শুধু স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়াই নয়‚ তা কখন খাচ্ছেন সেটাও সমান জরুরী; জেনে রাখুন কোন খাবার কখন খাবেন

আজকাল অনেকেই স্বাস্থ্যকর খাবার খান | কিন্তু কোন সময় এই হেলদি খাবার খাচ্ছেন সেটাও কিন্তু সমান জরুরী | আজকে রইলো কিছু সাধারণ খাবার‚ এবং তা কখন খাবেন তার তালিকা |

ভাত : ভাত খাওয়ার সঠিক সময় হলো রাত | কারণ এটা সহজেই হজম করা যায় | এছাড়াও ভাত খেলে ভালো ঘুম হয় | কিন্তু কতটা ভাত খাচ্ছেন তা অত্যন্ত জরুরী | এক কাপের বেশি ভাত খাওয়া উচিত নয় | এছাড়াও রাত ন’টার মধ্যে খেয়ে নিতে হবে |দুপুরে ভাত খাওয়া একদম উচিত নয় কারণ ঘুম পাবে | এছাড়ো ভাত খাওয়ার ফলে হঠাৎ করে শরীরে চিনির মাত্রা বেড়ে যায় | এর ফলে শরীর ক্লান্ত লাগে এবং কাজ করতে অনীহা আসে |

দই : দই খাবার সঠিক সময় হলো দিনের বেলা | কারণ দই অন্য খাবার হজম করতে সাহায্য করে | এছাড়াও এটা একটা প্রোবায়োটিক খাবার যা অন্ত্র কে শক্তি যোগায় |রাতেও দই খাওয়া যেতেই পারে | কিন্তু যাদের সহজেই সর্দি কাশি হয় তাদের জন্য রাতে দই খাওয়া ক্ষতিকর হতে পারে | দই শরীর ঠান্ডা করে তাই আপনার সর্দি আরো বেড়ে যেতে পারে |

চিনি : চিনি সব সময় সকালে খাওয়া উচিত | কারণ আমাদের শরীরে উপস্থিত ইনসুলিন সকালেই চিনি কে ভালোভাবে ব্যবহার করতে পারে | এছাড়াও সকালে চিনি কে সহজেই হজম করতে পারে আমদের শরীর‚ কারন দিনের বেলায় মেটাবলিসম রেট অনেক বেশি থাকে |রাতে চিনি খেলে শরীরে হঠাৎ করে শক্তির সঞ্চালন হতে পারে | এর ফলে ঘুমের ব্যাঘাত হতে পারে |

কলা : কলা খাবার সঠিক সময় হলো দুপুরবেলা | কারণ কলাতে হাই ফাইবার থাকে যা অন্য খাবার হজম করতে সাহায্য করে | এছাড়াও কলা ন্যাচরাল অ্যান্টাসিডের কাজ করে | খুব সহজেই বুক জ্বালা এবং অম্বল কমিয়ে দেয় | এছাড়াও কলা খেলে শরীরে ধীরে ধীরে শক্তির সঞ্চালন হয় এবং অনেক্ষণ পেট ভরা থাকে | ওয়ার্ক আউটের আগে কলা খাওয়া যেতে পারে |রাতে কলা খেলে ঠান্ডা লেগে যেতে পারে |

ডাল : সকালে এবং দুপুরে | কারণ ডাল হজম হতে সময় লাগে |ডালে হাই ফাইবার থাকে ফলে হজম হতে সময় লাগে | তাই রাতে ডাল এড়িয়ে চলা উচিত | কারণে ঠিকমত হজম না হলে গ্যাসের সমস্যা দেখা দিতে পারে |

আখরোট : আখরোট খাওয়ার সঠিক সময় হলো রাতে শুতে যাওয়ার আগে | আখরোট খেলে শরীরে মেলাটোনিন বলে এক হরমোন তৈরি হয় যা ঘুমোতে সাহায্য করে |দিনের যে কোন সময় খেতে পারেন | এতে অমেগা-৩‚ অ্যান্টি ওক্সিডেন্ট‚ ভিটামিন বি আছে |

চিজ : সব সময় সকালে খাওয়া উচিত | বেশি মাত্রায় প্রোটিন থাকায় নিরামিশাষীদের জন্য খুব ভালো | এতে ক্যালসিয়াম ও আছে |রাতে চিজ না খাওয়াই উচিত | কারণ চিজ সহজে হজম হয় না | তাই বদহজম ছাড়াও রাতে চিজ খেলে মোটা হওয়ার সম্ভবনাও বেড়ে যায় |

দুধ : দিনে বা রাতে যে কোন সময় খেতে পারেন | তবে রাতে শুতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস দুধ খেলে ঘুম ভলো হবে |কফি : সকাল বা দুপুরে কফি খওয়া উচিত | কারণ কফিতে ক্যাফেন থাকে যা শরীর কে শক্তি যোগায় |সন্ধে সাতটার পর কফি খাবেন না | এতে রাতে ভালো ঘুম হবে না | এছাড়াও কফি খেলে শরীর থেকে জল কমে যায় তাই বারবার জল তেষ্টা পাবে এবং বাথরুমেও যেতে হবে |

চেরি ফল : রাতে ডিনারের পর চেরি খাবার সব থেকে ভালো সময়  | চেরি খেলে শরীরে মেলাটোনিন নামের হরমোন তৈরি হয় যা ঘুমোতে সাহায্য করে | যাদের অনিদ্রা রোগ আছে তাদের জন্য চেরি খুব উপকারী |তবে সকালে বা দুপুরে চেরি না খাওয়াই উচিত কারন সহজেই ঘুম পাবে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here