Tags Posts tagged with "রণবীর কপূর"

রণবীর কপূর

বলিউড সেলেব মানেই ভেবে নেওয়া হয় তাঁদের জীবন সাধারণের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। কোথাও যাওয়া হোক বা খাওয়া, কোনকিছুই বাকি পাঁচজনের মত করে করতে পারেন না তারা। এমনকি নিজেদের শরীর ও রূপের যত্ন নেওয়ার জন্য অনেক কঠোর পরিশ্রমের মধ্যে থাকতে হয় তাঁদের। সেইভাবে ডায়েটও মেনে চলতে হয় তাঁদের। তবে জানেন কি,এই তারকারাও বাকি পাঁচজন সাধারণের মত পছন্দ করেন রাস্তার দোকানের খাবার। শুধু সুপ আর স্যালাড নয়,এঁদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে বেশ কিছু বাইরের খাবারও। চলুন দেখে নেওয়া যাক কোন কোন তারকাদের পছন্দের তালিয়ায় রয়েছে কোন কোন প্রিয় খাবার?

১। দীপিকা পাদুকোন

বলিউডের সুন্দরী অভিনেত্রীদের মধ্যে আপাতত প্রথম সারিতে রয়েছে দীপিকা পাদুকোনের নাম। অনুরাগীদের কাছে এক্কেবারে মনের মত এই অভিনেত্রী। তাই ভেবে নেওয়াটা খুবই স্বাভাবিক যে তাঁকে এই সৌন্দর্য ধরে রাখতে কতটা পরিশ্রম করতে হয়। তবে জানেন কি,অভিনেত্রী কড়া ডায়েটের মধ্যে থাকলেও খাওয়ার তালিকায় রয়েছে কলা দিয়ে তৈরি একটি চিপস যেটি বিশেষভাবে বানানো হয় তাঁর বাড়িতেই। এমনকি অভিনেত্রী কাজের সূত্রে বাইরে থাকলেও তাঁর জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয় সেই খাবার।

২। রণবীর কপূর

বলিউডের নাম করা তারকা হলে কী হবে, মুম্বই-এর রাস্তায় বড়া পাও খেতে ছোটবেলা থেকেই ভালবাসেন রণবীর। মুম্বই-এর বিখ্যাত খাবার হল বড়া পাও। তাই যে কোনপ্রকার ডায়েটে থাকলেও এই খাবারটিকে উপেক্ষা করতে পারেন না অভিনেতা। এমনকি তাঁকে দেখে রাস্তায় ভিড় জমে গেলেও সেই বিষয় তোয়াক্কা করেন না ঋষি পুত্র।

৩। হৃতিক রোশন

৪০ ঊর্ধ্ব এই অভিনেতার শারীরিক গঠন আজও ঘায়েল করে দর্শকদের। তবে জানেন কি, যেই অভিনেতার কাছে জিমই শ্রেষ্ঠ যায়গা,সেই অভিনেতার নাকি প্রিয় খাবার সিঙ্গারা। এমনকি এই অভিনেতার দাবি একসময় আট’টা সিঙ্গারা একসঙ্গে খেয়ে নিতে পারতেন এই অভিনেতা।

৪। সোনম কপূর

পাঞ্জাবী পরিবারের মেয়ে সোনম। একসময় অনেক ওজনও ছিল তাঁর। তবে বলিউডে এন্ট্রি করার আগেই নিজেকে কড়া ডায়েটে স্লিম ট্রিম করে ফেলেছিলেন এই অভিনেত্রী। ফলে আজকের সুন্দরী ও ফ্যাশন আইকন হিসেবে বি-টাউনে অন্যতম সোনম। তবে এখনও কিছু খাবার থেকে মুখ ফেরাতে পারেননি অভিনেত্রী। তাঁর প্রিয় খাবারের মধ্যে রয়েছে মুম্বই স্পেশল পাও ভাজি এবং চকলেট। শুধু তাই নয়,পাঞ্জাবী খাবারের পাশাপাশি সোনমের পছন্দ বাঙালি খাবারও। সেই তালিকায় প্রথমে রয়েছে সরষে ইলিশ ও ছোলার ডাল।

৫। শাহিদ কপূর

শুধু হৃতিক রোশনই নন,তেলেভাজা খেতে ভালবাসেন শাহিদ কপূরও। বিশেষ করে সিঙ্গারা। এমনকি অভিনেতা জানান বাকি সময় না হলেও বৃষ্টির দিনে চা-এর সঙ্গে সিঙ্গারা না হলে তাঁর একেবারেই চলে না।

