খালি পেটে ফল খাওয়ার উপকারিতা অনেক। জেনে নিন কী কী…

বলা হয়, খালি পেটে ফল খাওয়া নাকি স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর। সকালে কিছু ভারি জলখাবার খেয়ে তারপরে ফল খাওয়া যেতে পারে। কিন্তু সাম্প্রতিককালে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে, প্রচলিত এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। বরং তাঁরা বলেন যে, খাবার খাওয়ার পরে ফল খেলে যে উপকারিতা তার থেকে অনেক বেশি উপকার পাওয়া যাবে যদি খালি পেটে ফল খাওয়া যায়। দেখে নেওয়া যাক খালি পেটে ফল খাওয়ার উপকারিতা কী…

* ঘুম থেকে ওঠার পর আমাদের মস্তিষ্কের মধ্যে থাকা কোষগুলিকে জাগিয়ে তুলতে শরীরে প্রচুর পরিমাণে শর্করার প্রয়োজন পড়ে। এই শর্করার জোগান দিতেই খালি পেটে ফল খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। খালি পেটে ফল খেলে একদিকে শরীরে যেমন শর্করার চাহিদা পূর্ণ হয়, তেমনই রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কাও কমে। ফলে ডায়াবেটিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম হয়।

* হৃদয় সুস্থ রাখতে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ফল থাকা জরুরি। আর নিয়মিত খালি পেটে ফল খেলে শরীরে প্রয়োজনীয় ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন এবং মিনারেলের মাত্রা বাড়তে শুরু করে, যা খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমানোর পাশাপাশি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই হার্টের অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা কম হয়।

*  অতিরিক্ত ওজনের কারণে যাঁদের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে তাঁরা নিয়মিত ব্রেকফাস্টে যদি ফল খান তাহলে ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব। কারণ ফলের মধ্যে থাকা একাধিক পুষ্টিকর উপাদান  শরীরের টক্সিন-জাতীয় উপাদান বের করে দিয়ে ওজন কমাতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে পেট অনেকক্ষণ ভর্তি থাকায় বারবার খাবার খাওয়ার প্রবণতাও কমে।

* গবেষণায় দেখা গিয়েছে ব্রেকফাস্ট করার ২০ মিনিট আগে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল খেলে, খাবারে উপস্থিত পুষ্টিকর উপাদানগুলি শরীরে বেশি মাত্রায় শোষিত হয়। ফলে শরীরের পুষ্টি হয়। সেই সঙ্গে রক্তাল্পতার মতো রোগের আশঙ্কা হ্রাস পায়।

* অনেকেই মনে করেন সকাল সকাল ফল খাওয়া মানেই অ্যাসিডিটির সমস্যা বাড়িয়ে তোলা। তবে এই ধারণা যে কতখানি ভুল তা উঠে এসেছে সাম্প্রতিক বেশকিছু গবেষনায়। বিশেষজ্ঞরা বলেন,  খালি পেটে ফল খেলে অ্যাসিড হওয়ার তো কোনও সম্ভাবনা থাকেই না, বরং শরীরে অ্যাসিড এবং অ্যালকালাইনের ভারসাম্য ঠিক হতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অ্যাসিডিটি এবং গ্যাস-অম্বলের সমস্যা কম হয়।

* ফলের মধ্যে থাকা প্রাকৃতিক শর্করা রক্তে মিশলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গের কর্মক্ষমতা বাড়ে, এবং সেইসঙ্গে মস্তিষ্কও সজাগ হয়ে ওঠে। ফলে সার্বিকভাবে শরীরের সচলতা বৃদ্ধি পায়। প্রসঙ্গত, একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে চা-কাফি খেলে এমন উপকার পাওয়া যায় না, বরং তাতে শরীরের ক্ষতিই হয় ।

* ফলের মধ্যে থাকা ফাইবার, শরীরে প্রবেশ করআর পর হজমে সাহায্যকারী পাচক রসের নিঃসরণ ঘটাতে সাহায্য করে। ফলে একদিকে যেমন হজমশক্তি বাড়ে, তেমনি কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যাও দূর হয়। তাই যাঁরা পেটের সমস্যায় ভুগছেন তাঁরা সকালের খাদ্যতালিকায় ফল রাখলে উপকার পাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here