Tags Posts tagged with "Record"

Record

লিখেছেন -
0 394

সু ও নোয়েল রেডফোর্ড। ব্রিটেনের এই দম্পতি তাঁদের ২১তম সন্তানের জন্ম দিয়ে সবথেকে বড় পরিবারের রেকর্ড গড়ে ফেলেছেন। ব্রিটেনের সব থেকে বড় পরিবারের খেতাব জিতেছেন এই রেডফোর্ড পরিবার।

ব্রিটেনের এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ১৩ বছর বয়েসেই প্রথম সন্তানের জন্ম দেন সু। তখন নোয়েল-এর বয়স ১৮। নোয়েল রেডফোর্ড পেশায় এক জন ব্যবসাদার। ব্রিটেনের সব থেকে বড় পরিবারের খেতাব জয় করার পরেই ব্রিটেনের এক সংস্থা এই পরিবার কে নিয়ে একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি তৈরী করে। সেই ডকুমেন্টরি সম্প্রচারের পর থেকেই জনপ্রিয় হতে থাকে এই রেডফোর্ড পরিবার। ২০০৮ সালের মধ্যেই এই দম্পতি ১৩টি সন্তানের জন্ম দেয়।

এই পরিবারের সম্পর্কে সমালোচনায় অনেকেই বলেছেন, কী ভাবে মাত্র ১৩ বছর বয়েসেই মা হতে পারেন সু। তাছাড়া এতগুলো সন্তান কে কীভাবে তারা পালন করছেন! কীভাবেই বা এতগুলো সন্তান কে সময় দিচ্ছেন তারা! সু এবং নোয়েলের এই কীর্তি ঝড় তুলেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মিশ্র প্রতিক্রিয়া জুটেছে নেটিজেনদের তরফে।

গত বছরের নভেম্বরে জন্ম নিয়েছে বনি। পরিবারের সবথেকে ছোট সদস্য। নোয়েল রেডফোর্ড বলেন, কিছু মানুষ দুই থেকে তিনটি সন্তান নিয়েই তাদের পরিবারকে সম্পূর্ণভাবে। কিন্তু আমাদের সম্পূর্ণতা এসেছে ২১ সন্তানের মাধ্যমে।  সংবাদমাধ্যমকে সু বলেন, আমরা আর কোনো সন্তান চাই না। বনির মাধ্যমে আমাদের পরিবারের পূর্ণতা এসেছে।

লিখেছেন -
0 204

এশিয়ার দ্রুততম মেয়ে হিসেবে গোটা দুনিয়া সাইকেলে ঘুরে ফেললেন পুনের কিশোরী বেদাঙ্গী কুলকার্নি। মাত্র ১৫৯ দিনে সাইকেলে চেপে গোটা দুনিয়া ঘুরেছেন তিনি।  অস্ট্রেলিয়ার পারথ থেকে বেরিয়ে ২৯,০০০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে কলকাতা পৌঁছে এই রেকর্ড গড়েছেন তিনি । কলকাতা থেকে ফিরবেন নিজের শহর পুণায় |

দেশের ইংরেজি সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, গোটা পথে অজস্র বিপদের মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। কোথাও ছুরি ধরে তাঁর জিনিসপত্র কেড়ে নেওয়া হয়েছে, কখনও পড়েছেন দাবানলের মধ্যে, জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে যাওয়ার সময় বন্য পশুরাও তাড়া করেছে একাধিকবার । বেদাঙ্গী জানান, প্রত্যেক দিন প্রায় ৩০০ কিলোমিটার করে সাইকেল চালাতে হত তাঁকে । এই রেকর্ড গড়ার জন্য তাঁকে ২৯০০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতেই হত । কিন্তু ভয় পেয়ে পিছিয়ে যাওয়ার পাত্রী নন তিনি । বিপদের সঙ্গে মোকাবিলা করে নিজের লক্ষ্যে স্থির থেকেছেন বেদাঙ্গী ।

অস্ট্রেলিয়ার পারথ থেকে যাত্রা শুরু করে প্রথমে তিনি পৌঁছান ব্রিসবেন-এ । সেখান থেকে ফ্লাইটে তিনি নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটন-এ । পুরো নিউজিল্যান্ড সাইকেলে ঘুরে ফ্লাইটে পশ্চিম কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে পৌঁছন । আকাশপথে এরপরের গন্তব্য ইউরোপের আইসল্যান্ড | আইসল্যান্ড, পর্তুগাল, স্পেন, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, জার্মানি, ডেনমার্ক, সুইডেন এবং ফিনল্যান্ড ঘুরে রাশিয়ায় প্রবেশ করেন । সেখান থেকে ৪০০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে তিনি ভারতে প্রবেশ করেন। বেদাঙ্গী  জানিয়েছেন, বেশিরভাগ পথ তিনি একাই ঘুরেছেন, কিন্তু কিছুটা পথে তাঁর বাবা-মাও তাঁকে সঙ্গ দিয়েছেন।

পুনের নিগড়ি শহরের মেয়ে বেদাঙ্গী স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশোনা করতেন ইউকে-র ইউভার্সিটি অফ বোর্নমাউথ-এ। সেখানেই সাইকেলের নেশা পেয়ে বসে তাঁকে। সাইকেল চালিয়ে নতুন রেকর্ড গড়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি । নিজের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করতে বেশি সময় নেননি বেদাঙ্গী। যাত্রা যখন শুরু করেছিলেন, তখন বয়স ছিল ১৯, পথেই ২০ বছরের জন্মদিন কাটান তিনি। এশিয়ার মধ্যে দ্রুততম মেয়ে হিসেবে সাইকেলে পৃথিবী ঘোরার রেকর্ডের সার্টিফিকেটি হাতে পেতে সময় লাগবে ৮-৯ মাস।

রেসিপি

error: Content is protected !!