মাউন্ট এভারেস্টের বদলে সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম মাউন্ট শিকদার হওয়াই উচিত ছিল তো ?

সার্ভেয়র অ্যান্ড্রু ওয়া-র তাঁবুতে ঢুকে উত্তেজনায় কাঁপছে বছর চল্লিশের বাঙালি |

স্যর স্যর ! আমি খুঁজে পেয়েছিবিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গ

শুনে নড়েচড়ে বসলেন ব্রিটিশ সাহেব | এই নেটিভের কথা হেলাফেলা করলে চলবে না | তাঁর নাক উঁচু পূর্বসূরীও মনে মনে সমীহ করতেন ছোকড়ার গণিত জ্ঞানকে | যদিও প্রকাশ্যে স্বীকার করতেন না |

তখনও বিশ্বের সর্বোচ্চ শিখর কাঞ্চনজঙ্ঘা | কিন্তু অ্যান্ড্রু জানতেন কাঞ্চনজঙ্ঘার থেকেও উঁচু শৃঙ্গ আছে হিমালয় পর্বতমালায় | তিনি নিজেই একটা শৃঙ্গ চিহ্নিত করেছিলেন | কিন্তু এই হিন্দু ছোকড়া বরাবর নজর রেখেছে Pick XV-এর উপরে | এই শৃঙ্গের নাম দেশে‚ এক এক রকম | তিব্বতে চোমুলুংমা‚ নেপালে সাগরমাতা‚ চিনে উমোলোংমা |  

সাহেবদের অধীনস্থ ওই হিন্দু কর্মীর নাম‚ রাধানাথ | জন্ম ১৮১৩-এ‚ কলকাতার জোড়াসাঁকোয় | বাবার নাম তিতুরাম শিকদার | অভাবের সংসার | কিন্তু শ্রীনাথ আর রাধানাথ দু ভাইই খুব মেধাবী | পড়তেন খ্রিস্টান মিশনারীদের স্কুলে | পরে হিন্দু কলেজ | বৃত্তি-জলপানিতেই মিটেছে পড়াশোনার খরচ | দাদা শ্রীনাথ টাকা দিতেন সংসারে | ভাই রাধানাথ অবশ্য পাগলের মতো কিনতেন বই |

গণিতে তুখোড় রাধানাথ সুযোগ পেলেন হিন্দু কলেজে পড়ার | অনুপ্রাণিত হলেন ডিরোজিওর ইয়ং বেঙ্গল সোসাইটির আদর্শে | ত্রিকোণমিতিতে‚ বিশেষ করে স্ফেরিক্যাল ট্রাইগোনোমেট্রিতে রাধানাথের পাণ্ডিত্য আর দখল দেখে মুগ্ধ হয়ে গেলেন সাহেব শিক্ষক টাইটলার |

টাইটলারের কাছে আর্জি পাঠালেন ভারতের তৎকালীন সার্ভেয়র জেনারেল জর্জ এভারেস্ট | গণিতে পাকা একজন তরুণ চাই | শিক্ষক আর দ্বিধা করলেন না | সুপারিশ করলেন রাধানাথ শিকদারের নাম |

১৮৩১ সালে পরাধীন ভারত জুড়ে চলা Great Trigonometric Survey-তে যোগ দিলেন উনিশ বছর বয়সী রাধানাথ | জর্জ এভারেস্টের অধীনে | Computorপদে তাঁর মাসিক বেতন ছিল ত্রিশ টাকা | সেকালে |

টাইটলারের পরে এ বার খুঁতখুঁতে এভারেস্ট সাহেবও মুগ্ধ হয়ে গেলেন বাঙালির পারদর্শিতায় | এত নিখুঁত গণনা এত কম সময়ে বিরল ! একদিন রাধানাথ এভারেস্টকে বললেন‚ মাপামাপির কাজ আর ভাল লাগছে না | তিনি ডেপুটি কালেক্টর হবেন | এভারেস্ট সাহেব কোনওভাবেই তাঁকে যেতে দিলেন না | মাপ পরিমাপের কাজেই থেকে গেলেন রাধানাথ |