৬। সলমন খান

বলিউডের ফিটনেস কিং বলা হয় ৫০ ঊর্ধ্ব এই অভিনেতাকে। যেখানেই যান না কেন জিম ছাড়া তাঁর একটা দিনও সম্পূর্ণ হতে পারে না।  কিন্তু জানেন কি,মা-এর হাতে তৈরি বিরিয়ানি দেখলে একেবারেই লোভ সামলাতে পারেন না এই অভিনেতা। এমনকি সেই বিরিয়ানি শুধু একা না খেয়ে প্রতিবেশীদের খাওয়াতেও পছন্দ করেন ভাইজান। এছাড়াও কাবাব এবং মোদকও তাঁর প্রিয় খাদ্যের তালিকায় রয়েছে বিশেষভাবে।

৭। পরিণিতি চোপড়া

কোনদিনই বাকি অভিনেত্রীদের মত নিজের ফিগার নিয়ে চিন্তিত নন পরিণিতি। কারণ তিনি তাঁর ডায়েটের তালিকা পিজ্জা ছাড়া ভাবতেই পারেন না। চিজ যুক্ত লোভনীয় পিজ্জাই পরিণিতির এমন একটি প্রিয় খাদ্য যেটি তিনি হাজার বারণ সত্তেও ছাড়তে পারেননি। এমনকি একটা সময় প্রায় রোজই পিজ্জা খাওয়ার  অভ্যেস ছিল তাঁর। পরবর্তীকালে তাঁর ট্রেনারের কড়া ডায়েটে সেই অভ্যেস থেকে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছেন অভিনেত্রী।

৮। আলিয়া ভট্ট

বলিউডের অন্যতম অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন আলিয়া ভট্ট। খুব অল্প বয়সেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তুলেছেন বলিউডে। তাঁর জন্য যে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে তাঁকে সেই নিয়েও কোন সন্দেহ নেই। একসময় বেশ মোটা ছিলেন এই অভিনেত্রী। যা বলিউডে কেরিয়ার গড়তে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল তাঁর। আর তাঁর প্রধান কারণ তেলেভাজা। ছোট থেকেই তেলেভাজা খেতে বড্ড ভালবাসেন আলিয়া। তার মধ্যেও বিশেষভাবে পছন্দ আলু ভাজা বা ফ্রেঞ্চ ফ্রাইজ।

বলিউডে এখন সবথেকে চর্চিত জুটি আলিয়া ভট্ট এবং রণবীর কপূর। তাই এই তারকাদের সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের অনুরাগীরাও একইভাবে স্বপ্ন দেখছে তাঁদের নিয়ে। ২০১৮ সালেই এই জুটি সর্বসমক্ষে তাঁদের সম্পর্কের কথা স্বীকার করলেও বিয়ে নিয়ে এখনই কিছু ভাবতে চান না বলে জানিয়ে দেন । তবে একে অপরের পরিবারের সঙ্গে যে তাঁরা জড়িয়ে পড়েছেন তা বোঝা গিয়েছে বারবার। সম্প্রতি তারই এক উদাহরণ পাওয়া গেল আলিয়ার কাছ থেকে।

সম্প্রতি আসন্ন ছবি ‘গল্লি বয়’-এর প্রমোশনে ব্যস্ত আলিয়া ভট্ট। সেই সূত্রেই একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে আসেন তিনি। তবে ছবির পাশাপাশি রণবীর এবং তাঁর পরিবারের সম্পর্কেও প্রশ্ন করা হয় হাজারো। রণবীরের পরিবার কেমন? বাবা মা কেমন? প্রশ্ন করায় অভিনেত্রী বলেন,” নীতুজী ভীষণ ভালো মানুষ। তাঁকে আমার ভালো বন্ধু বললে ভুল হবে না। উনি ঠান্ডা মাথার মানুষ। খুব সুন্দরভাবে জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যান। আমার মনে হয় রণবীর ওঁর কাছ থেকেই এভাবে ঠান্ডাভাবে সবকিছু সামলাতে শিখেছে।” শুধু তাই নয় ঋষি কপূর সম্পর্কে আলিয়া প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে বলেন,”আমি ওঁর মতো ইউনিক মানুষ কম দেখেছি। আমি যখনই ওঁর সঙ্গে সময় কাটাই, তখন ভীষণ হাসি-ঠাট্টা, মজা-মশকরার মধ্যেই কেটে যায়। ।”

