চুলের যত্ন নিতে ব্যবহার করুন কাঠের চিরুনি!

চুলের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে যে নিয়মিত চুল আঁচড়ানো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এটা আমাদের সকলেরই জানা। আগেকার দিনে চুল ভালো রাখতে গুনে গুনে একশোবার চিরুনি চালাতে বলতেন ঠাকুমা-দিদিমারা। তবে নিয়মিত চুল আঁচড়ানোর পাশাপাশি, চুলের সৌন্দর্য ও গঠন ঠিক রাখতে সঠিক চিরুনিও ব্যবহার করা প্রয়োজন। প্লাস্টিক বা ধাতুর তৈরি চিরুনিতে চুল রুক্ষ ও ভেঙে ঝরে যাওয়ার প্রবণতা বেশি। কারণ, চুলের সংস্পর্শে এলে প্লাস্টিক বা ধাতুর চিরুনি স্ট্যাটিক ইলেকট্রিসিটি উৎপাদন করে। এই কারণেই শীতে প্লাস্টিকের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ালে আমাদের চুল খাড়া হয়ে যায়।

তাই চুলের সম্পূর্ণ স্বাস্থ্য বজায় রাখতে চাইলে প্লাস্টিক বা ধাতুর চিরুনির বদলে বেছে নিন কাঠের চিরুনি। শত শত বছর ধরে চুলের সৌন্দর্য ও গঠন ঠিক রাখতে কাঠের চিরুনি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এছাড়াও কেন আপনি কাঠের চিরুনি ব্যবহার করবেন জেনে নিন সে প্রসঙ্গে-

কাঠের চিরুনি চুলের কোনও ক্ষতি না করে কোমলভাবে চুলের জট ছাড়ায়। চুল ভাঙে ঝরে কম। তা ছাড়া কাঠের চিরুনির দাঁড়াগুলো গোলাকার আর মসৃণ হয় বলে আঁচড়ানোর সময় স্ক্যাল্পের প্রাকৃতিক তেল সারা চুলে সমানভাবে ছড়িয়ে পড়ে, ফলে চুল মসৃণ আর নরম থাকে।

বিশেষজ্ঞদের মতে কাঠের চিরুনিতে চুলের কোনও ক্ষতি হয় না। এর ব্যবহারের ফলে ভেজা চুলও ভাঙ্গে না বা ঝরে যায় না। কাঠের চিরুনি শুধুই রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় না পাশাপাশি চুলের সামগ্রিক গুণাগুণ বৃদ্ধি করে ও চুলের গোড়া শক্ত করে। এটি এভাবে চুলের বৃদ্ধি ত্বরাণ্বিত করে।

প্লাস্টিক বা ধাতব চিরুনি স্ক্যাল্প শুষ্ক করে দিতে পারে, যা থেকে খুসকি দেখা দেয়, চুল উঠেও যেতে পারে। কাঠের চিরুনি যেহেতু চুলে আর স্ক্যাল্পে প্রাকৃতিক তেল সুন্দরভাবে ছড়িয়ে দেয়, তাই খুসকিও কমে যায় অনেকটাই!

ধাতব বা প্লাস্টিকের চিরুনিতে স্ট্যাটিক বিদ্যুৎ তৈরি হয়। ফলে আঁচড়ানোর সময় চুলের ধুলোময়লা চিরুনির গায়ে আটকে গিয়ে ফের চুলেই থেকে যায়। কাঠের চিরুনিতে সে ভয় একেবারেই নেই!

কাঠের চিরুনি পরিস্কার করাও খুব সহজ! জল দিয়ে কাঠের চিরুনি ধুলে কাঠ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই সামান্য নারকেল তেল বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে আধঘণ্টা রেখে দিন, তারপর পরিস্কার কাপড় দিয়ে মুছে নিলেই আপনার চিরুনি চকচক করবে নতুনের মতো!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here