সাধারণত কোন সময়ে যোগব্যায়াম অভ্যাস করা শরীরের পক্ষে ভাল এই প্রশ্ন উঠলে সবার আগে মাথায় আসে সকালবেলার কথা। অনেকে আবার সন্ধ্যার পর ব্যায়াম করতে নিষেধ করেন। কারণ হিসেবে বলা হয়, সন্ধ্যার পর ব্যায়াম করলে রাতে ঘুমাতে সমস্যা হতে পারে। কিন্তু একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, দিনের থেকে রাতে যোগাভ্যাস করা সবথেকে ভাল। এতে শরীরের অনেক উপকার হয়। এবার তাহলে জেনে নেওয়া যাক সন্ধ্যেবেলা যোগাভ্যাস করার সুফলগুলি  কী কী…

* রক্তচাপ কমে- একটা বয়সের পরে অনেকেই উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভোগেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য সন্ধ্যেবেলা ব্যায়াম করা অত্যন্ত জরুরী। কারণ সকালের তুলনায় রাতে ব্যায়াম করলে তাঁদের রক্তচাপ ১৫ শতাংশ কমে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

* ঘুম ভাল হবে-  গবেষণায় দেখা গিয়েছে যাঁরা দিনের তুলনায় রাতের বেলা যোগ ব্যায়ামের পাশাপাশি ওয়েট লিফটিং করেন, তাঁদের ঘুম খুব ভাল হয় এবং অনেক বেশি সময় ধরে হয়। তাই অনেক সময়ে জিম ট্রেনাররাও সন্ধ্যেবেলা জিম করার পরামর্শ দেন।

Banglalive-6

* ব্যায়ামের মান ভালো হয়- সকালের তুলনায় সন্ধ্যেবেলা ব্যায়াম করলে পেশীর সংকোচন-প্রসারণের ফলে পেশীর শক্তি বৃদ্ধি হয়, ফলে অল্প পরিশ্রমে শরীর হাঁপিয়ে ওঠে না। ফলে অনেক সময় ধরে ব্যায়াম করতে পারবেন।

Banglalive-8

* ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে- দ্রুত ওজন কমাতে চান? তাহলে অবশ্যই সন্ধ্যেবেলা ব্যায়াম করুন। সন্ধ্যেবেলা ব্যায়াম করলে সকালের তুলনায় বেশি ক্যালোরি বার্ন হয়। ফলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ তাড়াতাড়ি ঝরে যায়। এছাড়া শরীরের পেশিও দ্রুত শক্তিশালী হবে।

Banglalive-9

সবশেষে যে কথাটি বলতেই হয় তা হল, সকালে আমাদের শরীরে কর্টিসল হরমোন বেশি থাকে। কর্টিসেল-কে ট্রেস হরমোনও বলা যায়। তাই এ সময়ে পেশি গঠনের ব্যায়াম করলে আসলে উপকার কম হয়। কিন্তু সন্ধ্যায় শরীরে টেস্টোস্টেরন লেভেল থাকে বেশি। এতে পেশি গঠন ত্বরান্বিত হয়। ফলে এ সময়েই আসলে ব্যায়ামের জন্য শরীর প্রস্তুত থাকে।

আরও পড়ুন:  রক্তাল্পতা, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যার সমাধানের পাশাপাশি বিটে রয়েছে অনেক গুণ। জেনে নিন...

NO COMMENTS