শরীর সুস্থ রাখতে জেনে নিন কোন তেল শরীরের জন্য উপকারী…

আজকের যুগে বিজ্ঞাপনের হিরিকে কোনটা ভাল আর কোনটা খারাপ তা বোঝাই দায়। কারণ সবারই দাবি তাঁদের বিক্রিত তেলই সবথেকে ভাল। চিকিৎসকরা বলেন, খাবারে তেল যতটা কম পরিমাণে ব্যবহার করা যায় ততই ভাল। এখন জেনে নেওয়া যাক কোন তেল আপনার শরীরের পক্ষে অপেক্ষাকৃত ভাল।

* রাইস ব্র্যান অয়েল- রাইস ব্র্যান তেলের দুটি প্রধান গুণ রয়েছে যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ভাল। প্রথমত, এই তেল কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।  এই তেলে মোনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড থাকার ফলে এটি শরীর থেকে কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। দ্বিতীয়ত,  এতে রয়েছে ভিটামিন ই এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ভাল। এছাড়াও এতে থাকে ওরাইজনল যা হার্ট ভাল রাখতে সাহায্য করে।

* অলিভ অয়েল- হার্ট ভাল রাখতে অলিভ অয়েলের জুড়ি মেলা ভার। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এছাড়া,  কোলেস্টেরল কমাতে, বাতের ব্যথা নিরাময়ে, পার্কিনসন্স এবং অ্যালজাইমারস রোগের নিরাময়ে করে থাকে অলিভ অয়েল।

* সয়াবিন অয়েল- সয়াবিন অয়েলে থিয়ামিন, নিয়াসিন, ফলিক অ্যাসিড এবং রাইবোফ্লাভিন (ভিটামিন বি-টু) রয়েছে, যা হার্ট ও লিভারের সক্রিয় কার্যকলাপ বজায় রাখতে সাহায্য করে।

* সূর্যমুখী তেল- সূর্যমুখী তেল হাড় ভাল রাখতে খুবই সাহায্য করে। শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়াতে এবং শরীরকে দীর্ঘদিন কর্মক্ষম রাখতেও সূর্যমুখীর ভূমিকা অনন্য। এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, রান্নার জন্য সয়াবিন তেলের থেকে সূর্যমুখী বীজ থেকে পাওয়া তেল অনেকণ বেশি পুষ্টিগুণ সম্পন্ন।

* নারকেল তেল- দক্ষিণ ভারতে রান্নার প্রধান উপকরণ হলেও আমাদের মধ্যে নারকেল তেলে রান্না করার প্রচলন একেবারেই নেই। কিন্তু অনেকেই জানেন না, নারকেল তেল ব্যাকটেরিয়ার প্রতিরোধ করতে বিশেষভাবে সাহায্য করে | এছাড়াও শরীরে মেটাবলিজম বৃদ্ধি করতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ সাহায্য করে নারকেল তেল।

* সর্ষের তেল- তালিকায় সবথেকে শেষে থাকলেও সর্ষের তেলের গুণাগুণ নিয়ে আলাদা করে বলার কিছুই নেই। সর্ষের তেল খাবারের পরিপাকে বিশেষভাবে সাহায্য করে। এছাড়াও সর্ষের তেল মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট ও পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাটে সমৃদ্ধ বলে কোলেস্টরল ভারসাম্য রক্ষা করতে সাহায্য করে। এর ফলে কার্ডিওভাস্কুলার রোগের ঝুঁকি কমে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here