আমির এবার গুলশন কুমার

আমির এবার গুলশন কুমার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

পরিচালক সুভাষ কপূরের ‘মোগল’ নিয়ে একটা সময় বলিউড একেবারে সরগরম হয়ে উঠেছিল। টি-সিরিজের মালিক গুলশন কুমারের জীবনের উপর ভিত্তি করে ছবিটি বানানো হবে বলে জানিয়েছিলেন কপূর। শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল অভিনেতা আমির খান মুখ্য ভূমিকায় থাকবেন। কিন্তু তারপর ‘মি টু মুভমেন্ট’-এর জেরে পুরো ছবিটির পরিকল্পনা বাতিল করে দেওয়া হয়। সুভাষ কপূরের বিরুদ্ধে শ্লীনতাহানির অভিযোগ আদালতে দায়ের হতেই আমির খান প্রজেক্টি থেকে হাত গুটিয়ে নেন। সাফ জানিয়ে দেন, এরকম কোনও দুশ্চরিত্র মানুষের সঙ্গে উনি কাজ করতে পারবেন না। যে মানুষ মহিলাদের অসম্মান করেন, তাঁর সঙ্গে কাজ করা আমিরের নীতির বিরুদ্ধে। তাই আদৌ ছবিটি হবে কি না তা নিয়ে সন্দেহ ছিল। সুভাষ কপূরকে পরিচালকের আসন থেকে সরানোর পরও, ছবিটির ভবিষ্যৎ নিয়ে সকলেই চিন্তিত ছিলেন।

কিন্তু এখন পুরো ছবিটাই বদলে গেছেন। মোগল শুধু তৈরি হবে না, তা পরিচালনা করবেন সুভাষ কপূরই এবং অভিনয় করবেন স্বয়ং আমির খান। খবরটা জানাজানি হতেই আমির খানের দ্বিচারিতা নিয়ে প্রশ্ন করতে শুরু করেন নেটিজেনরা। সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন খোদ আমির। উনি জানিয়েছেন, ‘মোগল কিরণ আর আমি প্রযোজনা করব বলেই ঠিক করেছিলাম। হঠাৎ সুভাষ কপূরের কোর্ট কেসের ব্যাপারে আমরা জানতে পারি, তখনই নিজেদের ওই প্রজেক্ট থেকে সরিয়ে নিয়েছিলাম। আমার এই সিদ্ধান্তে উনি আর কোনও কাজ পাচ্ছিলেন না। আমি সে খবর জানতে পারি। তখন মনে হয়, যদি উনি নির্দোষ হন, তা হলে ওঁর পুরো কেরিয়ারই নষ্ট হয়ে যাবে। অনেক দোনামোনা করার পর আমরা যে সমস্ত মহিলা সুভাষজির সঙ্গে কাজ করেছেন, তাঁদের সঙ্গে কথা বলি। ওই একটি ঘটনা ছাড়া ওঁর বিরুদ্ধে অন্য কোনও প্রমাণ পাইনি। প্রত্যেকেই জানিয়েছেন যে উনি সেটে খুব ডিসিপ্লিনড, সকলের খোঁজ খবর রাখেন। কারওর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন না। তবে তার মানে এই নয় যে উনি শ্লীলতাহানি করতে পারেন না। তবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আমি কেউ নয়। আদালত এর বিচার করবে। কিন্তু যতক্ষণ না উনি দোষী প্রমাণিত হচ্ছেন, ততক্ষণে আমি ওঁকে শাস্তি দেওয়ার কেউ নই। তাই এই ছবিটি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

আমির অবশ্য প্রথম থেকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করতে চাননি। প্রস্তাব দিয়েছিলেন অক্ষয় কুমারকে। ভূষণ কুমারের সঙ্গে অক্ষয় কুমারের বনিবনা নেই। তা সত্ত্বেও অক্ষয় রাজী হয়ে যান। কিন্তু পরে অন্য অসুবিধে হওয়ায় উনি ছবিটি করতে পারেননি। এর পর আমির বরুণ ধাওয়ানকে এই ছবিতে অভিনয় করার প্রস্তাব দেন। কিন্তু বরুণের হাত ভরা থাকায়, তাঁকেও এই ছবি নাকচ করে দিতে হয়। আমির টেলিভিশন স্টার কপিল শর্মার কথাও ভেবেছিলেন মুখ্য চরিত্রের জন্য। কিন্তু কোনও কিছুই ঠিক মতো না হওয়া, সকলের কথা মেনে আপাতত উনি মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করবেন বলে জানিয়েছেন। ওঁর সিনেমা ‘লাল সিং চড্ডা’-র পর এই সিনেমার শুটিং শুরু হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

Leave a Reply

pandit ravishankar

বিশ্বজন মোহিছে

রবিশঙ্কর আজীবন ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের প্রতি থেকেছেন শ্রদ্ধাশীল। আর বারে বারে পাশ্চাত্যের উপযোগী করে তাকে পরিবেশন করেছেন। আবার জাপানি সঙ্গীতের সঙ্গে তাকে মিলিয়েও, দুই দেশের বাদ্যযন্ত্রের সম্মিলিত ব্যবহার করে নিরীক্ষা করেছেন। সারাক্ষণ, সব শুচিবায়ু ভেঙে, তিনি মেলানোর, মেশানোর, চেষ্টার, কৌতূহলের রাজ্যের বাসিন্দা হতে চেয়েছেন। এই প্রাণশক্তি আর প্রতিভার মিশ্রণেই, তিনি বিদেশের কাছে ভারতীয় মার্গসঙ্গীতের মুখ। আর ভারতের কাছে, পাশ্চাত্যের জৌলুসযুক্ত তারকা।

Pradip autism centre sports

বোধ