এই আলোচনায় বাদ জাননি রণবীরও। রণবীরের অভিনয় থেকে শুরু করে স্বভাব সবকিছুরই বিশ্লেষণ দিলেন আলিয়া। তাঁর কথায়,” রণবীরের চোখ খুবই সুন্দর। আর ও এতো ভাল অভিনেতা যে আমি ওকে দেখে নিজের ডায়লগও ভুলে যাই। আমার জীবনে অন্যতম অভিনেতা হল রণবীর। এমনকি ওর স্বভাবে এতটাই শান্ত যেন কোনকিছুই ওর পক্ষে অসম্ভব নয়।”

প্রসঙ্গত,এই প্রথমবার এই অফস্ক্রিন প্রেমিক-প্রেমিকা জুটি বেঁধেছেন অনস্ক্রিনে। অয়ন মুখার্জির নতুন ছবি ‘ব্রক্ষ্মাস্ত্র’-তে দেখা যাবে তাঁদের। আপাতত শুটিং পর্ব শেষ বলেই জানা যাচ্ছে। রিলিজ হওয়ার কথা রয়েছে আগামী বড়দিনেই।

গোটা ২০১৮ জুড়ে বি-টাউনে কিছু চমকে দেওয়ার মত বিয়ে দেখেছে দর্শক। শুরু হয়েছিল সোনম কপূরের বিয়ে দিয়ে,আর শেষ হয় বলিউডের দুই ডিভা দীপিকা পাদুকোন এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বিয়ের জাঁকজমকে। কিন্তু বছরের প্রথমেই দর্শক আরও একটি চমক পান রণবীর কপূর ও আলিয়া ভট্টের দেখে। সোনম কপূরের গ্র্যান্ড রিসেপশনের পরই জানা যায়,একে অপরকে ডেট করছেন রণবীর আলিয়া। সম্পর্কটা যে বছর পেরোতে চললো তাও স্বীকার করে এসেছেন তাঁরা। এরপর এই সম্পর্কের পরবর্তী গতি কী হতে চলেছে সেই নিয়ে এবার মুখ খুললেন আলিয়া।

সম্প্রতি ‘গল্লি বয়’-এর প্রোমোশনে এসে একটি সাক্ষাৎকারে আলিয়াকে  বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। উত্তরে তিনি বলেন, কয়েকদিন আগেই দুখানা গ্র্যান্ড বিয়ে দেখেছে বলিউড। তাই আপাতত তাঁরা একটা ব্রেক নিচ্ছেন। রণবীর কপূরের সঙ্গে সিনেমা দেখা, এক সিনেমায় কাজ করা পর্যন্ত ঠিক আছে। বাকি বিয়ের কথা পরে দেখা যাবে বলেই প্রসঙ্গটি থেকে বেরিয়ে আসতে চান অভিনেত্রী।

বেশ কিছুদিন আগে রণবীর কপূরের কাছাকাছি থাকবেন বলে আলিয়া একটি দামী অ্যাপার্টমেন্ট কিনে ফেলেন বলেও শোনা যায় কানাঘুষো। তবে এই বিষয় অভিনেত্রীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি সাফ জানিয়ে দেন,”আপনা টাইম অভি নেহি আয়া”। আবার সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে,আপাতত বিয়ের বদলে নিজেদের আসন্ন ছবি ‘ব্রক্ষ্মাস্ত্র’-এ মন দিতে চান এই জুটি। পাশাপাশি ঋষি কপূরের শারীরিক অসুস্থতার কারণেও এখন বিয়ে নিয়ে ভাবতে নারাজ রণবীর-আলিয়া।

বলিউডের গসিপ ভান্ডার হল করণ জোহর সঞ্চালিত ‘কফি উইথ করণ’। এবার এই সিজনে  বি-টাউনের আরও একটি চর্চিত বিষয়ের পর্দা ফাঁস হয়। যার সঙ্গে জড়িত বলিউডের নতুন  প্রজন্মের তারকা আলিয়া ভট্ট,সিদ্ধার্থ মালহোত্রা এবং রণবীর কপূর।

