ভাঙা-জলসা থেকে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
illustration by Ayantika Chatterjee
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়
অলঙ্করণ: অয়ন্তিকা চট্টোপাধ্যায়

‘এ সবই নশ্বরতা’, বলে তুমি হারমোনিয়াম সরিয়ে দাও।

ফুলের রেণুর মতো,ঝরে-পড়া মাত্র কথাগুলি

মিলিয়ে যাচ্ছে বাতাসে।

তোমার হাতচিঠিগুলোর জন্যও আশঙ্কা হয়!

কেমন নির্জন হয়ে এল ডিসেম্বর মাস,কী বলব,

নশ্বরতার ধর্মই এই!

চোখ শুকিয়ে আসার আগে,আমি তোমাকে জানাতে চাই শুধু,

একের পর এক শীতকাল পার হয়েও গান থেকে যাবে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp

One Response

Leave a Reply

sharbat lalmohon babu

ও শরবতে ভিষ নাই!

তবে হ্যাঁ, শরবতকে জাতে তুলে দিয়েছিলেন মগনলাল মেঘরাজ আর জটায়ু। অমন ঘনঘটাময় শরবতের সিন না থাকলে ফেলুদা খানিক ম্যাড়মেড়ে হয়ে যেত। শরবতও যে একটা দুর্দান্ত চরিত্র হয়ে উঠেছে এই সিনটিতে, তা বোধগম্য হয় একটু বড় বয়সে। শরবতের প্রতি লালমোহন বাবুর অবিশ্বাস, তাঁর ভয়, তাঁর আতঙ্ক আমাদেরও শঙ্কিত করে তোলে নির্দিষ্ট গ্লাসের শরবতের প্রতি।…