নির্মম ভাবে অজ্ঞান করা ওরাংওটাং-কে স্যুটকেসে ভরে পাচার

246

নিরাপত্তার ঘেরাটোপ কড়া হলেও পশুপাখিরা যে কতখানি সুরক্ষিত তা নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে ক্রমাগত পশুপাখি পাচারকারীদের পাচারের মরিয়া প্রচেষ্টা | আবারও বালি থেকে একটি ওরাংওটাং পাচার করতে গিয়ে ধরা পড়লেন এক রাশিয়ান ব্যক্তি |

আন্দ্রেই জেস্তকভ নামে ওই পাচারকারী মার্চ মাসের ২২ তারিখে বালির গুরাহ রাই বিমানবন্দরে স্যুটকেসে ভরা ওরাংওটাং-সহ ধরা পড়েন | কনজারভেশন অফিসার কেতুত কাটুর মারবাওয়া জানান আন্দ্রেইয়ের স্যুটকেস থেকে আরও দুটি গেকো (টিকটিকি প্রজাতির প্রাণী)‚ পাঁচটি গিরগিটি‚ এবং প্লাস্টিকে মোড়া অ্যালার্জির ওষুধ পাওয়া গেছে | কোয়ারান্টিন অফিসের মুখ্য সদস্য দেওয়া দালানাতা জানান ওরাঙ্গুটানটিকে অজ্ঞান করার জন্য আন্দ্রেই যে পদ্ধতি ব্যবহার করেছেন তা অত্যন্ত অমানবিক | দু-তিন ঘন্টার জন্য অজ্ঞান রাখার জন্য অ্যালার্জির ওষুধ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ানো হয় | প্রথমে ওরাংওটাংটিকে অফিসাররা বাঁদর মনে করেছিলেন | তাঁরা এই ভেবে ভয় পাচ্ছিলেন যে বাক্সবন্দি থাকার জন্য বাঁদরটি রেগে থাকলে স্যুটকেস খোলার সঙ্গে সঙ্গেই ছাড়া পেয়ে ছুটোছুটি করতে থাকবে | তাই সঠিকভাবে পরীক্ষা করার জন্য তাঁরা স্যুটকেসটি একটি আলাদা ঘরে নিয়ে যান এবং সেখানে পরীক্ষা করার পর দেখা যায় জন্তুটি বাঁদর নয়, আদতে একটি ওরাংওটাং |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.