যেসব ফল এবং সবজি খোসা সমেত খাওয়াই ভাল…

434

পুষ্টিবিদদের মতে, এমন কিছু সবজি ও ফল আছে যা খোসা সমেত খেলেই বেশি পুষ্টি পাওয়া যায়। জেনে নিন কোন কোন ফল বা সবজি খোসা সমেত খাওয়াই ভাল।

* আলু- আলু খোসা ছাড়িয়ে খাওয়ার চেয়ে খোসাসহ খেলে বেশি পুষ্টি পাওয়া যায়। ডায়েটিশিয়ানরা বলেন, আলুর খোসাতে নাকি সবচেয়ে বেশি পুষ্টি থাকে। আলুর মধ্যে যে ভিটামিন ‘বি’ এবং ‘মিনারেল’ রয়েছে তার কুড়ি শতাংশই থাকে খোসার মধ্যে। সেইসঙ্গে আলুর খোসায় থাকে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। খোসা ছাড়ালে আলুর পুষ্টিগুণ বেশ অনেকটাই কমে যায়। তাই আলু খোসাসহ খাওয়া উচিৎ। পাশাপাশি মিষ্টি আলুর খোসাও খুব উপকারী। মিষ্টি আলুর খোসায় রয়েছে ভিটামিন সি এবং পটাশিয়াম। তাই মিষ্টি আলু সবসময় খোসাসহ খাওয়া উচিত।

* নাশপাতি-  নাশপাতির খোসাতেই রয়েছে অধিক পরিমাণ পুষ্টিগুণ এবং ফাইবার। বলা ভাল, ফলের মোট পুষ্টি ও আঁশের প্রায় অর্ধেকটাই থাকে এর খোসায়। এছাড়াও নাশপাতির খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট।

* আলুবোখরা- মানসিক চাপ দূর করতে আলুবোখরা অত্যন্ত কার্যকরী। এর খোসাতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী। কোষ্ঠ্যকাঠিন্য ও হজমের সমস্যা দূর করতে খোসাসহ আলুবোখরা খাওয়া বেশ উপকারী।

* শসা- শসার খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে শসা খাওয়া খুবই উপকারী, তবে অবশ্যই খোসা সমেত।

* আম-  শুনলে অবাক হবেন, আমের খোসায় রয়েছে এমন কিছু পুষ্টিগুণ যা হয়তো অনেকেরই অজানা। আমের খোসায় রয়েছে পলিফেনল, ওমেগা থ্রি, ওমেগা সিক্স, আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড যা ক্যান্সার, ডায়বেটিস ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। আমের খোসা রান্না করে অথবা শুধু খোসা চিবিয়ে খেতে পারেন। ফল ও খোসা একসঙ্গে খাওয়ার আরেকটি উপায় হল আচার বানিয়ে খাওয়া।

* বেগুন- বেগুন অনেকেই খান না, কিন্তু অনেকে আবার দানার পাশপাশি বেগুনের খোসাও ফেলে দেন। কিন্তু বেগুনের খোসায় রয়েছে ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট যা আপনাকে কোষের ক্ষয়ের (সেল ড্যামেজ) হাত থেকে রক্ষা করবে। শুধু তাই নয়, অ্যান্টি এজিং হিসেবেও কাজ করে বেগুনের খোসা। তাই এবার থেকে বেগুন খেলে খোসা-সহ খাবেন।

* সবেদা- সবেদার খোসায় রয়েছে এমন কিছু পুষ্টি উপাদান, যা ‘মিউকাস লাইনিং’ বা শ্লেষ্মার আস্তরণের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখে। এছাড়াও, সবেদার খোসা পটাশিয়াম এবং আয়রনে ভরপুর। এছাড়াও হজমশক্তি বাড়াতেও বিশেষভাবে সাহায্য করে সবেদার খোসা।

* লেবু-  কমলালেবু মৌসম্বি বা পাতিলেবু, সাধারণত রস করে খেতেই পছন্দ করে সবাই। কিন্তু অনেকেই এটা জানেন না যে, লেবুর রসের থেকেও বেশি পুষ্টিগুণ রয়েছে এর খোসায়। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে, যেকোনও ধরনের লেবুর খোসাতেই রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম এবং ফাইবার, যা শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.