তানে যাওয়ার আশায় আশায় বুক বাঁধছেন কলকাতার রিকশাচালক সত্যেন দাস |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.