২০০০ বছরের প্রাচীন ফসিলের রেসিপিতে তৈরি পাউরুটি এ বার হাজির কলকাতায়

484

৭৯ খ্রিস্টাব্দে ভিসুভিয়াসের অগ্ন্যুৎপাত ছাই আর পাথরে ঢেকে দিয়েছিল বে অফ নেপলস-এর একাধিক শহরকে | সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল সবথেকে সমৃদ্ধ নগরে‚ পম্পেই | যার নাম আর ধ্বংসলীলা এখন সমার্থক | ভিসুভিয়াস আগ্নেয়গিরির এই লাভা উদগীরণকে বলা হয় প্রাচীন পৃথিবীর ভয়ঙ্করতম প্রাকৃতিক বিপর্যয় | 

আজ থেকে ২০০০ বছর আগে অগস্টের এক ঝলমলে দুপুরে শুরু হয় আচমকা অগ্ন্যুৎপাত | মাত্র ২৪ ঘণ্টায় পম্পেই‚ হার্কেউলিনিয়াম‚ স্তাবিয়ে‚ ওপ্লোন্তিস‚ বস্কোরিয়েলের মতো নগরী সম্পূর্ণ ধ্বংস্তূপে পরিণত হয়েছিল | চাপা পড়েছিল আগ্নেয়গিরির লাভা থেকে তৈরি ছাই আর পাথরে | 

দীর্ঘ কয়েকশো বছর ধরে পম্পেই চাপা পড়েছিল মাটির নিচে | এর অস্তিত্ব ছিল ইতিহাসের পাতায় | জনশ্রুতি আর কিংবদন্তিতে | ষোড়শ শতকের শেষ দিকে আধুনিক বিশ্বের সামনে পম্পেই-এর উপর থেকে উঠে যায় পর্দা | বিস্মিত দৃশ্যে বিশ্ব দেখে প্র্স্তরীভূত নগরীর কঙ্কাল |

সময় যত এগিয়েছে আধুনিক প্রযুক্তি অনুসন্ধান ও গবেষণাকে সমৃদ্ধ করেছে | এখনও অবধি পম্পেই নগরীতে ১৫০০ মানুষের প্রস্তরীভূত দেহ আবিষ্কার করা গেছে | তাঁরা যে অবস্থায় চিলেন ছাই চাপা পড়ে পাথরে পরিণত হয়েছেন | আবিষ্কৃত হয়েছে পম্পেই-এর বাড়িঘর রাজপথ স্নানঘর সমেত দৈনন্দিন জীবনের নানান টুকিটাকি |

হার্কেউলেনিয়াম সবার আগে চাপা পড়েছিল আগুনে কাদায় | পম্পেইকে শেষ করেছিল ছাইঝড় আর বড় বড় পাথরের চাঁই | ছাই-কাদা-পাথর মিলিয়ে আগ্নেয়গিরির বর্ষণে ৫০ ফিট আবরণের নিচে চলে গিয়েছিল সম্পন্ন এই রোমান নগরী | ফলে বাইরের সব রকম আঘাত‚ প্রাকৃতিক বা মানুষের‚ যেটাই হোক না কেন‚ রক্ষা পেয়ে এসেছে পম্পেই-এর চিহ্ন | আসবাবপত্র‚ পোর্ট্রেইট‚ মোজাইক‚ সব ধরা দিয়েছে প্রায় ২০০০ বছর আগের রূপেই |

অমানুষিক উত্তাপে বহু পম্পেইবাসী প্রাণ হারিয়েচিলেন | পরে তাদের দেহ গ্রাস করে ছাই কাদা আর পাথর | প্রস্তরীভূত কাঠামোর ভিতরে ক্রমে পচে যায় নিথর দেহ | রয়ে যায় পাথরের ফাঁপা কাঠামো |  

আরও অনেক কিছুর মতো অক্ষত আছে পম্পেই-এর পাউরুটি | যা ছিল বেকারির আভেনে | বেকারির ধ্বংসাবশেষ থেকে চারকোল‚ ছাই সরিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে দু হাজার বছর আগের ফসিল-পাউরুটি | অবিকল রয়েছে‚ যেমন ছিল | এমনকী একইরকম আছে পাউরুটির গায়ে বেকারির শিলমোহরও | যা নিশ্চিত করে গুণমান |

১৮৮০ সালে পম্পেই-এর এই বেকারি আবিষ্কৃত হয় | খুঁজে পাওয়া যায় বেকারি মালিক ও তাঁর স্ত্রীর পোর্ট্রেইটও | পরবর্তীকালে অন্য শহরের ধ্বংসাবশেষ থেকেও পাওয়া যায় পাউরুটি ও অন্য খাবারের ফসিল | দীর্ঘদিন ধরে তা সংরক্ষিত ছিল মিউজিয়মে | 

অবশেষে এতদিনে আধুনিক প্রযুক্তি উদ্ধার করেছে ২০০০ বছরের প্রাচীন এই পাউরুটির উপাদান ও রেসিপি | এবং কলকাতার এক নামী বিপণির দাবি‚ তারা সেই উপায়ে পাউরুটি বানিয়েও ফেলেছে | তাদের নিজস্ব বেকারিতে তৈরি হচ্ছে পম্পেই-এর পাউরুটি বা পানিস কোয়াদ্রাতাস ‘Panis Quadratus’ | কলকাতাবাসীর প্লেটে ওঠার অপেক্ষায় প্রাচীন রোমানদের খাস পাউরুটি | 

এর সঙ্গে ঝোলাগুড়ের কম্বো জনপ্রিয় হবে কিনা সেটা অবশ্য আগামী সময়ই বলবে |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.