২০১৬ সালে জম্মু ও কাশ্মীরের পেম্পোরে জঙ্গি হামলায় নিহত সিআরপিএফ জওয়ানদের মধ্যে একজন ছিলেন বীর সিং।  শহিদ এই জওয়ান ছিলেন নট সম্প্রদায়ের। বীর সিং ছিলেন তাঁর পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী সদস্য । ১৯৮১ সালে সিআরপিএফ-তে যোগদান করেছিলেন তিনি।

দেশের স্বার্থে শহিদ হওয়া জওয়ান, দলিত সম্প্রদায়ের বলে অন্তিম সৎকারের জন্য সামান্য জায়গা দেয়নি স্থানীয় উচ্চবর্ণের মানুষরা। গ্রামের শ্মশানে তাঁর অন্ত্যেষ্টির জন্য আপত্তি উঠেছিল । শেষে ফিরোজাবাদ এর ডিএম এর হস্তক্ষেপে সরকারি জায়গায় বীর সিং-এর অন্তিম সৎকার করা হয়।

সমাজের জাতিভেদ প্রথা এতটাই মুখ্য ছিল যে শহিদকে শেষ শ্রদ্ধাঞ্জলি অবধি জানাতে আসেননি কোনও গ্রামবাসী। পরবর্তী সময়ে শহিদ কনস্টেবল বীর সিং-এর মূর্তি গড়ে তোলার দাবিতেও আপত্তি জানানো হয় কিন্তু সরকারি হস্তক্ষেপে দীর্ঘকালের আলোচনার পর গ্রামবাসীরা রাজি হয়েছিলেন এবং গ্রামে শহিদ কনস্টেবল বীর সিং-এর মূর্তি গড়ে তোলা হয়।

Banglalive-8
আরও পড়ুন:  অন্ধকারই বাঁচাবে ফোনের ব্যাটারির চার্জ

NO COMMENTS