অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার প্রবণতা কমাতে মেনে চলুন সহজ এই উপায়গুলি

1356

অনেক সময় এমন হয়েছে, খিদে নেই, কিন্তু ফ্রিজ খুলতেই চোখে পড়ল কিছু লোভনীয় খাবার, অমনি খেয়ে নিলেন খানিকটা। বা হয়তো টেলিভিশন বা ইউটিউবে কিছু লোভনীয় পদ রান্নার ভিডিও দেখে, অর্ডার করে বাড়িতেই আনিয়ে নিলেন কিছু খাবার। এমনটা কম-বেশি অনেকের সঙ্গেই হয়ে থাকে। তবে অনেকেই এইভাবে আবেগের বশে খাবার খাওয়ার সময়ে ক্যালোরির কথা ভুলেই যান। কোনও কিছু না ভেবেই হয়তো কেবলমাত্র আবেগ-তাড়িত হয়ে খেয়ে ফেলেন অতিরিক্ত ফ্যাট বা ক্যালোরি জাতীয় খাবার। তবে আবেগের বশে অতিরিক্ত খাওয়া নিয়ন্ত্রণ করার কিছু উপায় রয়েছে। জেনে নিন সেগুলি কি কি…

১) অনেকসময়ে কর্মক্ষেত্রে কাজের চাপ থাকলে মানসিকভাবেও অনেকটা চাপ অনুভব হয়। একটানা কাজ করতে করতে তাই মুখোরোচক কিছু খেতে মন চায়। এইজন্য অনেকসময়ে ভাজা-ভুজি জাতীয় খাবার খাওয়া হয়ে যায়। এর জন্য যেটা করা দরকার তা হল স্ট্রেসকে দূরে রাখা। সেইজন্য সাহায্য নেওয়া যেতে পারে বিভিন্ন স্ট্রেস ম্যানেজমেন্ট টেকনিকের। তাছাড়া যথাযথ যোগব্যায়াম এবং মেডিটেশনের সাহায্যেও মানসিক চাপ কমানো যেতে পারে।

২) কী খাচ্ছেন- সেবিষয়ে একটু সচেতন থাকা প্রয়োজন। খিদে পেলে তবেই খাচ্ছেন, নাকি খাবার দেখে খিদে পাচ্ছে সেই বিষয়টা বোঝার চেষ্টা করুন। খুব ভাল হয়, যদি আপনার প্রতিদিনের স্বাভাবিক খাদ্যাভ্যাসের একটা তালিকা তৈরি করা যায়। এইবার সেই তালিকা মেনে যদি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন, তাহলে এর বাইরে আবেগের বশে খাবার খাওয়ার প্রবণতা কমবে।

৩) কেন অতিরিক্ত খাওয়া হয়ে যাচ্ছে, তার কারণটি খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। আপনার কি মন খারাপ হলে খিদে পায়, নাকি যখন কোনও কারণে রেগে থাকেন তখন খিদে পায়। এই বিষয়টি খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন। তাহলেই দেখবেন আবেগ-তাড়িত হয়ে খাওয়ার প্রবণতা খানিকটা হলেও কম হবে।

৪) লোভ নিয়ন্ত্রন করতে শিখুন। আবেগের বশে খাওয়ার প্রবণতা থাকলে বাড়িতে কখনওই অতিরিক্ত জাঙ্ক খাবার স্টক করে রাখবেন না। সেইসঙ্গে বাড়িতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফল এবং কম ফ্যাট, কম-ক্যালোরি যুক্ত খাবার রাখুন। খিদে না পেলে খাবেন না-এমন ভাবতে শিখুন। তাহলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব।

৫) আবেগের বশে খাওয়ার অভ্যেস দূর করতে পারে আপনার সৌন্দর্য-সচেতন মানসিকতা। সৌন্দর্য বিষয়ে সচেতন হলে তার প্রভাব আপনার খাদ্যাভ্যাসেও পড়বে। কারণ সুন্দর থাকতে বা ভাল থাকতে হলে সব খাবার ইচ্ছে হলেই খাওয়া যাবে না-এই মানসিকতা থেকেই আবেগের বশে খাবার খাওয়ার প্রবণতা কমবে।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.