প্রায় ত্রিশ বছর আগে লন্ডনবাসী এক তরুণী বাজার থেকে অনেক দর-দাম করে ১৫ ডলার দিয়ে একটি নকল হিরের আংটি কিনেছিলেন। ঝোঁকের বশেই কেনা হয়েছিল সেটি। সম্প্রতি, এক গয়না ব্যবসায়ী আংটিতে বসানো হিরেটি দেখে সন্দেহ প্রকাশ করেন। ৩৩ বছর আগে সস্তার বাজার ঘেঁটে যে আংটি ওই মহিলা কিনেছিলেন, তা একেবারে নকল বোধহয় নয়। আর তার দাম ১৫ ডলারের তুলনায় হয়তো বেশিই।

ইংরেজি এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই মহিলা, আংটির পাথরটি যাচাই করতে পাঠান। পরীক্ষাগারে বিশেষজ্ঞরা, পরখ করে জানান, তাঁর আংটির পাথরটি কাচ নয়, খাঁটি ২৬.২৭ ক্যারাটের হিরে বসানো রয়েছে তার আংটিতে। এই তথ্যটি জানতে পেরে হতবাক  মহিলাও। তিনি কিছুতেই বুঝতে পারছিলেন না কীভাবে  সম্ভব হতে পারে এটা !

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, যে হিরে মহিলার আংটিতে বসানো, সেটি তৈরি হয়েছিল আঠারো শতকে। সেই সময়ে হিরেতে বেশি খাঁজ কাটার প্রচলন ছিল না । ফলে সেই সময়কার হিরের জৌলুসও ছিল কম। বর্তমানে হিরেতে যেভাবে পলা কাটা হয় তাতে, তার মধ্যে দিয়ে আলোকরশ্মির বিচ্ছুরণ ও প্রতিফলনের মাত্রাও বেশি হয়, ফলে জৌলুসের মাত্রাও অনেক বেশি। আর এই কারণেই সেই আসল হিরের আংটি নকল বলে মনে করেছিলেন ক্রেতা বিক্রেতা দুজনেই।

খাঁটি ২৬.২৭ ক্যারাটের বিশাল আকৃতির হিরের আংটিটি আপাতত বিশ্বখ্যাত নিলাম সংস্থা সদবি’র কাছে রাখা হয়েছে। আগামী ৭ জুন সেটি নিলামে ওঠার কথা জানা গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, ৪৫৫,০০০ ডলার অবধি নিলামে উঠতে পারে এই হিরের দাম। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৩ কোটি ২৩ লক্ষ টাকার একটু বেশি।

Banglalive-8
আরও পড়ুন:  অসাধ্যসাধন ! জননাঙ্গে কর্কটরোগের করালগ্রাসের পরেও মা হলেন তরুণী

NO COMMENTS