অবসর নিলেন জর্জ এভারেস্ট | নতুন সার্ভেয়র জেনারেল হলেন অ্যান্ড্রু ওয়া | এ বার তাঁর অধীনে কর্মরত রাধানাথ | ১৮৫২ সালে গণনায় নিশ্চিত হয়ে তিনি অ্যান্ড্রু সাহেবকে জানান‚ Pick XV-ই বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গ | কিন্তু আরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য রাধানাথ অনুরোধ করেছিলেন এই আবিষ্কার গোপন রাখতে | পরে ১৮৫৬ সালে অফিশিয়ালি জানানো হয় রাধানাথের গণনা-আবিষ্কার | ১৮৬০ সালে উচ্চতম শৃঙ্গকে স্বীকৃতির শিলমোহর দেয় ব্রিটিশ জিওলজিক্যাল সার্ভে |

তখন ব্রিটিশ নিয়ম ছিল কোনও শৃঙ্গের নামকরণে গুরুত্ব দিতে হবে স্থানীয় আবেগকে | কিন্তু অ্যান্ড্রু করলেন কী‚ তাঁর বসের নামে নামকরণ করলেন বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের | মাউন্ট এভারেস্ট | আড়ালে চলে গেল নেটিভ বাঙালির যুগান্তকারী আবিষ্কার |

ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আপস করে চলতেন না রাধানাথ | ১৮৫১ সালে প্রকাশিত Survey Manual-এ উল্লেখ ছিল বাবু রাধানাথ শিকদারের কৃতিত্ব | কিন্তু ১৮৭৫ সালে প্রকাশিত এর ত্রয়োদশ সংস্করণে রাধানাথের প্রয়াণের পরে বেমালুম বাদ তাঁর অবদান | এমনকী‚ সার্ভেয়রদের অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করায় তাঁকে জরিমানাও করেছিল ব্রিটিশরা | এমন দৃঢ় অনমনীয় মনোভাবের জন্যই হয়তো বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ ( ৮৮৪০ মিটার ) থেকে গেল মাউন্ট এভারেস্ট হয়ে | মাউন্ট শিকদার না হয়ে |

১৮৫১ সালে Chief Computor হয়ে রাধানাথ বদলি হয়ে এলেন কলকাতায় | কাজ করেছিলেন আবহাওয়া দফতরেও | বিজ্ঞানের সেই বিভাগটিও তাঁর নানা আবিষ্কারে সমৃদ্ধ | গণিত-বিজ্ঞানের পাশাপাশি রাধানাথ ছিলেন বহু ভাষাবিদ ও দার্শনিক | বন্ধু প্যারীচাঁদ মিত্রর সঙ্গে প্রকাশ করেছিলেন মহিলাদের পত্রিকা |

১৮৬২ সালে অবসর গ্রহণের পরে তিনি গণিত অধ্যাপক হয়ে যোগ দেন জেনারেল অ্যাসেম্বলিজ বা আজকের স্কটিশ চার্চ কলেজে | প্রয়াত হন ১৮৭০ সালের ১৭ মে‚ হুগলির চন্দননগরে‚ গঙ্গার ধারে তাঁর বাগানবাড়িতে |

তাঁর কৃতিত্বের স্বীকৃতি এসেছিল সুদূর জার্মানি থেকেও | কিন্তু আমরা বাঙালিরাই ভুলে যাই এই বঙ্গসন্তানকে | ২৯ মে‚ প্রথম মাউন্ট এভারেস্ট অভিযানের ৬৪ বছর পূর্তি | তার আগে সশ্রদ্ধ স্মরণ অবহেলিত বিস্মৃত এই বাঙালিকে | যাঁর গণনা-পরিমাপে Pick XV পরিচিত হয় মাউন্ট এভারেস্ট নামে |

Advertisements

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.