এক ব্রিটিশ কর্নেল নাকি প্রাণে রক্ষা পেয়েছিলেন মহাদেবের কৃপায় | স্বয়ং দেবাদিদেব আবির্ভূত হয়ে বাঁচিয়েছিলেন তাঁকে | পরে কৃতজ্ঞতাস্বরূপ তিনি পুনর্নির্মাণ করে দেন এক জাগ্রত মন্দিরের |

Banglalive

সে ইতিহাস জানতে ফিরে যেতে হবে ব্রিটিশ ভারতে |

১৮৭৯ খ্রিস্টাব্দে লেফ্টেন্যান্ট কর্নেল মার্টিনকে ব্রিটিশ সেনাবাহিনী পাঠিয়েছিল আফগানিস্তান যুদ্ধে | তাঁর স্ত্রী এবং পরিবার ছিল হিমাচল প্রদেশে | স্ত্রীর সঙ্গে নিয়মিত চিঠিতে যোগাযোগ রাখতেন মার্টিন | জানাতেন যুদ্ধের হালচাল |

কিন্তু একসময় বন্ধ হয়ে গেল চিঠি | দীর্ঘদিন স্বামীর কোনও খবর না পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেন মার্টিনের স্ত্রী | স্থানীয়দের পরামর্শে তিনি গেলেন বৈজনাথে মহাকালের মন্দিরে |

ধর্মশালা থেকে প্রায় ৫০ কিমি দূরে কাংড়া উপত্যকায় এই শৈব তীর্থস্থান ভক্তদের মধ্যে খুবই সমাদৃত | পুরাণে কথিত‚ এই মন্দিরের শিবলিঙ্গ রাবণের সঙ্গে জড়িত |

পরম শৈব রাবণ কৈলাস পর্বতে তপস্যা-যজ্ঞে মহাদেবের উদ্দেশে তাঁর দশটি মাথাই উৎসর্গ করেন | সন্তুষ্ট শিব আবার তাঁকে ফিরিয়ে দেন দশানন | রাবণ শিবকে নিয়ে যেতে চান স্বর্ণলঙ্কায় | শিব বলেন‚ রাবণ তা পারবেন | কিন্তু তিনি যে শিবলিঙ্গের রূপ ধারণ করবেন সেটিকে একবারও ভূমিতে নামানো যাবে না |

সেই শর্তে রাবণ নিয়ে চলেন মহাদেবকে | পথে হিমাচলের বৈজনাথে এসে তিনি বাধ্য হন প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে | সামনেই এক রাখাল বালককে দেখে তাকে ধরতে দেন শিবলিঙ্গ | কিন্তু ওই ভার রাখতে না পেরে সে তা ভূমিতে নামিয়ে ফেলে | অনেক পৌরাণিক সূত্র বলে‚ ওই রাখাল আসলে ছিল গণেশের এক রূপ | এভাবেই দেবতারা ছল করে মহাদেবকে স্বর্ণ লঙ্কায় নিয়ে যাওয়া আটকে দেন |

সেই থেকে মহাদেব বৈজনাথে অধিষ্ঠিত | তিনি পূজিত হন অর্ধনারীশ্বর রূপে | তবে ঐতিহাসিক তথ্য বলে‚ এই মন্দির নির্মিত হয়েছিল ১২০৪ খ্রিস্টাব্দে শক শাসকদের আমলে |

যাই হোক‚ এই জাগ্রত মন্দিরে এসে ১১ দিন ধরে শিবের উপাসনা করলেন ব্রিটিশ কর্নেল মার্টিনের স্ত্রী | এর পরে একদিন এল তাঁর স্বামীর বহু প্রতীক্ষিত চিঠি | লিখেছেন‚ পাঠানদের হানায় একেবারে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন তাঁরা | পালানোর কোনও পথই ছিল না |

কিন্তু এর পরেই আশ্চর্য ঘটনা !

আবির্ভূত হন এক রহস্যময় যোগীমূর্তি | বাঘছাল পরা ত্রিশূলধারী সেই যোগীর তাণ্ডবে পাঠানরা পিছু হটতে বাধ্য হয় | রক্ষা পান ব্রিটিশ কর্নেল এবং তাঁর বাহিনী |

হিমাচলে ফিরে স্ত্রীর সঙ্গে বৈজনাথ মন্দিরে যান কর্নেল | সেখানে গিয়ে তিনি হতভম্ব হয়ে পড়েন | এ কী দেখছেন তিনি ! এই তো সেই যোগী যিনি উদ্ধারকর্তা হয়ে এসেছিলেন তাঁর কাছে ! তবে কি মহাদেব স্বয়ং আবির্ভূত হয়েছিলেন আর্তকে রক্ষা করতে ?

কৃতজ্ঞ কর্নেল মন্দিরে প্রচুর অনুদান দেন | পুনর্নির্মাণ করে দেন মন্দিরের | এটাই ভারতের একমাত্র মন্দির যেটির পুনর্নির্মাণ করেছিলেন কোনও ব্রিটিশ কর্নেল | শৈব এই মন্দিরে পাথরে খোদাই করে রচিত আছে সে কথা |

আরও পড়ুন:  মহাত্মা গান্ধী ও জিন্না দুই বিপরীত মেরুর নেতারই রাজনৈতিক গুরু ও আদর্শ ছিলেন এই চিৎপাবনী ব্রাহ্মণ

NO COMMENTS