সম্প্রতি ‘কফি উইথ করণ’-এ হাজির হয়েছিলেন আদিত্য রয় কপূর এবং সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। এবং সেখানেই কথোপকথন চলাকালীন করণ জোহর সিদ্ধার্থকে আলিয়ার সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদ নিয়ে প্রশ্ন করেন। সিদ্ধার্থ উত্তরে বলেন, ”বিচ্ছেদের পরে আমি আর আলিয়া কখনও আলাদা করে দেখা করিনি। আমি মনে করি না আমাদের সম্পর্কটা এক্কেবারে তিক্ত, এটি খুবই সাধারণ একটি বিষয়। আমি আলিয়ার সঙ্গে প্রেম করার আগে থেকেই ওকে চিনতাম। আমি আলিয়া এবং বরুণ খুব ভাল বন্ধু এখনও।”

তবে এইটুকুতেই থেমে জাননি করণ। পাল্টা প্রশ্ন করে অভিনেতাকে জিজ্ঞাসা করা হয়, পুরনো প্রেমকে ভুলে একসঙ্গে কাজ করা কতটা কঠিন সিদ্ধার্থের কাছে। উত্তরে অভিনেতা পরিষ্কার জানিয়ে দেন,” দুই ব্যক্তি একসঙ্গে না থাকার পিছনে একটি কারণ রয়েছে। এখানে আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্তটি দুজনেরই। এবং এরপর আমি আর আলিয়া আমাদের ভাল স্মৃতিই মনে রাখতে চাই।”

যদিও এই সম্পর্কের ভাঙনের পিছনে রণবীর কপূরের হাত রয়েছে কি না,সেই নিয়ে মুখ খোলেননি অভিনেতা। তবে সিদ্ধার্থ মালহোত্রার বক্তব্য অনুযায়ী এমন কিছুর আভাস পেয়ে বক্তব্য থেকে সরে আসেন সঞ্চালক করণ জোহর। তবে এর আগে দীপিকা পাদুকোন ও আলিয়া ভট্টের এপিসোডেও দীপিকাকে একই প্রশ্নের জালে ফেলেছিলেন করণ। রণবীর আলিয়ার সম্পর্ককে কীভাবে দেখছেন দীপিকা এবং সেই সম্পর্ককে ভুলে আবার একসঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতার কথাও বারংবার জিজ্ঞাসা করা হয় দীপিকাকে এই শোতে।

বলিউডের কিং হলেন শাহরুখ। অন্যদিকে নতুন প্রজন্মের অন্যতম অভিনেতা রণবীর কপূর। তবে কেনই বা শাহরুখ পুলিশ হতে যাবেন কেনই বা রণবীর হবেন তাঁর কনস্টেবল?

এবার আসি উত্তরে। সম্প্রতি মুম্বই-এ অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘উমংগ, ২০১৯’। মুম্বই পুলিশদের অবিরাম কাজ ও দক্ষতাকে সম্মান জানাতে প্রতি বছর আয়োজন করা হয় উমংগ-এর। প্রতি বছরের মত এই বছরও অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন গোটা বলিউড। আর সেখানেই এবার অন স্টেজ পুলিশ হওয়ার আর্জি জানান অভিনেতা রণবীর কপূর।

শাহরুখ খানের সঙ্গে স্টেজ শেয়ার করে অভিনেতা বলেন, তাঁর নাকি বরাবরের ইচ্ছা পুলিশ হওয়ার। কিন্তু দুঃখের বিষয় ১০ বছরের কেরিয়ারে কেউ কোনদিনও তাঁকে পুলিশের চরিত্র অফার করেন নি। সেই কথার রেশ টেনে শাহরুখ মজার ছলে বলেন “আমার ২৫ বছরের কেরিয়ারে কোনদিনও পুলিশের চরিত্রে অভিনয় করার সুযোগ পাইনি আমি। তাই তোমার এত দুঃখ করার কিছু নেই।”

প্রসঙ্গত, রণবীর কপূর আপাতত ব্যস্ত অয়ন মুখার্জির নতুন ছবি ‘ব্রক্ষ্মাস্ত্র’ নিয়ে। যেখানে এই প্রথমবার অনস্ক্রিন দেখা যাবে রণবীর আলিয়ার জুটিকে। অন্যদিকে রাকেশ শর্মার বায়োপিক থেকে নিজের নাম কাটিয়ে কিং খান ব্যস্ত ফারহান আখতরের ‘ডন’ এর শেষ সিক্যয়েলের শুটিং-এ।

