ওজন ২৬৮ গ্রাম ! অবশেষে সুস্থ বিশ্বের ক্ষুদ্রতম সদ্যোজাত মানবশিশু

294

জাপানের টোকিওতে আগষ্ট মাসে জন্ম হয় বিশ্বের ক্ষুদ্রতম শিশুটির | ওজন ছিল মাত্র ২৬৮ গ্রাম | গর্ভাবস্থার ২৪ সপ্তাহের মাথায় তার বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ডাক্তাররা শিশুটির প্রাণসংকটের আশঙ্কা করেন | অস্ত্রোপচারে মায়ের গর্ভ থেকে বের করে আনা হয় | জন্মের পরে শিশুটি এতই ছোট্ট ছিল যে হাতের তালুতে ধরা যেত তাকে | এত ছোট্ট শিশুটি শেষ পর্যন্ত বাঁচবে কিনা সেই নিয়ে ছিল সন্দেহ | জন্মের পরে কয়েকমাস তাকে ইনকিউবেটরে রাখা হয় | নিয়মিত পর্যবেক্ষণের আওয়াতায় ছিল সে |

কেইয়ো হাসপাতালের ডাক্তারদের অক্লান্ত তত্ত্বাবধানে শেষ পর্যন্ত শিশুটি বিপদসীমা কাটিয়ে বেরিয়ে আসতে পারে | তার ওজন ৩ কেজি হয় এবং তাকে স্তন্যদান করা সম্ভব হয় শেষ পর্যন্ত | তার আগে অবধি ডাক্তাররা তার খাওয়াদাওয়া ও নিঃশ্বাসপ্রশ্বাস যাতে ঠিকভাবে হয় সে বিষয়ে নজর রেখেছিলেন | জন্মের দুমাস পর সম্পূর্ণ সুস্থ অবস্থায় সম্প্রতি তাকে হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয় |

এর আগে ২০০৯ সালে জন্মানো জার্মানির এক শিশুপুত্রের ওজন ছিল ২৭৪ গ্রাম‚ যাকে বিশ্বের ক্ষুদ্রতম শিশু হিসেবে ধরা হত | বিশ্বের ক্ষুদ্রতম শিশুকন্যা জার্মানিরই এক সদ্যোজাত যার জন্ম হয়েছিল ২০১৫ সালে‚ ওজন ছিল ২৫২ গ্রাম | টাইনিয়েস্ট বেবিজ রেজিস্ট্রি ওয়েবসাইট থেকে জানা যায় ৩০০ গ্রামের কম ওজনের সদ্যোজাতদের মধ্যে ২৩ জন সম্পূর্ণ সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পেরেছে | এই ঘটনা অপরিণত সদ্যোজাতদের বাবামায়ের কাছে আশার নতুন আলো সঞ্চার করবে বলেই মনে করছেন ড. তাকেশি আরিমিৎসু |

Advertisements

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.