বাতের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে ডিমের খোসা‚ জানেন আরও কত গুণ এর?

9072

দু’বেলা ডিম পাতে পড়লে খুশি হন না এমন মানুষ কমই আছেন। বিশেষ করে বাচ্চারা অন্যান্য খাবারের চেয়ে ডিম বা ডিম দিয়ে তৈরি খাবারই বেশি পছন্দ করে। যেমন, ওমলেট, এগরোল, স্যান্ডুইচ, ফ্রেঞ্চ টোস্ট, ডিমের কারি আরও কত্তো কি। বিশ্বজুড়ে ডিমের চাহিদা এতটাই, ফ্রিজ নির্মাতারা আলাদা করে ডিম রাখার জায়গার কথা ভাবতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু ডিমের মতোই ডিমের খোসাও যে নানা রকম প্রয়োজনে আসতে পারে, জানতেন? কারণ, ডিমের খোসায় রয়েছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড, কোলাজেন। এই সব যৌগ শরীরের নানা ব্যাধি, মূলত ব্যথা-বেদনা কমাতে কাজে আসে। আবার ডিম কেবল খাদ্য হিসাবেই নয়, রূপচর্চা সহায়ক নানা কারণেও গৃহস্থের ঘরে এর অবাধ যাতায়াত। আর কী কী কাজে লাগে ডিমের খোসা?

জেনে নিন, ডিমের খোসাকেও কী ভাবে আপনার কাজে লাগাতে পারেন—-

#বাসনের পোড়া দাগ দূর করতেও ডিমকে কাজে লাগান। বাসন ধোওয়ার সাবানের সঙ্গে ডিমের খোসা গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। পোড়া দাগ গায়েব হবে সহজে।

#কোনও কারণে চা বা কফি খুব ফুটিয়ে ফেলেছেন? তেতো হওয়ার ভয়ে ফে‌লে দেবেন না। ডিম ভেঙে তার খোসা ধুয়ে বড় টুকরোয় ভেঙে ছড়িয়ে দিন চা বা কফিতে। তারপর আরও একবার ছেঁকে নিন চা। ডিমের খোসার হায়ালুরোনিক অ্যাসিড টেনে নেবে তেতো ভাব।

#ডিমের খোলায় রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম কার্বনেট, ম্যাগনেশিয়াম ও ক্যালসিয়াম। তাই বাগান চর্চাতেও কাজে লাগাতে পারেন নির্দ্বিধায়। বা়ড়ির বাগানে বা কোনও গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচবে গাছ।

#বাত বা গাঁটের ব্যথা কমিয়ে আরাম দেয় ডিমের খোসা। আপেল সাইডার ভিনিগারের সঙ্গে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে দিন দুই রেখে দিন। গলে মিশে যাবে খোসা। এই মিশ্রণ লাগান ব্যথার জায়গায়। ব্যথা কমে আরাম পাবেন।

#ত্বক পরিচর্যাতেও ডিমের খোসা খুব কার্যকর। ডিমের সাদা অংশে ডিমের খোসা গুঁড়ো করে মিশিয়ে দিন। আপনার দরকারি ফেস প্যাক তৈরি। এ বার তা মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট মতো লাগিয়ে রেখে হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন। মুখে পুরনো দাগ বা ব্রণর সমস্যা থাকলে এই প্যাক সহজ সমাধান।

#রান্নাঘরের সিঙ্কে ময়লা জমেছে? ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। খোসা টেনে নেবে সব ময়লা। আধঘণ্টা পরে গরম জল ঢেলে দিন। সিঙ্কের ময়লা গায়েব।

#বাড়ির পোষা কুকুরটি পুষ্টির অভাবে নেতিয়ে পড়ছে? ওর খাবারে ডিমের গুঁড়ো মিশিয়ে দিন। মেশানোর আগে ডিমের খোলা ২৫০ ডিগ্রি তাপে শুকিয়ে নেবেন। তারপর গুঁড়িয়ে নেবেন মিহি করে।

#ডিমের খোলায় রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম কার্বনেট, ম্যাগনেশিয়াম ও ক্যালসিয়াম। বা়ড়ির বাগানে বা কোনও গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচবে গাছ।

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.