রণবীর কপূর ও দীপিকা পাদুকোনের সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল অনস্ক্রিনে জুটি বাঁধার পরই। তবে সেই সম্পর্কের সুতো ছিঁড়ে যায় খুব তাড়াতাড়িই।  বর্তমানে দুজনই তাঁদের জীবনে বেশ সুখী। একদিকে যেমন ভবনানি পরিবারের বৌমা হয়েছেন দীপিকা,তেমনই মহেশ ভট্টের কন্যা আলিয়াকে নিজের জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন রণবীর। তবে হঠাৎ কেন আবার প্রাক্তনের সঙ্গে থাকতে হবে দীপিকাকে। 

শোনা যাচ্ছে ‘প্যায়ার কা পঞ্চনামা’ ছবির পরিচালক লভ রঞ্জনের পরের ছবিতে নাকি জুটি হিসেবে দেখা যাবে রণবীর-দীপিকাকে। ২০১৮-র মে নাগাদ অজয় দেবগণ, রণবীর কপূরকে নিয়ে নতুন একটি ছবি তৈরির কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোষণা করেছিলেন পরিচালক স্বয়ং। তবে সেই ছবিতে এবার দীপিকাকেও নিতে চলেছেন বলে খবর। 

  একসঙ্গে জুটি  বেঁধে তাঁদের প্রথম ছবি ‘বাচনা অ্যায় হাসিনো’,এরপর অয়ন মুখার্জির সুপারহিট ছবি ‘ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’ ও ‘তামাশা’ নিয়ে হাজির হয়েছিলেন রণবীর-দীপিকা। তবে ফের অনস্ক্রিনে তাঁদের একসঙ্গে দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন দর্শকরা। 

দীপবীরের পর বলিউডের এখন সবথেকে চর্চিত জুটি আলিয়া রণবীর। তবে তাঁদের এই ভালবাসা নতুন নয়, জানেন কি মাত্র ১১ বছর বয়সেই রণবীরকে মনে ধরেছিলেন আলিয়া।

রণবীর বা আলিয়া দুজনের কেউই তাঁদের একে অপরের প্রতি ভালোলাগার কথা লুকোননি কখনও। প্রথম থেকে কোনও দ্বিধা না রেখে প্রকাশ্যে একে অপরের নতুন সম্পর্কের কথা জানিয়ে এসেছেন। সম্প্রতি একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের একটি সাক্ষাৎকারে উপস্থিত হন দীপিকা পাড়ুকোন, অনুষ্কা শর্মা, টাব্বু, রানি সহ বেশ কয়েকজন তারকা। আর সেখানেই উঠে আসে তারকাদের ছেলেবেলার সেলিব্রিটি ক্রাশ-এর প্রসঙ্গ। যেখানে বাকিদের কেউ লিওনার্দ দি ক্যাপ্রিও, কেউ জর্জ মাইকেলের নাম নেন, তখন আলিয়া তাঁর ছেলেবেলার সেলিব্রিটি ক্রাশ হিসাবেও নাম নেন রণবীর কপূরের।

আলিয়া বলেন,”রণবীরের সঙ্গে আমার প্রথম আলাপ হয় তখন আমার বয়স ১১। আমি ‘ব্ল্যাক’র জন্য অডিশন দিতে গিয়েছিলাম। (প্রসঙ্গত,সঞ্জয়লীলা ভনসালির ব্ল্যাক ছবি সহকারি প্রযোজকের ভূমিকায় কাজ করেছেন রণবীর কপূর) সেখানেই প্রথম রণবীরের সঙ্গে আলাপ হয়, তখন থেকেই ওর (রণবীর) প্রতি আমার ভালোলাগা তারপরে ‘সাওয়ারিয়া’ ছবিতে ওকে প্রথম দেখা গেল অনস্ক্রিন”। আলিয়ার এই কথা বলার পরই অনুষ্কা শর্মা আলিয়াকে প্রশ্ন করেন, ”যদি তাঁর ঘরে কোনও রণবীরের পোস্টার থাকত তাহলে তিনি কি করতেন?” উত্তরে আলিয়া বলেন, ”আমি ওই ছবির দিকেই তাকিয়ে থাকতাম”।

যদিও এর আগে ‘কফি উইথ করণ-এ’ এসে আলিয়া একইভাবে রণবীর কপূরের প্রতি ক্রাশের কথা শেয়ার করেন। এমনকি তাঁদের সম্পর্ক শুরুর আগেই রণবীরকে বিয়ে করতে চান বলেও ইচ্ছা প্রকাশ করেন আলিয়া।

error: Content is protected !!