দাঁত ব্রাশ করার সময় মেলে চলুন এই পদ্ধতিগুলি!

দাঁতের যত্ন নেওয়া স্বাস্থ্যকর অভ্যাস। তবে যে উপায়ে দাঁতের যত্ন নিচ্ছেন, সেই পদ্ধতিটি সঠিক তো! অনেক সময় আমরা ছোটদেরও দাঁত ব্রাশ করার কথা বলি, নানা রকম যত্নের উপায় শেখাই। কিন্তু আমরা যেভাবে দাঁতের যত্ন নেই তা সঠিক পদ্ধতি কিনা তা জেনে নেওয়া প্রয়োজন। কারণ, সঠিক পদ্ধতিতে দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতের আয়ু বৃদ্ধি পায়।

তাই দাঁতের যত্ন নেওয়ার জন্য সব সময় উন্নতমানের টুথব্রাশ ব্যবহার করুন। উন্নতমানের টুথব্রাশ মানেই যে তা দামী হতে হবে তা নয়। বাজারে এরকম অনেক দামী ব্রাশ কিনতে পাওয়া যায়, যেগুলো উন্নতমানের টুথব্রাশ নয়। শক্ত ব্রিসলের ব্রাশ ব্যবহার করা দাঁতের জন্য খারাপ। ব্রাশ কেনার সময় নজর রাখুন ব্রাশের ধরনের উপর। প্রয়োজনে কেনার আগে পরামর্শ নিন চিকিৎসকের।

ব্রাশ করার সময় খুব চাপ দিয়ে ব্রাশ করবেন না। ব্রাশ করার সময় বেশি চাপ দিলে দাঁতের উপর অধিক চাপ পড়ে যা দাঁতের জন্য ক্ষতিকর। তাই ব্রাশ করার সময় মাত্র দুটি বা তিনটি আঙ্গুলের বেশি ব্যবহার করবেন না।

খাবার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ব্রাশ করবেন না। এর ফলে দাঁতের এনামেল ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তাই সব সময় খাবার খেয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। তার চেয়ে ভাল করে কুলকুচি করে মুখ ধুয়ে নেওয়াই যথেষ্ট।

এক একজনের দাঁতের ধরণ এক এক রকমের হয়। প্রত্যেকেরই দাঁতের ধরন ভিন্ন। তাই দাঁতের সমস্যা বুঝে টুথপেস্ট বাছুন। এক্ষেত্রে বিজ্ঞাপনী চমক বা ব্র্যান্ডে না ভুলে  পরামর্শ নিন চিকিৎসকের।

ব্রাশ করার সময় তাড়াহুড়ো করবেন না, একটু সময় নিয়ে যত্ন করে ব্রাশ করুন। আপনার মুখের ভিতরের অংশটিকে চারটি ভাগে ভাগ করুন এরপর প্রত্যেকটি ভাগকে ৩০ সেকেন্ড করে সময় দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here